1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

গ্রিনহাউসের মধ্যেই অভিনব বসতবাড়ি

নার্সারির মধ্যেই বাড়ি তৈরি করেছেন এক দম্পতি৷ বাড়ি ও কাজের জায়গা একই ছাদের নীচে৷ তাঁদের সঙ্গে পরিচয় না হলে এমন অভিনব জীবনযাত্রার নানা দিক বোঝাই সম্ভব নয়৷

প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টায় মোনিকা টিল নার্সারির দরজা বন্ধ করেন৷ তখন গোটা গ্রিনহাউসে তিনি স্বামীর সঙ্গে একা৷ এমন কাচের সিলিং-এর নীচে সাধারণত টিউলিপ, ফল অথবা ট্রপিকাল গাছপালার সম্ভার দেখা যায়৷ কিন্তু মোনিকা ও টোমাস টিল এখানেই তাঁদের বাসা বেঁধেছেন৷ গ্রিনহাউসের নীচে পাথরের বাড়ি৷ টোমাস বলেন, ‘‘মাথার উপর বাড়তি ছাদ বেশ মনোরম এক অনুভূতি আনে৷ বিশেষ করে উপরে বৃষ্টির ফোঁটা পড়লেও দিব্যি বেরিয়ে গিয়ে সবুজ পরিবেশ উপভোগ করা যায়৷''

টিল দম্পতি বেশ ভোরে উঠে পড়েন৷ সকাল ৬টায় প্রাতরাশ করেন, একেবারে বোটানিকাল গার্ডেনের পরিবেশে৷ অনেক ক্রেতাই জানেন যে টিল পরিবার গ্রিনহাউসে থাকেন৷

কিন্তু ক্রেতারা বন্ধ দরজার সামনে অপেক্ষা করবেন, এমনটা টোমাস টিল ভাবতেই পারেন না৷ তাই নিজেই সঙ্গে সঙ্গে ক্রেতার প্রয়োজন মেটাতে এগিয়ে যান৷ নার্সারির মালিক হিসেবে তিনি বলেন, ‘‘ক্রেতারা জানেন যে এখানে সবসময় কেউ রয়েছে৷ একমাত্র ইতিবাচক বিষয় হলো কাজের জায়গায় যাবার খরচ বাঁচে৷''

ভিডিও দেখুন 04:14

সবুজের মধ্যে সংসার

১২০ বর্গ মিটার জায়গায় গাছপালার মাঝে টিল দম্পতি থাকেন৷ এমন সিদ্ধান্তের সপক্ষে টোমাস টিল বলেন, ‘‘এটা আমাদের বসার ঘরের সবুজ অংশ৷ এখানে অনেক রকম গাছপালা রয়েছে৷ আঙুর গাছ একটু উপরে রয়েছে, কারণ গ্রিনহাউস কিছুটা সংরক্ষিত এলাকা বটে৷ (1.41) কালো বাঁশ গাছ শীতকালে কাবু হয়ে পড়ে, আমাদের এখানেও হয়েছে৷ কিন্তু আবার ধকল সামলে উঠবে৷ ইটালি সহ ভূমধ্যসাগর এলাকার ফোটিনিয়া গাছ সবসময়ে সবুজ থাকে, সেটাও এখানে রয়েছে৷ (1.55) আরও আছে ফ্যান পাম গাছ, যা ইটালিতে দেখা যায়৷''

কর্মক্ষেত্রের পাশেই ঘুম থেকে উঠতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন মোনিকা টিল৷ তিনি বলেন, ‘‘একভাবে দেখলে এটা একটা সুরক্ষার খোলস৷ একদিকে খোলামেলা বাড়ি, আমরাও বেশ খোলামেলাভাবে থাকি৷ অন্যদিকে একটা নির্দিষ্ট সীমারেখাও রয়েছে৷ যেমন মাঝেমধ্যে ক্রেতারা এলেও কর্মীরা পেছনদিকের এই অংশে আসেন না৷ সেখানে আমাদের নিজস্ব আস্তানা রয়েছে৷''

গ্রীষ্মে কাচের নীচে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে যায়৷ তখন ছায়ার প্রয়োজন পড়ে৷ টোমাস টিল বলেন, ‘‘খুব গরম পড়লে আমরা নার্সারি সারাদিন অথবা কিছু সময়ের জন্য বন্ধ রাখি৷ পরিস্থিতি অনুযায়ী পদক্ষেপ নিতে হয়৷ যেমন আকাশে সামান্য মেঘ থাকলে একটা অংশ খুলে রাখা যায়৷ তখন উপরের ঘরে টিকে থাকা যায়৷''

যে সংস্থার প্রধান কর্মীদের এত কাছাকাছি বসবাস করেন, সেখানে কাজের পরিবেশ কেমন? নার্সারির কর্মী কারিনা বলেন, ‘‘সহজ পরিবেশ৷ একদিকে নিজেদের মধ্যে ও মালিকদের সঙ্গে খুবই ব্যক্তিগত ও পারিবারিক সম্পর্ক রয়েছে৷ আবার কখনো মালিক দম্পতির মধ্যে মনোমালিন্য হলেও আমরা বুঝতে পারি৷ অর্থাৎ সবকিছু একেবারে প্রত্যক্ষ, খাঁটি৷''

১৯৯৩ সালে টিল পরিবার সাহস করে বাড়ি ও নার্সারি তৈরি স্বপ্ন বাস্তবায়িত করেন৷ দুজনেই জানতেন, তাঁরা ঠিক কী চাইছেন৷ বাড়ি নির্মাণের পেছনে বেশ কয়েক লাখ ইউরো বিনিয়োগ করে সুফল পাওয়া গেছে৷ তবে নির্মাণের কাজ বেশ কঠিন ছিল৷ সেইসঙ্গে ছিল বিশাল ঝুঁকি৷ কারণ নার্সারির বাজারে প্রতিযোগিতা খুবই বেড়ে গেছে৷

মোনিকা টিল বাসা থেকেই মার্কেটিং-এর কাজ করেন৷ কেনাকাটা করতে তেমন বাইরে যেতে হয় না৷ সবই তো প্রায় বাড়ির আশেপাশে গজায়৷ চারিপাশের প্রকৃতি থেকেই তাঁরা প্রতিদিন নতুন করে তাঁদের শক্তি পান৷

বন্ধু, ভিডিওটি দেখলেন? কেমন লাগলো আমাদের জানাতে ভুলবেন না কিন্তু!

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও