1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

গ্যাগারিনের স্মরণে বাইকোনুর থেকে আবার মহাকাশযাত্রা

ইউরি গ্যাগারিনের কথা মনে আছে? হ্যাঁ, বলছি নভোচারী ইউরি গ্যাগারিনের কথা৷ যাঁর পরীক্ষামূলক মহাশূন্য যাত্রার ৫০ বছর পূর্তি হতে যাচ্ছে এই মাসেই৷

default

ইউরি গ্যাগারিন

১৯৬১ সালের ১২ই এপ্রিল৷ মহাকাশ অভিযানের এক ঐতিহাসিক দিন৷ পৃথিবীর প্রথম মানুষ যাত্রা করেছিলেন মহাশূন্যে৷ কাজাখস্তানে রাশিয়ার বাইকোনুর কসমোড্রোম থেকে নভোচারী ইউরি গ্যাগারিন তাঁর ঐতিহাসিক মহাশূন্য মিশন শুরু করেছিলেন৷ গ্যাগারিনের মহাশূন্য মিশনটির স্থায়িত্ব ছিল ১০৮ মিনিট৷ ঐ মিশনের সমাপ্তি ঘটে যখন গ্যাগারিন প্যারাস্যুট নিয়ে নেমে আসেন রাশিয়ার কেন্দ্রস্থলের একটি গ্রাম্য অঞ্চলে৷ সেটি ছিল যুক্তরাষ্ট্র এবং সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের শীতল যুদ্ধের কাল৷

এতক্ষণ তো অতীতের সেই সোনালী দিনটির কথা বললাম৷ এই এপ্রিল মাসে ইউরি গ্যাগারিনকে নানা ভাবে, নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্মরণ করা হচ্ছে৷ যেমন, গ্যাগারিনের সেই পরীক্ষামূলক মহাশূন্য যাত্রার বার্ষিকী স্মরণে একটি সয়ুজ মহাশূন্যযান মঙ্গলবার যাত্রা করেছে মহাশূন্যে৷ মহাশূন্যযানে রয়েছেন ২ জন রাশিয়ান এবং একজন অ্যামেরিকান নভোচারী৷ দুইদিনের যাত্রা শেষে গ্যাগারিনের নামে নামকৃত গ্যাগারিন টিএমএ-টোয়েন্টি ওয়ান ক্যাপসুলটি বৃহস্পতিবার মহাশূন্যে আন্তর্জাতিক মহাকাশ ষ্টেশন আইএসএস-এ সফলভাবে যুক্ত হয়েছে৷ এই খবর দিয়েছে নাসা৷

মিশনের দুইজন রুশ নভোচারী হলেন, আলেক্সান্ডার স্যামোকুটিয়াভ এবং আন্দ্রেই বরিসেনকো এবং মার্কিন নভোচারীর নাম রোন্যাল্ড গোরান৷ স্যামোকুটিয়াভ এবং বরিসেনকোর এটি প্রথম এবং গোরানের দ্বিতীয় মহাকাশ যাত্রা৷ গোরান মার্কিন মহাকাশযান ডিসকভারিতে করে মহাকাশ অভিযানে গিয়েছিলেন ২০০৮ সালে৷ মঙ্গলবারের ঐ মিশনটিও কাজাখস্তানে রাশিয়ার বাইকোনুর কসমোড্রোম অর্থাৎ গ্যাগারিন যেখান থেকে যাত্রা করেছিলেন, সেখান থেকেই যাত্রা শুরু করে৷

রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন বার্ষিকীটির স্মরণে বিশ্বের প্রথম নভোচারীর জন্মস্থান রাশিয়ার কেন্দ্রস্থলের শহরটি পরিদর্শনে যাবেন৷ শহরটির নাম প্রথম নভোচারীর নামেই রাখা হয়েছে ‘গ্যাগারিন'৷ এই শহরের পাশেই ছোট্ট গ্রাম ক্লুশিনো৷ সেখানেই জন্মগ্রহণ করেছিলেন ইউরি গ্যাগারিন৷

প্রতিবেদন: ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী