1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

গুলশানে ২০ জিম্মি, ৬ জঙ্গি নিহত

ঢাকার গুলশানে কমান্ডো অভিযানের মধ্য দিয়ে ১২ ঘণ্টা পর জিম্মি সংকটের অবসান ঘটেছে৷ এ ঘটনায় ২০ জিম্মি ও ৬ বন্দুকধারী নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে সামরিক বাহিনী৷ একজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷

ঐ রেস্টুরেন্টে সন্ত্রাসী হামলায় ২০ জন নিহত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে আন্ত:বাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর বা আইএসপিআর৷ জিম্মি করার পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে রাতেই তাদের হত্যা করা হয় বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে৷ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাঈম আশফাক বলেন, অভিযানকারীরা ভেতরে ঢোকার পর ২০ জনের মৃতদেহ পায়৷এছাড়া অভিযানে ৬ জন হামলাকারী নিহত হয়েছে এবং একজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি৷ সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে ঐ অভিযানটির নাম দেয়া হয়েছে অপারেশন থান্ডারবোল্ট৷ সেনা কমান্ডোরা ছাড়াও নৌ, পুলিশ, বিজিবি এবং র‍্যাবের সদস্যরা অংশ নেন৷ রেস্টুরেন্ট থেকে উদ্ধারকৃতদের মধ্যে এক জন জাপানী এবং দুই জন শ্রীলঙ্কান নাগরিক রয়েছেন৷

১৩ জিম্মিকে উদ্ধার করা হয়েছে, যাদের মধ্যে চারজন বিদেশি নাগরিক৷ হলি আর্টিজান বেকারিতে শনিবার সকাল সাড়ে ৭টা থেকে ঘণ্টাখানেকের এই অভিযান চালানো হয় বলে জানিয়েছেন এক র‌্যাব কর্মকর্তা৷ নিহতরা জিম্মি না হামলাকারী সে বিষয়ে এখনও স্পষ্ট কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি৷ অভিযানের শুরুতেই নারী ও শিশুসহ পাঁচজনকে উদ্ধার করা হয়৷ তবে সেখানে ঠিক কতজন আটকা পড়েছিলেন এবং তাঁদের মধ্যে কতজন জীবিত উদ্ধার হয়েছেন - তা এখনও স্পষ্ট হয়নি৷

জিম্মি ঘটনার অবসানের পরপরই বিশ্বের প্রধান প্রধান গণমাধ্যম সংবাদটি প্রচার করে৷

ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জানিয়েছে, প্যারা কমান্ডোদের সঙ্গে সেনাবাহিনীর সাঁজোয়া যান অংশ নেয় অভিযানে৷ এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, থেমে থেমে গুলি ও বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন তিনি৷ সেনা সাঁজোয়া যান হলি বেকারির দেয়াল ভেঙে ভেতরে ঢোকে৷ অন্তত একজন বিদেশি নাগরিক সেখানে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে তথ্য পাওয়া গেলেও, পুলিশ কর্মকর্তারা তাৎক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি৷

গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ঘটনার দায় স্বীকার করেছে তথাকথিত ইসলামিক স্টেট বা আইএস৷

প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরণ অনুযায়ী, শুক্রবার রাত পৌনে ৯টার দিকে ‘আল্লাহু আকবর' বলে একদল অস্ত্রধারী গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালালে অবস্থানরত অজ্ঞাত সংখ্যক অতিথি সেখানে আটকা পড়েন৷ পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে নিহত হন বনানী থানার ওসি সালাউদ্দিন ও গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলাম৷

কারা এবং কেন অতর্কিত এ হামলা চালিয়েছে সে বিষয়ে পুলিশ এখনো স্পষ্ট কোনো তথ্য দিতে পারেনি৷ প্রত্যক্ষদর্শীর দেয়া বর্ণনা তুলে ধরেছেন অধ্যাপক ম্যাক্স আব্রাহামস...

রাতে হামলার পরপরই ক্যাফে থেকে অক্ষত অবস্থায় বেরিয়ে আসতে সক্ষম হন এমন একজন কর্মী বলেছিলেন, অন্তত ২০ জন সেখানে ছিলেন তখন, যাদের মধ্যে ছিলেন বেশ কয়েকজন বিদেশি৷

এপিবি/ডিজি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়