1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

গুরুতর অসুস্থ সাংবাদিককে ঘিরে বিতর্ক

সাংবাদিক হোসাইন জাকির ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিত্সাধীন আছেন৷ চিকিত্সকেরা জানিয়েছেন, তাঁর অবস্থা সংকটাপন্ন৷

Symbolbild Journalisten Ausbildung

(প্রতীকী ছবি)

মুখে ক্যান্সার নিয়ে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সাংবাদিক হোসাইন জাকির, যিনি চারবার সেরা প্রতিবেদনের জন্য ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটির এবং একবার ইউনেস্কো পুরস্কার জিতেছেন৷ সম্প্রতি তিনি অপ্রকাশিত দৈনিক আজকের পত্রিকার প্রধান প্রতিবেদক হিসেবে যোগ দেন৷ তাঁর চিকিৎসার জন্য কেবল সাংবাদিকরাই নন, নানা পেশার মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সোচ্চার হয়েছেন৷

শওগাত আলী সাগর ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘সাংবাদিক হোসাইন জাকিরকে নিয়ে তাঁর সহকর্মীরা ফেসবুকে ‘মাতম' তুলেছেন৷ সবাই মিলে হোসাইন জাকিরের পাশে দাঁড়াতে আকুতি মিনতি করছেন৷ ঢাকার সাংবাদিকরা সম্মিলিতভাবে করুণা চেয়ে হাত পাতছেন৷

Symbolbild Interview

‘সাংবাদিক নেতাদের বলি, সাংবাদিকতার সম্মানকে উঁচুতে তুলে ধরতে সোচ্চার হউন৷'

অথচ হোসাইন জাকির ‘প্রথম আলো'কে বলেছেন, দুটি পত্রিকার কাছে যে অর্থ পাওনা আছে, তা পেলে কারও কাছে হাত পাততে হবে না৷ জীবনটা বাঁচাতে পারবেন৷ আশ্চর্য! হোসাইন জাকির ন্যায্য পাওনা টাকা থেকে বঞ্চিত হয়ে মৃত্যুর সাথে লড়ছেন৷ সেই পাওনা টাকা আদায়ের ব্যাপারে তাঁর সহকর্মীরা কথা বলছেন না৷''

সাংবাদিকদের করুণা না চেয়ে, প্রতিবাদী হওয়ার পরামর্শ দিয়ে সাগর বলেন, ‘‘সাংবাদিক নেতাদের বলি, জাকিরের পাওনা টাকা আদায়ে সোচ্চার হউন৷ সাংবাদিকতার সম্মানকে উঁচুতে তুলে ধরতে সোচ্চার হউন৷''

শওগাত আলী সাগরের এই মন্তব্যের উত্তরে দৈনিক যুগান্তরের বিশেষ প্রতিনিধি হেলাল উদ্দীন লিখেছেন, ‘‘জাকিরের বিষয়ে আমি আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছি৷ তবে যুগান্তরের প্রাপ্য নিয়ে যা বলা হচ্ছে তা মনে হয় সঠিক নয়৷ জাকির যুগান্তর ছেড়ে স্বেচ্ছায় চলে গেছে৷ প্রাপ্য বলতে যা বলা হচ্ছে তা গ্রাচুইটি৷ যুগান্তর অতীতে কাউকে গ্রাচুইটি দেয়নি৷ গ্রাচুইটির বহুগুণ বেশি সহায়তার আশা করা হচ্ছে যুগান্তর পরিবারের পক্ষ থেকে৷ সবাই সে চেষ্টাই করছে৷ সময় খুব কম৷''

টিভি সাংবাদিক সুলতানা রহমান নিজস্ব অভিজ্ঞতা থেকে লিখেছেন, ‘‘মানুষটা সারাদিন পান খায়, মানুষটার পান খাওয়া লাল মুখের কোণে কেমন যেনো দুষ্টামির হাসি ঝুলে থাকে সবসময়৷ ভয়াবহ আড্ডাবাজ মানুষটা হঠাৎ হঠাৎ গায়েব হয়ে যায়৷ হোসাইন জাকির ফিরেছে মানে মজার মজার গল্প নিয়ে ফিরেছেন৷ সেইসব গল্প একসময় ভয়াবহ একেকটা অনুসন্ধানী রিপোর্ট হয়ে যেতো৷ সবাই বলতো-এ কেবল জাকিরের পক্ষেই সম্ভব৷ সেই জাকির ভাই এখন চিরতরে হারিয়ে যাওয়ার পথে৷ তাঁর মুখে ক্যান্সার ধরা পড়েছে, তা ছড়িয়ে পড়েছে কণ্ঠনালীতে৷ চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন পনেরো লাখ টাকা৷ কিন্তু নিজের প্রতি চিরকাল উদাসীন লোকটা কখনোই সঞ্চয়ী ছিলেন না৷''

টুইটারেও সাংবাদিক জাকিরের জন্য সাহায্য চেয়ে অনেকেই আবেদন করেছেন৷ আইনজীবী আফসানা জেরিন খান হোসাইন জাকিরের সুস্থতা কামনা করেছেন৷

মো. জহিরুল ইসলাম সবাইকে জাকিরের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন৷

মো. মনিরুজ্জামান টুইটারে জাকির হোসাইনের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর দিয়ে সেখানে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন৷

সংকলন: অমৃতা পারভেজ

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন