1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

গানের শহর হানোফার

হানোফার বলতে লোকে শিল্পমেলাই বোঝে, কিন্তু এই শহর ইউনেস্কোর ‘সিটি অফ মিউজিক’ খেতাব পেয়েছে৷ স্কর্পিয়নস গোষ্ঠী কিংবা ইউরোভিশন সং কনটেস্ট জয়ী লেনা মায়ার-লান্ডরুট এসেছেন এই হানোফার থেকে৷

Musik Band Scorpion

হানোফারের ব্যান্ড ‘স্কর্পিয়নস' এর খ্যাতি বিশ্বজোড়া

জার্মানির লোয়ার স্যাক্সনি রাজ্যের রাজধানী হানোফারে প্রায় পাঁচ লক্ষ মানুষের বাস৷ সেই সঙ্গে আছে হ্যানোফারের ‘সাউন্ড', যে সাউন্ড শুনে ইউনেস্কো হানোফার-কে সিটি অফ মিউজিক-এর খেতাব দিয়েছে৷ কিন্তু এই খেতাব কি হানোফারের প্রাপ্য? সেটা বোঝা যায় ‘স্কর্পিয়নস' ব্যান্ডটিকে দেখলে – এবং শুনলে৷ হেভি মেটাল মিউজিকের এই বিশ্বখ্যাত ব্যান্ডটি দশ কোটির বেশি রেকর্ড বিক্রি করেছে৷ মিউজিক বিজনেসে স্কর্পিয়নস-কে টপ লেভেল বলা চলে!

লেনা মায়ার-লান্ডরুট-ও এই হানোফারের মেয়ে৷ ‘স্যাটেলাইট' গানটি দিয়ে লেনা ২০১০ সালের ইউরোভিশন সং কন্টেস্ট জেতেন৷ সব মিলিয়ে হানোফার যে ইউনেস্কোর ‘গানের শহর' খেতাব পেয়েছে, তাতে আশ্চর্য হবার কিছু নেই৷ কিন্তু যে সব ব্যান্ড স্কর্পিয়নস বা লেনা-র মতো নাম-করা নয়? এই পোড়ো মালগুদামটায় প্র্যাকটিস করে ইন্ডি-পপ-ব্যান্ড ‘লিবার হেয়ার মায়ার'৷ ব্যান্ডটি নিয়মিতভাবে স্থানীয় বার ও ডিস্কোগুলোয় বাজিয়ে থাকে৷

DW popxport - Lena Meyer-Landrut

২০১০ সালের ইউরোভিশন সং কন্টেস্ট জয়ী লেনা হানোফারের মেয়ে

তবে হানোফারের সংগীতের ক্ষেত্র খুব বড় নয়৷ বহু গাইয়ে-বাজিয়ে শেষমেষ হামবুর্গ কিংবা বার্লিনে চলে যান৷ ‘প্রিয় মিস্টার মায়ার' দলটি আশা করছে, হানোফার ইউনেস্কোর খেতাব পাওয়ায় এবার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হবে৷ ‘লিবার হেয়ার মায়ার' স্ভেন মায়ার বলেন, ‘‘মানুষজন যে এখন হানোফারের নাম করছে, তারা জানেন যে এখানেও খানিক গানবাজনা হয়, জলসা ইত্যাদি হয়৷ সেটা হয়তো অনেকেই আগে থেকে আন্দাজ করতে পারেননি৷ সেদিক থেকে এখন অনেক কিছু ঘটবে, যা থেকে আমাদের সুবিধে হতে পারে – তবে প্রত্যক্ষভাবে আমরা কিছু প্রত্যাশা করছি না৷ যদি ঘটে তো ভালো৷ যদি না ঘটে, তবুও আমরা গানবাজনা চালিয়ে যাব৷''

মেয়েদের কয়্যার

পপ আর রক মিউজিক ছাড়া হানোফারে কি অন্য কোনো ধরনের মিউজিক শুনতে পাওয়া যায়? ইউনেস্কো হানোফারের গানবাজনার ঐতিহ্যের কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করেছে৷ যেমন হানোফারের প্রখ্যাত ‘মেডশেনকোয়র', অর্থাৎ মেয়েদের কয়্যার বা সমবেত সংগীত গোষ্ঠী৷ কয়্যারটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৫২ সালে৷ আজ তা সারা বিশ্বে পরিচিত৷ হানোফারে প্রায় ৫০০টি কয়্যার আছে! জার্মানিতে এটা একটা রেকর্ড৷ হানোফার মেডশেনকোয়র-এর গুড্রুন শ্র্যোফেল বলেন: ‘‘এই শহরে গানবাজনার বৈচিত্র্য সত্যিই আশ্চর্য৷ কাজেই সিটি অফ মিউজিক খেতাবটা পুরোপুরি ন্যায্য এবং দেখায় যে, হানোফার অন্যান্য শহরের সঙ্গে পাল্লা দিতে পারে৷''

গ্রামোফোন আর গ্রামোফোন রেকর্ডের আবিষ্কর্তা এমিল বার্লিনার-এর জন্ম হানোফারে৷ জ্বালানির ইতিহাস সংগ্রহশালার উলরিকে নেফারমান বলেন: ‘‘বার্লিনার মানবজাতির একটি বহু পুরনো স্বপ্ন সার্থক করেছেন, শব্দকে ধরে রাখা৷ ব্যবহারিক বিচারে উপযোগী ও চমকপ্রদ একটি উদ্ভাবন৷''

ড্যুজেনব্যার্গ গিটার

গানবাজনার ক্ষেত্রে হানোফারের একটি সমসাময়িক অবদানও উল্লেখযোগ্য: ড্যুজেনব্যার্গ ইলেকট্রিক গিটার৷ কারখানাটি শহরের প্রান্তে, চারপাশে শুধু কলকারখানা৷ এখানেই প্রধানত শুধুমাত্র হাতের কাজ দিয়ে তৈরি হয় ড্যুজেনব্যার্গ গিটার, যা সারা বিশ্বে বিখ্যাত৷ রোলিং স্টোন্স গোষ্ঠীর গিটারিস্ট রন উড, বা স্ট্রোকস দলের নিক ভ্যালেন্সি হানোফারে তৈরি ড্যুজেনব্যার্গ গিটার বাজিয়ে থাকেন৷

Screenshot DW Sendung euromaxx Duesenberg

বিশ্ব মিউজিক জগতে হানোফারের আরেক অবদান ড্যুজেনব্যার্গ ইলেকট্রিক গিটার

কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা ডিটার গ্যোলসডর্ফ প্রথম ড্যুজেনব্যার্গ গিটারটি তৈরি করেন ১৯৮৬ সালে৷ আজ সেই গিটার সারা বিশ্বে খ্যাত, যার পিছনে দৃশ্যত হানোফারেরও অবদান আছে৷ গ্যোলসডর্ফ বলেন: ‘‘হানোফার আসলে বোরিং, সব রকম বৈশিষ্ট্যহীন৷ কাজেই এখানে বাঁচতে গেলে কিংবা জীবনের আনন্দ পেতে গেলে সৃজনশীল কিছু একটা করতে হবে৷ সে হিসেবে এই শহরের একটা বিশাল সৃজনী সম্ভাবনা রয়েছে৷''

স্কর্পিয়নস গোষ্ঠী হানোফারের সেই সম্ভাবনা সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে দিয়েছেন৷ হানোফার বিশ্বের অন্যান্য ‘গানের শহরের' সঙ্গে সহযোগিতায় জলসার আয়োজন করে থাকে৷ মোটকথা, এখানে কেউ বসে থাকেনি, আজও বসে নেই৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক