1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

গাজায় বোমা ফেলার গেম সরিয়ে নিলো গুগল

গাজায় ইসরায়েলি হামলার অনুকরণে তৈরি একটি মোবাইল গেম ‘অ্যাপ স্টোর' থেকে সরিয়ে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বহুজাতিক ইন্টারনেট ও সফটওয়্যার কোম্পানি গুগল৷ কয়েকদিন আগে গেমটি প্রকাশ করে ‘প্লেএফটিডাব্লিউ' নামক একটি প্রতিষ্ঠান৷

‘বোম্ব গাজা' গেমটিতে খেলা হিসেবে গাজায় বেসামরিক প্রাণহানি এড়িয়ে বোমা ফেলতে আহ্বান জানানো হয়েছিল৷ কালো-সবুজ মুখোশ পরিহিত ইসলামপন্থি হামাস যোদ্ধাদের রকেট হামলার জবাবে যুদ্ধবিমান থেকে বোমা ফেলার সুযোগ পেতেন গেমাররা৷

গুগলের এক মুখপাত্র গেমটি মুছে ফেলার খবর নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, ‘‘আমাদের নীতির লঙ্ঘন করে এমন অ্যাপ গুগল প্লে থেকে সরিয়ে নেই আমরা৷''

তিনি অবশ্য গেমটি কোন নীতি লঙ্ঘন করেছে তা পরিষ্কারভাবে জানাননি৷ তবে ঘৃণা ছড়ায়, বিদ্বেষমূলক কিংবা সহিংসতাকে উসকে দেয় এমন কন্টেন্ট অ্যাপ স্টোরে প্রকাশ গুগলের নীতি বিরুদ্ধ৷

২৯শে জুলাই ইন্টারনেটে প্রকাশের পর এক হাজারবারের মতো সেটি গুগল স্টোর থেকে ডাউনলোড করা হয়েছে৷ স্টোরের রিভিউ পাতায় গেমটির ব্যাপারে নেতিবাচক মন্তব্য করেছেন অনেকে৷ গেমটি সরিয়ে নেয়ার আগে সেখানে ওমা আলি নামক এক ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘‘দয়া করে প্লে স্টোর থেকে গেমটি সরিয়ে নিন৷ এটা অবমাননাকর এবং আমি হতাশ যে গুগল এই গেম প্রকাশের সুযোগ দিয়েছে৷ যদি গেমটি সরিয়ে নেয়া না হয় তাহলে আমি গুগল বয়কট শুরু করবো৷''

প্রসঙ্গত, গুগল সরিয়ে নিলেও ফেসবুকে এখনো গেমটি রয়েছে৷

Israel Krieg Gaza Abzug Feuerpause Waffenstillstand Panzer Licht Staub 04.08.2014

গেমটিতে খেলা হিসেবে গাজায় বেসামরিক প্রাণহানি এড়িয়ে বোমা ফেলতে আহ্বান জানানো হয়েছিল

আর এই বিষয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স চেষ্টা করেও ফেসবুকের কোনো মন্তব্য পায়নি৷ গেমটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান প্লেএফটিডাব্লিউও মন্তব্য করা থেকে বিরত রয়েছে৷

উল্লেখ্য, গত ৮ই জুলাই গাজায় হামলা শুরু করে ইসরায়েল৷ সেখানকার সেনাবাহিনীর দাবি, হামাসের ছোড়া রকেটের জবাবে এই হামলা তাদের৷ গাজার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ইসরায়েলের হামলায় মঙ্গলবার (০৫.০৮.১৪) পর্যন্ত ১,৮০০-র বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন৷

জাতিসংঘের প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, নিহত ফিলিস্তিনিদের অধিকাংশই বেসামরিক নাগরিক৷ অন্যদিকে, ইসরায়েলের ৬০ জনের বেশি সেনা এবং তিনজন বেসামরিক নাগরিক প্রাণ হারিয়েছেন৷

এআই/ডিজি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন