1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

গাজার উপর ইসরায়েলের হামলা

প্রথমে গাজা থেকে ইসরায়েলের উপর রকেট হামলা, তারপর যথারীতি ইসরায়েলের পালটা হামলা – মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা আবার বেড়ে চলেছে৷ গাজায় ইসরায়েলি সেনাবাহিনী প্রবেশের সম্ভাবনাও আর উড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে না৷

২০১২ সালের অস্ত্রবিরতির পর গাজা থেকে ইসরায়েলের দক্ষিণে রকেট বৃষ্টি কার্যত বন্ধ ছিল৷ কিন্তু হামাস-নিয়ন্ত্রিত বিচ্ছিন্ন এই ভূখণ্ড থেকে আবার হামলা শুরু হয়েছে৷ শুধু সোমবারই ৮০টিরও বেশি হামলার কথা বলছে ইসরায়েলি বাহিনী৷ ফলে গত দুই মাসে হামলার সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়ে গেল৷ এই অবস্থায় ইসরায়েলি সেনাবাহিনী সীমান্ত থেকে প্রায় ৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত এলাকার মানুষকে সতর্ক করে দিয়েছে৷ তাদেরকে বিশেষ সুরক্ষিত এলাকার আশেপাশে থাকার ডাক দেওয়া হয়েছে৷ ‘আয়রন ডোম' নামের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধ ব্যবস্থা ১২টি রকেট ধ্বংস করতে পেরেছে৷

সেইসঙ্গে শুরু হয়ে গেছে গাজার উপর হামলা৷ আকাশ ও সমুদ্রপথে প্রায় ৫০টি লক্ষ্যবস্তুর উপর হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী৷ ফিলিস্তিনি সূত্র অনুযায়ী, মঙ্গলবার ভোরের দিকে প্রায় ৩০টি এলাকার উপর হামলা চালানো হয়৷ এর মধ্যে হামাসের দুই সদস্যের বাড়িও ছিল বলে জানা গেছে৷ মোট ন'জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে৷ ফিলিস্তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্র অনুযায়ী একটি বাড়ির বাসিন্দাদের টেলিফোন করে আগাম সতর্ক করে দিয়েছিলেন এক ইসরায়েলি অফিসার৷ ফলে তারা সময়মতো বাড়ি ছেলে চলে যায়৷

উত্তেজনা আরও বাড়তে পারে, এমন আশঙ্কায় ইসরায়েলি সেনাবাহিনী সরাসরি গাজায় প্রবেশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে৷ এক সামরিক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ‘অপারেশন প্রোটেক্টিভ এজ' নামের অভিযানের আওতায় বিষয়টি নিয়ে ভাবনা-চিন্তা করা হচ্ছে৷

Israel Zerstörung in Gaza 08.07.2014

ইসরায়েলের হামলায় ধ্বংস হয়ে যাওয়া ঘরে এক ফিলিস্তিনি নারী

মোটকথা হামাস-এর হামলার ক্ষমতা কার্যত ধ্বংস করে দিতে বদ্ধপরিকর ইসরায়েল৷ ফলে এবারের অভিযান বহুদিন ধরে চলতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে সেনাবাহিনী৷ প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু-র নেতৃত্বে মন্ত্রিসভার সাতজন সদস্য গভীর রাতে বৈঠক করেছেন৷ সম্প্রতি এই নিয়ে ৫ বার ‘সিকিউরিটি ক্যাবিনেট'-এর বৈঠক বসলো৷

হামাসের সশস্ত্র বাহিনী ইসরায়েলি হামলার জবাবে ‘ভূমিকম্প' ঘটানোর হুমকি দিয়েছে৷ তাদের মতে, বাড়িঘরের উপর হামলার মাধ্যমে সহ্যের সীমা অতিক্রম করেছে ইসরায়েল৷ ফলে হামাস আরও দূরপাল্লার রকেট হামলার হুমকি দিয়েছে৷ তাদের কাছে প্রায় ১০,০০০ রকেট রয়েছে বলে মনে করে ইসরায়েলি বাহিনী৷ কিছু রকেট এমনকি তেল আভিভ ছাড়িয়ে আরও দূর পর্যন্ত যেতে পারে৷

ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ফাতাহ ও হামাস সমর্থিত এক জাতীয় ঐক্য সরকার গঠন করার পর যখন কিছুটা শান্তির আশা দেখা দিচ্ছিলো, ঠিক তখনই তিনজন ইসরায়েলি তরুণের অপহরণ ও হত্যা নতুন করে উত্তেজনার সৃষ্টি করে৷ ইসরায়েল সরাসরি হামাসকেই এই ঘটনার জন্য দায়ী করে৷ এক ফিলিস্তিনি কিশোরকেও নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়৷ গাজার এক সুড়ঙ্গের মধ্যে ধস নেমে সাতজন হামাস যোদ্ধার মৃত্যু হয়৷ হামাস ইসরায়েলি বিমান হামলাকে এই ঘটনার জন্য দায়ী করে৷ তার পর থেকেই গাজা থেকে রকেট হামলা শুরু হয়েছে৷

এসবি/ডিজি (রয়টার্স, ডিপিএ, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়