1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

গর্ভপাত করা নারীর শাস্তি চেয়ে তোপের মুখে ট্রাম্প

গর্ভপাত করা নারীদের শাস্তি দাবি করে নিজের দলেও সমালোচনার মুখে পড়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ সমালোচনা শুরু হতেই যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী তিনি বলছেন, শাস্তি হওয়া দরকার ডাক্তারদের৷

আগামী ৮ই নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন৷ নির্বাচনের দিন যত এগিয়ে আসছে ততই ট্রাম্পের ঝুলিতে বিতর্কিত মন্তব্যের সংগ্রহ বাড়ছে৷ সর্বশেষ সংযোজন, গর্ভপাত করিয়েছেন এমন যে কোনো নারীর শাস্তি দাবি করা৷ বুধবার কেবল নিউজ নেটওয়ার্ক এমএসএনবিসি-র সাংবাদিক গর্ভপাত বিষয়ে ট্রাম্পের মতামত জানতে চান৷ ট্রাম্প জানান, তিনি মনে করেন, গর্ভপাত করানো অপরাধ, তাই যে নারীরা গর্ভপাত করান তাঁদের জন্য ‘‘শাস্তির ব্যবস্থা থাকা উচিত৷'' কেমন শাস্তি দেয়া যেতে পারে? উত্তরে ট্রাম্প বলেন, ‘‘তা জানি না৷''

সাক্ষাৎকারটি প্রচারের সঙ্গে সঙ্গেই শুরু হয়ে সমালোচনা৷ একজন সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর এমন মন্তব্যে হতাশ হয়ে কেউ কেউ টুইটারে প্রশ্ন তুলেছেন, ‘‘আমরা কি অন্ধকার যুগে ফিরে যাচ্ছি?''

ট্রাম্পের এমন মন্তব্যে তাঁর নিজের দলের নেতা-কর্মীদের বড় একটা অংশও ক্ষুব্ধ৷ রিপাবলিকান দলের আরেক মনোনয়নপ্রত্যাশী জন কেসিক তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, ‘‘মেয়েদের অবশ্যই শাস্তি হওয়া উচিত নয়৷ আমার তো মনে হয়, ডোনাল্ড ট্রাম্প একটু পরেই বলতে শুরু করবেন যে, তিনি এমন কথা বলেননি, কিংবা তাঁর বক্তব্যে ভুল ব্যাখ্যা হয়েছে৷''

ওহাইয়োর গভর্নর কেসিকের অনুমান একদম ঠিক৷ আগের বক্তব্য থেকে সরে সত্যিই একটি বিবৃতি দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘‘ডাক্তার বা অন্য কেউ, যিনি নারীদের দিয়ে এই অন্যায় কাজটি করান, আইনত তারাই দায়ী৷ তাদেরই শাস্তি হওয়া উচিত৷ নারী তো আসলে পরিস্থিতির শিকার৷''

এমন বিবৃতির পরও সমালোচনা থামেনি৷ ডেমোক্র্যাট দলের সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিন্টনসহ অনেকেই গর্ভপাত করা নারীদের শাস্তি দাবি করায় ট্রাম্পের সমালোচনায় মুখর৷

ট্রাম্প নারী, কিংবা ডাক্তারদের শাস্তি দাবী করলেও যুক্তরাষ্ট্রে কিন্তু গর্ভপাত বৈধ৷ ১৯৭৩ সালে সুপ্রিম কোর্টের এক রায়ে গর্ভপাতকে বৈধতা দেয়া হয়৷ রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী মনোনয়ন দৌড়ে শামিল হওয়ার আগে ট্রাম্পও গর্ভপাতের পক্ষেই ছিলেন৷

ভিডিও দেখুন 26:03

এসিবি/ডিজি (এপি, রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়