1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

গণমাধ্যমে ক্রিকেটের সুনামি

একদিকে যেমন চুলচেরা বিশ্লেষণ, অন্যদিকে তেমন দেশপ্রেম, ভাষাপ্রীতি এবং ক্রিকেট অনুরাগের ত্রহস্পর্শে জন্ম নিয়েছে এক অদ্ভূত ক্রিকেট সাহিত্য৷

default

‘এমন উন্মাদনা কখনও কেউ দেখেনি'

সংবাদ সংস্থাগুলোকে সাধারণত একটু মাথা ঠাণ্ডা রাখতে হয়৷ তা'ও বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের শিরোনাম হল ‘‘এগিয়ে যাওয়ার বনাম প্রতিশোধের ম্যাচ''৷ তারপরেই দৈনিক পত্রিকাগুলোয় উচ্ছ্বাস-আবেগের বিস্ফোরণ৷ মূল চিত্রকল্পটি হল ‘টাইগারদের' কেন্দ্র করে৷ ‘গর্জে ওঠো বাংলাদেশ', এই হল সমকালের শিরোনাম৷ প্রতিবেদক লিখছেন: ‘‘গভীর জঙ্গলে নয়, বাঘ এসে পড়েছে গ্যালারি ঘেরা সবুজ দ্বীপে৷'' তারপরে সেই রূপকটির সঙ্গে যোগ করেছেন ভারতীয় সিংহের প্রতীক৷ পোর্ট অফ স্পেনেও সিংহের গায়ে আঁচড় বসিয়েছিল বাঘ৷ আর ‘‘এবার যে মাঠের এগারোর সঙ্গে যোগ হয়েছে আরও ষোল কোটি বাঘ,'' লিখছেন প্রতিবেদক৷ আবার হাস্যরসও যে নেই, এমন নয়৷ পরে ঐ প্রতিবেদকই লিখছেন: ‘‘বিশ্বকাপে ভারত বাংলাদেশের কাছে পা পিছলে আলুর দম হওয়া একটি দল৷''

আবেগ বনাম বিশ্লেষণ

কালের কণ্ঠের প্রতিবেদক ঠিক সেই দ্বন্দ্বেই পড়েছেন৷ শেহবাগ বনাম তামিম ইকবাল, টেন্ডুলকার বনাম সাকিব৷ যুক্তি কিংবা ক্রিকেটীয় শক্তির বিচারে ম্যাচের ফলাফল বাংলাদেশের অনুকুল হবে না৷ তাই প্রতিবেদক লিখছেন: ‘‘কিন্তু বাংলাদেশের যে মানুষ আছে!... এই মাটির গন্ধ, এই মাঠের শক্তি, এই মানুষের উন্মেদনা মিলে যে প্রেরণার ত্রিভুজ, সেটাই বাংলাদেশের তরীকে ভেড়াতে পারে তীরে৷'' জনকণ্ঠও জানাচ্ছে, ‘এমন উন্মাদনা কখনও কেউ দেখেনি'৷ ভারতীয়রাও অবাক, ভারতীয় সাংবাদিকরাও বিস্মিত৷ প্রতিবেদকের ভাষায়: ‘‘বাঙালীর এমন ভালবাসার বিস্ফোরণ কি সচরাচর মেলে?''

সেটা দুপার বাংলার মানুষদেরই

যুগান্তরের প্রতিনিধি কলকাতা থেকে তাই জানাচ্ছেন৷ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পরদিন লিখছেন: ‘‘সকালে ঘুম থেকে উঠে কলকাতার বহু মানুষ বুঝতে পারেননি শুক্রবার প্রভাতী সংবাদপত্রগুলো বাংলাদেশ না পশ্চিমবঙ্গের৷'' পশ্চিমবঙ্গের সব ক'টি বাংলা টেলিভিশন চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচার, কভারেজে - প্রতিবেদকের ভাষায় - ‘‘পদ্মাপারের বাঙালিদের ঢালাও প্রশস্তি''৷

তা'হলে বিশ্লেষণ কোথায়?

ভোরের কাগজে দুই দেশের, দুই দলের অধিনায়কদের বক্তব্য৷ জনকণ্ঠে দুই দলের প্লেয়ার বাই প্লেয়ার এ্যানালিসিস৷ আর যুগান্তরের প্রতিবেদক একুশের আবেগ থেকে শুরু করে শেষমেষ এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন যে, শুধুমাত্র একটি জায়গা ছাড়া বাংলাদেশের সেরা একাদশ ঠিকই হয়ে রয়েছে৷

এবং আর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সেই সেরা একাদশকে মাঠে দেখা যাবে৷

প্রতিবেদন: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: সাগর সরওয়ার

নির্বাচিত প্রতিবেদন