1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

খালেদার ভিডিও বার্তা, যান চলাচল বন্ধের অভিযোগ

ঢাকা মেট্টোপলিটন পুলিশ ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি' কর্মসূচির অনুমতি না দেয়ার সিদ্ধান্ত জানানোর দেড় ঘণ্টার মধ্যেই বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া দেশবাসীর উদ্দেশে একটি ভিডিও বার্তা দেন৷

ঐ বার্তায় তিনি না থাকলেও কর্মসূচি সফল করতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান৷ খালেদা জিয়া বলেন, পুলিশ অনুমতি না দিলেও সব প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে রবিবার নয়া পল্টনের সমাবেশে যোগ দিতে হবে৷ তবে কি কারণে তিনি থাকতে পারবেন না, তা উল্লেখ করেনি৷

ভিডিও বার্তায় খালেদা জিয়া বলেন, ‘‘স্বাধীনতা যুদ্ধের বিজয় মাসে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য আগামী ২৯ ডিসেম্বর জাতীয় পতাকা হাতে আমি আপনাদের প্রতি নয়াপল্টনে বিএনপি অফিসের সামনে সমবেত হতে অনুরোধ করছি৷ আমি আশা করি সকল প্রতিকূলতা, প্রতিবন্ধকতা উপেক্ষা করে আপনারা ২৯ ডিসেম্বর ঢাকায় গণতন্ত্র রক্ষার সমাবেশে শরিক হবেন৷'' নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বিএনপি চেয়ারপার্সন বলেন, ‘‘আমি আপনাদের পাশে আছি, থাকব সবসময়৷ যদি আমি আপনাদের পাশে থাকতে না পারি, তাহলেও আপনারা এই কর্মসূচি-আন্দোলন চালিয়ে যাবেন৷'' ''

বর্তমান সরকারের বিদায় না হওয়া পর্যন্ত এই আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলেও উল্লেখ করেন খালেদা জিয়া৷ বিএনপি চেয়ারপার্সন সবাইকে ঢাকা যাত্রা শেষে সমাবেশে মিলিত হয়ে সরকারের ‘প্রহসনের' নির্বাচনকে ‘না' বলতে এবং গণতন্ত্র ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনকে ‘হ্যাঁ' বলার আহ্বান জানান৷ খালেদা জিয়া বলেন, ‘‘এ দেশে আমরা গণতন্ত্র এনেছি, আবারো গণতন্ত্র আনব এবং ইনশাল্লাহ সেদিন বেশি দূরে নয়, বিজয় আমাদের সুনিশ্চিত৷

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মাসুদুর রহমান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘জননিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে'' সমাবেশের অনুমতি না দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে৷

বিএনপির সহ দপ্তর সম্পাদক শামিমুর রহমান ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, ডিএমপি কমিশনারের কাছে তাঁরা দু'টি চিঠি দিয়েছেন৷ একটি চিঠিতে ২৯ ডিসেম্বর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জমায়েতে খালেদা জিয়া ও দলীয় নেতা-কর্মীদের নিরাপত্তা এবং অপর চিঠিতে মাইক ব্যবহারের অনুমতি চাওয়া হয়েছে৷ কিন্তু অনুমতি না দেয়া দুঃখজনক৷

কর্মসূচিতে যোগ দিতে সারা দেশ থেকে দল-মত, শ্রেণি-পেশা, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সক্ষম নাগরিকদের লাল-সবুজের জাতীয় পতাকা হাতে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন খালেদা জিয়া৷ কর্মসূচিতে বাধা না দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে খালেদা জিয়া আগে বলেছিলেন, জনতার এই অভিযাত্রায় বাধা দেবেন না৷ যানবাহন, হোটেল-রেস্তোরাঁ বন্ধ করবেন না৷ নির্যাতন, গ্রেপ্তার, হয়রানির অপচেষ্টা করবেন না৷ শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনে বাধা এলে জনগণ তা মোকাবিলা করবে৷

প্রসঙ্গত, পাঁচ দফা টানা অবরোধের পর খালেদা জিয়া গত মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি' কর্মসূচি ঘোষণা করেন৷ ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় নির্বাচনকে ‘প্রহসনের ভোট' আখ্যায়িত করে তা প্রতিহতের জন্য সবাইকে রবিবার ঢাকায় সমবেত হতে বলেন তিনি৷ পরদিন বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল নয়া পল্টনে সমাবেশের অনুমতি ও সহযোগিতা চেয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের কাছে আবেদন করে৷ সমাবেশ করতে বাধা দিলে পরিণতি ভাল হবে না বলে সরকারকে সতর্কও করেন খালেদা জিয়া৷ এদিকে টানা হরতাল অবরোধে শতাধিক মানুষের প্রাণহানি ও ব্যাপক নাশকতার পর বিরোধী দলের এই নতুন কর্মসূচি নিয়ে জনমনে উদ্বেগ উৎকণ্ঠার সৃষ্টি হয়৷ নির্বাচন সামনে রেখে সারা দেশে যৌথ অভিযান শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, যাতে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গণ গ্রেপ্তার করা হচ্ছে বলে বিএনপি নেতাদের অভিযোগ৷ বিভিন্ন স্থানে বাস-লঞ্চ বন্ধ রেখে নেতাকর্মীদের ঢাকা আসার পথে বাধা সৃষ্টি করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ তোলেন বিএনপি নেতারা৷

ঢাকামুখী যান চলাচল বন্ধ

শুক্রবার দুপুরের পর থেকে দেশের বিভিন্নস্থান থেকে ঢাকামুখী যানচলাচল বন্ধ হয়ে গেছে৷ কেউ যাতে কর্মসূচিতে যোগ দিতে না পারে সে কারণে সরকারের নির্দেশে ঢাকার দিকে কোনো যানবাহন যাচ্ছে না, বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি নেতারা৷ এমনকি বরিশাল থেকে লঞ্চও ঢাকার দিকে যাচ্ছে না৷ তারপরও বিএনপির নেতাকর্মীরা বিভিন্নভাবে সমাবেশে যোগ দিতে রওনা দিয়েছেন বলে বিএনপির একাধিক নেতা জানিয়েছেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন