1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘‘খালেদাকে গ্রেপ্তার করা হলে সংঘাত আরও বাড়বে''

খালেদা জিয়ার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন মঙ্গলবার জানিয়েছেন, খালেদা জিয়া দু'টি শর্তে বুধবার আদালতে আত্মসমর্পণ করতে পারেন৷ এগুলো হলো, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ও আবার নিজ কার্যালয়ে ফিরে যাওয়ার নিশ্চয়তা৷

বিএনপির এই নেতা সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল৷ যদিও এখনো আমরা ‘ওয়ারেন্ট'-এর কপি হাতে পাইনি, তারপরও যদি আদালতে যেতে এবং আত্মসমর্পণ করতে হয়, তাহলে তিনি (খালেদা জিয়া) আদালতে যেতে ইচ্ছুক৷ তবে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ও কার্যালয়ে ফিরে আসার আশ্বাস দিতে হবে৷''

এ প্রসঙ্গে প্রথম আলোতে প্রকাশিত প্রতিবেদনের নীচে মন্তব্য করেন শেখ আলিমুল হক আলিম৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘এ পর্যন্ত যারা পেট্রোল বোমার আগুনে পুড়ে মারা গেছে, তারা কি কোনো শর্ত দিয়ে ঘর থেকে বের হয়েছিল? দেশের সাধারণ জনগণ যখন কোর্টে হাজিরা দিতে যায় তখন কি সরকার তাদের জন্যে নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করে? তাছাড়া নেত্রীর নিজস্ব নিরাপত্তা বাহিনীতো আছেই!! কার এত ঠেকা পড়েছে নেত্রীর উপর হামলা চালাতে যাবে?''

আদালতে হাজির হতে শর্ত দেয়ায় ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় জাহিদুর রহমান মন্তব্য করেন, ‘‘কয়েকদিন পর বলবে আমাকে পাকিস্তান যেতে দিলে হরতাল অবরোধ উঠাবো৷'' আরেক পাঠক মাহফুজ আদনান মনে করেন, খালেদা জিয়ার নিরাপত্তার বিষয়টি সব পক্ষকে মাথায় রাখতে হবে৷ পাশাপাশি তাঁর রাজনৈতিক কর্মসূচিতে বাধা দেওয়া উচিত হবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি৷

এদিকে বুধবার আদালতে হাজির না হলে খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার করা হতে পারে বলে অনেকে মনে করেছেন৷ ঢাকার একটি শীর্ষ দৈনিকে এমনই আভাস দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে৷

ব্রাসেলসভিত্তিক সংস্থা ‘ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইসিস গ্রুপ' আশংকা করছে, খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার করা হলে সংঘাত আরও বাড়তে পারে৷ সোমবার প্রকাশিত সংস্থার ‘ক্রাইসিসওয়াচ' শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এমন আশঙ্কার কথা জানানো হয়৷ ডয়চে ভেলে বাংলার ফেসবুক পাতায় বিষয়টি শেয়ার করে পাঠকদের কাছে জানতে চাওয়া হয় যে, তারাও এমন আশঙ্কা করছেন কিনা৷ উত্তরে পক্ষে-বিপক্ষে শতাধিক মন্তব্য এসেছে৷

এসএইচ আহাম্মেদ সুমন মনে করেন, ‘‘প্রাথমিকভাবে সংঘাত বাড়বে কিন্তু কঠিনভাবে সামলালে আগামী ৫ বছরে নতুন ঝামেলা হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম৷'' একইরকম বিশ্বাস জে এস মাহমুদের৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘হ্যাঁ, প্রথম দিকে সংঘাত বাড়বে, পরে অবশ্যই কমবে৷ একটা সময় মানুষ উপলব্ধি করবে দেশে জঙ্গি দমন হয়েছে৷''

তবে আমির হোসেনের ধারণা, খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার করা হলে সংঘাত আরও বাড়বে৷ ‘‘কারণ হাসিনার চেয়ে খালদার জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বী – যা আওয়ামী লীগের ভয়ের কারণ'', মন্তব্য তাঁর৷

সিরাজুল ইসলাম মনে করেন, ‘‘(খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার করা হলে) কোনো নেতা কর্মী আর ঘরে বসে থাকবে না, কারো জন্য অপেক্ষা করবে না, সবাই রাস্তায় নেমে আসবে৷''

সংকলন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়