1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

খাবেন নাকি কৃত্রিম মাংসের বার্গার?

গবাদি পশুর স্টেমসেল থেকে তৈরি মাংস দিয়ে এই বার্গার তৈরি করবেন বিজ্ঞানীরা৷ সোমবার লন্ডনের একটি রেস্টুরেন্টে এই বার্গার তৈরি হবে৷ আর সেটা চেখে দেখবেন দুই স্বেচ্ছাসেবক খাদক৷

ডাচ বিজ্ঞানী মার্ক পোস্টের গত কয়েক বছরের গবেষণার ফল এই মাংস৷ পোস্টের আশা তাঁর উদ্ভাবিত মাংস বিশ্বের খাদ্য চাহিদা মেটানো ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় সহায়তা করবে৷

কয়েকটি তথ্য দিলে বিষয়টা পরিষ্কার হবে৷ বিশ্ব খাদ্য সংস্থার ২০০৬ সালের এক প্রতিবেদন বলছে, কৃষিকাজে প্রযুক্তির ক্রমবর্ধমান ব্যবহার জলবায়ু পরিবর্তন, বায়ু দূষণ, ডিফরেস্টেশন ও বায়োডাইভারসিটি কমানোর ক্ষেত্রে ‘বড় ভূমিকা' রাখছে৷

ঐ প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, বিশ্বে যত গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন হয় তার ১৮ শতাংশের জন্য নাকি দায়ী মাংস শিল্প এবং এই মাত্রা আরো বাড়তে পারে কারণ দ্রুত উন্নয়নশীল দেশ চীন ও ভারতে মাংস খাওয়ার পরিমাণ বাড়ছে৷

জাতিসংঘের ঐ সংস্থার মতে, ২০৩০ সালে মাংস উৎপাদনের পরিমাণ বেড়ে দাঁড়াবে ৩৭৬ মিলিয়ন টনে৷ ১৯৯৭-১৯৯৯ সালে যেটা ছিল ২১৮ মিলিয়ন টন৷

বেশি বেশি মাংস উৎপাদন মানেই হলো বেশি বেশি পরিবেশ দূষণ৷ সুতরাং যদি কৃত্রিম মাংস উৎপাদন করে মাংসের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা যায় তাহলে তো সেটা ভালোই হবে বলে বিশ্লেষকদের ধারণা৷

ডাচ বিজ্ঞানী পোস্ট আশা করছেন যে, আগামী ২০ বছরের মধ্যে বাণিজ্যিক উপায়ে কৃত্রিম মাংসের উৎপাদন শুরু করা যাবে৷

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে কৃত্রিম মাংস কি আসল মাংসের স্বাদ এনে দিতে পারবে?

জেডএইচ/ডিজি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন