1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

ক্ষুধা দূর করতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান

খাদ্যাভাব ও অপুষ্টি দূর করতে জার্মানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছে ভেল্টহুঙ্গারহিল্ফে বা ওয়ার্ল্ড হাঙ্গার এইড৷ শুধু তাই নয়, ক্ষুধা দূর করতে এবার সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন জার্মান প্রেসিডেন্ট ইওয়াখিম গাউক৷

ভেল্টহুঙ্গারহিল্ফে বা বিশ্ব ক্ষুধা ত্রাণ – জার্মানির বৃহত্তর খাদ্য সহায়তা এনজিও৷ ১৯৬২ সালে এর পথচলা শুরু৷ এরপর থেকে প্রতিবছর দারিদ্র্য ও অপুষ্টির বিরুদ্ধে জার্মানদের অবস্থান নিতে এই সপ্তাহের আয়োজন করে আসছে এনজিওটি৷ রোববার জার্মান ফুড ওর্গানাইজেশন ভেল্টহুঙ্গারহিল্ফে অ্যাকশান উইক অন ওয়ার্ল্ড হাঙ্গারের উদ্বোধন করেন জার্মান প্রেসিডেন্ট ইওয়াখিম গাউক৷ বলেন, একজন মানুষ যদি এক হাজার দিন খাদ্যাভাবে থাকেন, তবে তাঁর জীবন থেকে ভালো সুযোগগুলো হারিয়ে যেতে বাধ্য৷ তাঁর মতে, পুষ্টিকর খাদ্য পাওয়া প্রতিটি মানুষের মানবাধিকার৷

24.09.1999, Berlin / Lichtenberg: Der Bundesbeauftragte für Stasiunterlagen Joachim Gauck im Kupferkessel in der der ehemaligen Stasizentrale in Berlin-Lichtenberg. 10 Jahre nach dem Fall der Mauer ist immer noch das Intresse an der Aufarbeitung der Vergangenheit sehr groß.

ক্ষুধা দূর করতে এবার সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন জার্মান প্রেসিডেন্ট ইওয়াখিম গাউক

১৬ই অক্টোবর বিশ্ব খাদ্য দিবসকে কেন্দ্র করে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়৷ অনুষ্ঠানের মধ্যে বিক্ষোভ-মিছিল, চলচ্চিত্র ও চিত্র প্রদর্শনী, আলোচনাসহ পুরো দেশে নানা আয়োজন থাকে৷

বিশ্বের ৮৪ কোটি ২০ লাখ মানুষ খুব তাড়াতাড়ি খাদ্যাভাবে পড়বে, যা হতে দেয়া উচিত নয় বলে মন্তব্য করেন ঐ বেসরকারি সংগঠন বা এনজিও-টির কর্মকর্তারা৷ প্রতি বছর ৩১ লাখ শিশু খাদ্যাভাবে মারা যায়, প্রতি দশ সেকেন্ডে একজন৷ সব মিলিয়ে প্রতি বছর খাদ্যাভাবে মারা যায় বিশ্বের প্রায় ৭০ লাখ মানুষ৷

এই আয়োজনের মাধ্যমে জার্মানদের উৎসাহিত করা হয়, যাতে তাঁরা স্কুলে অনুষ্ঠান ও নানা কনসার্টের মাধ্যমে তহবিল গঠন করেন৷ মানবাধিকার সংস্থা এফআইএএন-এর কর্মকর্তা রোমান হেরে ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, তিনি এই এনজিও-র কাজে আস্থা রাখেন৷ তাঁর মতে, এ ধরনের আয়োজন যদি মানুষকে নাড়া দিতে পারে তাহলে ইতিবাচক কাজ হওয়া সম্ভব৷

হেরে জানালেন, এই আয়োজনের ফলে মানুষের চিন্তাভাবনায় পরিবর্তন এসেছে৷ এ বছরের জানুয়ারি মাসে বার্লিনে ২৫ হাজার মানুষ ক্ষুধা ও দারিদ্রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করে৷ তাদের স্লোগান ছিল, যথেষ্ট হয়েছে, আর নয়৷

তবে সাবেক রেডিও সাংবাদিক কুর্ট গেরহার্ট ডয়চে ভেলেকে বললেন, বিক্ষোভ আর আলোচনার মাধ্যমে ইউরোপের মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি যথেষ্ট নয়৷ তাঁর মতে, যেসব স্থানে দারিদ্র্য রয়েছে, সেখানে গিয়ে কাজ করা উচিত৷ তিনি বলেন, সমস্যাটা তো ইউরোপে নয়, বরং আফ্রিকার মতো দেশেই রয়েছে এ সমস্যা৷ তাই এখানে কাজ না করে সেখানে গিয়ে কাজ করা উচিত৷ তবে এনজিও-র কার্যক্রমকেও সাধুবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, এর মাধ্যমে যাঁরা এ বিষয়ে জানতেন না তাঁরা জানার সুযোগ পাচ্ছেন৷ যাঁরা কখনো এ বিষয়ে অর্থ সহায়তার কথা ভাবেননি, তাঁরাও ভাবছেন দেয়ার কথা৷ এ ধরনের মানুষের জন্য এই আয়োজন উত্তম৷

তবে তাঁর মতে, ক্ষুধা ও দারিদ্র্য দূর করতে হলে সে স্থানের অর্থনৈতিক কাঠামোকে বদলাতে হবে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়তে হবে৷ অক্টোবরের ২০ তারিখে শেষ হবে এই সপ্তাহ৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন