1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

ক্ষমা চাইলেন জার্মানির বিলাসী বিশপ

নাম টেবার্টস ফান এলস্ট৷ ক’দিন আগে পর্যন্ত ছিলেন জার্মানির লিমবুর্গ শহরের বিশপ৷ এই পদ আজীবন থাকে৷ কিন্তু বিচিত্র কাণ্ডকারখানার জেরে প্রবল চাপের মুখে শেষ পর্যন্ত তাঁকে পদত্যাগ করতে হলো৷ এবার তিনি নিজের ভুলও স্বীকার করলেন৷

তাঁকে ঘিরে কেন যে এত বিতর্ক, ফ্রানৎস পেটার টেবার্টস ফান এলস্ট সেটা যেন বুঝতেই পারছিলেন না, বা চাইছিলেন না৷ ঈশ্বরের উপাসনার কাজে বিলাসিতা ও বিত্তের প্রতি মাত্রাতিরিক্ত টান এবং তার জন্য কোটি কোটি ইউরো ব্যয় করা যে অনৈতিক ও অন্যায়, বাকি সবাই সে রকমটা মনে করলেও বিশপ মহাশয় তা মেনে নিতে পারছিলেন না৷ অথচ এমন একটা সময় তাঁকে ঘিরে কেলেঙ্কারি শুরু হলো, যখন একেবারে বিপরীত চরিত্রের একটি মানুষ ভ্যাটিকানের শীর্ষে এসে বিলাসিতা বর্জনের একের পর এক দৃষ্টান্ত দেখিয়ে চলেছেন৷ পোপ ফ্রান্সিস-এর সহজ সরল জীবনযাত্রায় মুগ্ধ হচ্ছেন গোটা বিশ্বের মানুষ৷ সেই একই ধর্মীয় সংগঠনে এমন বিশপের জায়গা থাকে কী করে!

এই অবস্থায় পোপ স্বয়ং বিশপ ফান এলস্ট-কে পদত্যাগ করতে উদ্বুদ্ধ করেন৷ এর দু'দিন পর প্রাক্তন বিশপ বলেন, ‘‘আজ যা জানি, তা থেকে বুঝতে পারছি যে আমি ভুল করেছি৷ কখনোই ইচ্ছাকৃতভাবে এ কাজ করি নি বটে, তবে আমি এর মাধ্যমে আস্থা ভেঙে দিয়েছি৷'' তবে ভাঙলেও মচকাতে রাজি নন তিনি৷ গোটা ঘটনার সম্পূর্ণ নৈতিক দায়িত্ব ও দোষ স্বীকার করার বদলে তাঁর বিলাসবহুল প্রাসাদের মাত্রাতিরিক্ত ব্যয়ভারের জন্য তিনি অন্য এক কর্মকর্তাকে দায়ী করেছেন৷ সেই সঙ্গে বিশেষজ্ঞ কমিশনের রিপোর্টেও ভুল রয়েছে বলে দাবি করছেন৷

এবার নতুন করে জীবন শুরু করতে চান টেবার্টস ফান এলস্ট৷ লিমবুর্গ ডায়োসিজ-ও অতীতের কলঙ্ক ঝেড়ে ফেলে নতুন করে জেগে উঠতে পারবে, এমনটাই ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি৷ বিরল এই প্রাক্তন বিশপের জন্য ভ্যাটিকান নতুন দায়িত্ব খুঁজে বার করেছে৷ তবে শুক্রবার পোপের সঙ্গে তাঁর সংক্ষিপ্ত একান্ত আলোচনার বিষয়ে কিছু জানানো হয় নি৷

এসবি / জেডএইচ (ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন