1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ক্লিন্টনের অভিষেকের উপর মস্কোর কালো ছায়া

প্রত্যাশিতভাবেই ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর মনোনয়ন পেলেন হিলারি ক্লিন্টন৷ কিন্তু নিজের ই-মেল কেলেঙ্কারির পর দলের অনেক ই-মেল হ্যাক হওয়ার ফলে চাপের মুখে পড়েছেন তিনি৷ অভিযোগের তীর রাশিয়ার দিকে৷

এই প্রথম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ২৪০ বছরের ইতিহাসে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কোনো নারী প্রার্থী মনোনয়ন পেলেন৷ নির্বাচনে জয় হলে ক্লিন্টনই হবেন অ্যামেরিকার প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট৷ সে ক্ষেত্রে ক্লিন্টনরাই হবেন প্রথম দম্পতি, যাঁরা দু'জনেই দেশের শীর্ষ পদে আসীন হয়েছেন৷ ২০০৮ সালে মনোনয়নের দৌড়ে বারাক ওবামা তাঁকে পেছনে ফেলে দিয়েছিলেন৷ অবশেষে দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় ক্লিন্টন সফল হলেন৷ মঙ্গলবার রাতে ফিলাডেলফিয়া শহরে এই ঘোষণার পর হিলারির স্বামী ও প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টন নিজের স্ত্রীর ভূয়শী প্রশংসা করে ভাষণ দেন৷

আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনীত হলেও হিলারি ক্লিন্টন কিছুতেই তাঁর ই-মেল কেলেঙ্কারির থাবা থেকে মুক্ত হতে পারছেন না৷ জনমত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, জনসংখ্যার একটা উল্লেখযোগ্য অংশ এই কারণে তাঁর প্রতি আস্থা দেখাতে পারছেন না৷ তার উপর সম্প্রতি ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রায় ১৯,০০০ ই-মেল হ্যাক করা হয়েছে৷

তা থেকে স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে, যে দলের জাতীয় কমিটি শুরু থেকেই বার্নি সান্ডার্সের বদলে ক্লিন্টনের প্রতি পক্ষপাত দেখিয়ে এসেছে৷ এই ঘটনার জের ধরে কমিটির সভাপতিকে পদত্যাগ করতে হয়েছে৷ সান্ডার্স নিজে ক্লিন্টনের প্রতি সমর্থন দেখালেও তাঁর অনেক অনুগামী এখনো প্রতিবাদ বিক্ষোভ দেখিয়ে চলেছে৷

রাশিয়া এই সব দলীয় ই-মেল ফাঁস করেছে বলে প্রথমেই সন্দেহ হয়েছিল৷ এবার খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা স্বীকার করেছেন, এই সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না৷ এনবিসি নিউজ-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, সবকিছুই সম্ভব৷ এমনকি মস্কো অ্যামেরিকার নির্বাচনকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে, সেই ইঙ্গিতও দিয়েছেন তিনি৷ মস্কো রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকেই আগামী মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেখতে চায়, এমন লক্ষণ বার বার দেখা যাচ্ছে৷ ওবামা বলেন, ট্রাম্প নিজে বার বার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের প্রশংসা করে চলেছেন৷ তাছাড়া তিনি বলেন, ন্যাটো বাল্টিক অঞ্চলের দেশগুলির সুরক্ষা নিয়ে তেমন মাথা ঘামাবে না৷ এই মন্তব্যের ফলেও রাশিয়ার সংবাদমাধ্যমে ট্রাম্প আরও প্রশংসিত হচ্ছেন৷

রাশিয়া অবশ্য এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷ প্রেসিডেন্ট পুটিনের এক মুখপাত্র এই অভিযোগকে ‘অ্যাবসার্ড' বা উদ্ভট বলে বর্ণনা করেন৷ ট্রাম্প নিজেও এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন৷ এমনকি উইকিসিক্স-এর প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান আসাঞ্জ বলেছেন, এই অভিযোগের সপক্ষে কোনো প্রমাণ নেই৷ এমনকি আরও ই-মেল ফাঁস হতে চলেছে বলে তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন৷

এসবি/ডিজি (রয়টার্স, ডিপিএ, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়