1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ক্যোলারের ভারত সফর সমাপ্ত

জার্মান প্রেসিডেন্ট হর্স্ট ক্যোলার তাঁর এক সপ্তাহ ব্যাপী ভারত সফর সমাপ্ত করেছেন৷ ভারতে ব্যাপক দারিদ্র্যকে তিনি সামাজিক বিস্ফোরক বলে অভিহিত করেন, এবং ভারতের প্রতি বিশ্ব আর্থিক বাজারে অংশীদার হবার আহ্বান জানান৷

default

শনিবার মহারাষ্ট্রের দারেওয়াডি গ্রামে গ্রামবাসীদের সঙ্গে সস্ত্রীক প্রেসিডেন্ট ক্যোলার

বিশ্বব্যাপী আর্থিক সঙ্কট ভারতের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিকে বিশেষ রুখতে পারেনি৷ তার কারণ, ভারত তার আর্থিক বাজার এখনও পুরোপুরি উন্মুক্ত করেনি, বলে ক্যোলার গত শুক্রবার মুম্বই'তে ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনার পর মন্তব্য করেন৷ ক্যোলার এবং রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কর্তাব্যক্তিরা এ-বিষয়ে একমত যে, এই সঙ্কট থেকে শিক্ষা নিতে হবে৷

অপরদিকে দরিদ্র মানুষদেরও যে দেশটির বিপুল অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি থেকে লাভবান হওয়া উচিৎ, ভারতীয়দের তা অজ্ঞাত নয়, বলে ক্যোলারের ধারণা৷ ভারতে ব্যাপক দারিদ্র্যে এক সামাজিক বিস্ফোরক লুকিয়ে রয়েছে৷ ‘‘আমরা ইতিহাসের বিচারে ব্যর্থ হব,'' যদি না এই মানুষদের তাদের দারিদ্র্য থেকে মুক্ত করা যায়, বলেন ক্যোলার৷

যৌথ স্বার্থ

ক্যোলার ভারতের প্রতি বিশ্বব্যাপী আর্থিক বাজারের অংশীদার হওয়ার পরোক্ষ আহ্বান জানান৷ তবে এখনও উন্নয়নের পর্যায়ে অবস্থানরত একটি দেশকে ভাবতে হবে যে, বর্ধিত পুঁজি দীর্ঘমেয়াদী ভাবে বিনিয়োগ করা হচ্ছে, না স্বল্প মেয়াদের মুনাফার জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে৷ শুক্রবার ভারত-জার্মান বাণিজ্যকক্ষের সামনে প্রদত্ত ভাষণে ক্যোলার ভারতের প্রতি আন্তর্জাতিক বাজারের জন্য আরো বেশী উন্মুক্ত হওয়ার আহ্বান জানান৷ ভারত সর্বাধুনিক সঙ্কটে তার অভিজ্ঞতার কথা জি-টোয়েন্টি'তেও জানাতে পারে, বলে ক্যোলার মন্তব্য করেন৷ এই পন্থায় ভারত ‘‘আন্তর্জাতিক আর্থিক বাজারের জন্য নিয়মাবলী প্রভাবান্বিত করতে পারে৷ আর্থিক বাজারগুলির আরো কড়া নিয়ন্ত্রণে এবং তত্ত্বাবধানে আমাদের যৌথ স্বার্থ আছে,'' বলে ক্যোলারের ধারণা৷

সমন্বয়কৃত সাহায্য

অপরদিকে জার্মান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় রাষ্ট্রসচিব গুড্রুন কপ বলেছেন যে, জার্মান সরকার ভারতের প্রতি উন্নয়ন সাহায্যকে আরো একত্রিত এবং সমন্বয়কৃত করতে চান৷ কারণ এই উন্নয়ন সাহায্যে শুধুমাত্র জার্মানিতেই সাতটি মন্ত্রণালয় এবং একাধিক ফেডারাল রাজ্য সংশ্লিষ্ট৷ জার্মানি জ্বালানি শক্তি, জ্বালানি সাশ্রয়, নবায়নযোগ্য জ্বালানি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং খাদ্য ক্ষেত্রগুলিতে সক্রিয়, বলে কপ মুম্বই'তে সাংবাদিকদের জানান৷ ভারত জার্মানি থেকে মোট ৩৬০ মিলিয়ন ইউরো উন্নয়ন সাহায্য পেয়ে থাকে৷ জার্মান উন্নয়ন সাহায্যের তালিকায় আফ্রিকা এবং ভারত অন্যতম, বলে কপ জানান৷ ভারতে আলাপ-আলোচনায় তাঁর মনে হয়েছে যে, ভারত আরো বেশী মনোযোগ চায়৷ অপরদিকে জার্মানির কামনা যে, ভারত তার নিজের তাৎপর্য উপলব্ধি করে, আন্তর্জাতিক আলাপ-আলোচনায় আরো বেশী ভাবে এবং গঠনমূলকভাবে অংশ নিক - বলেন কপ৷

প্রতিবেদক: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

সংশ্লিষ্ট বিষয়