1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘কোলন-কাণ্ডে জড়িতদের অধিকাংশই শরণার্থী'

কোলনে যৌননিপীড়নের ‘ঘটনায় জড়িতদের মধ্যে মাত্র তিনজন শরণার্থী' বলে যে খবর প্রচার করা হয়েছে তাকে ‘বাজেকথা' বলে উড়িয়ে এক আইনজীবী জানিয়েছেন, সন্দেহভাজনদের মধ্যে মাত্র তিনজন জার্মান, বাকি সবাই শরণার্থী৷

এ সপ্তাহে কোলনের এক আইনজীবীর বরাত দিয়ে কয়েকটি বিদেশি সংবাদমাধ্যম জানায়, গত ৩১ ডিসেম্বর উৎসবের আনন্দকে ম্লান করে দেয়া যে ঘটনা ঘটেছিল তার সঙ্গে জড়িতদের অধিকাংশই নাকি শরণার্থী নয়, মাত্র তিনজন শরণার্থী৷ সেই খবরে অবশ্য এ তথ্যও জানানো হয়, সন্দেহভাজনদের অধিকাংশই সাম্প্রতিক সময়ে মধ্যপ্রাচ্য বা আফ্রিকা থেকে আসা অভিবাসনপ্রত্যাশী না হলেও তারা সেইসব অঞ্চলেরই মানুষ৷ তবে তারা অনেক আগে থেকেই জার্মানিতে রাজনৈতিক কারণে আশ্রিত বা শরণার্থী হিসেবেই বসবাস করছেন৷

তবে বার্তা সংস্থা এপিকে কোলনের আলোচিত যৌন নিপীড়ন মামলার আইনজীবী উলরিশ ব্রেমার জানিয়েছেন, সন্দেহভাজনদের অধিকাংশ শরণার্থী নয় – এই তথ্য বানোয়াট এবং এ সংক্রান্ত খবরটি নিছক ‘বাজেকথা'৷

গত ৩১ ডিসেম্বর রাতের যৌন নিপীড়ন, ছিনতাই ও ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত বলে যাদের সন্দেহ করা হচ্ছে তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে গিয়ে তিনি আরো বলেন, এ পর্যন্ত মোট ৭৩ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে, তাদের মধ্যে ৩০ জন মরোক্কা থেকে, ২৭ জন আলজেরিয়া থেকে, ৪ জন ইরাক, ৩ জন সিরিয়া, ৩ জন তিউনিসিয়া থেকে আর একজন করে আছেন যারা লিবিয়া, ইরান এবং মন্টেনেগ্রো থেকে এসেছেন জার্মানিতে৷ বাকি ৩ জন জার্মান৷

মামলার সংখ্যা এবং ধরণ সম্পর্কেও জানিয়েছেন উলরিশ ব্রেমার৷ তাঁর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত মোট ১ হাজার ৭৫টি মামলা হয়েছে, যার মধ্যে ৪৬৭টি যৌন নিপীড়ন, নির্যাতন বা ধর্ষণের অভিযোগসংশ্লিষ্ট৷

আইনজীবী উলরিশ ব্রেমার আরো জানান, সন্দেহভাজন হিসেবে চিহ্নিত ৭৩ জনের মধ্যে ১২ জনের বিরুদ্ধে সরাসরি যৌন নিপীড়নের অভিযোগ রয়েছে৷ তবে ওই ১২ জনের মধ্যে মাত্র একজন এই মুহূর্তে কারাগারে৷ কারাবন্দি ব্যক্তি ২০১৫ সালের নভেম্বরে মরক্কো থেকে জার্মানিতে এসে ‘রাজনৈতিক আশ্রয়' চেয়েছেন৷

এসিবি/ডিজি (এপি)

আপনার কী মনে হয়? কোলন-কাণ্ডে আসলে কারা জড়িত? জানান আপনার মতামত৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন