1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘কেন কোরবানিকে পশুহত্যা দিবস বলা যাবে না?’

বুধবার কোরবানির ঈদ৷ চারদিকে সাজ সাজ রব৷ চলছে গরু, ছাগল কেনা৷ কেউ কেউ যাচ্ছেন দেশের বাড়ি আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে ঈদ করতে৷ কিন্তু এরপরও থেমে নেই ব্লগ আর ফেসুবকের ব্যবহার৷ থেমে নেই মন্তব্য!

বরং ঈদ উপলক্ষ্যে যেন সবাই সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন৷ কেউবা কেনা গরুর ছবি ফেসবুকে পোস্ট দিচ্ছেন৷ কেউ জানাচ্ছেন গরুর হাটের হালচাল৷ কেউ স্মৃতিচারণ করছেন ছোটবেলার ঈদের কথা৷ যেমন আরিফ জেবতিক ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘কিশোর বেলা বিভিন্ন আত্মীয় স্বজনের বাসায় গিয়া মাংসের প্যাকেট দিয়া আসা লাগত৷ তো রিক্সাভাড়া চাইলে বাসা থেকে বলত, ‘এইটুক দূরত্ব, এইটুকু জায়গা তো পায়ে হেটেই যাওয়া যায়৷' সেই স্মৃতি মনে পড়লে এখনও হাঁটুতে টনটন ব্যাথা করে৷''

সামহয়্যার ইন ব্লগে একজন ব্লগার ঈদ ও পূজা সংক্রান্ত পোস্টগুলোর একটি সংগ্রহ তৈরি করেছেন৷ ব্লগ কর্তৃপক্ষ সেই পোস্টটি প্রথম পেজে আলাদাভাবে উপস্থাপন করেছেন যেন ব্লগ সাইটটি খুললেই সেটা প্রথমে চোখে পড়ে৷ এই পোস্টে গিয়ে দেখা গেলো ঈদ নিয়ে লেখার বাহার৷ সেলিম আনোয়ারের পোস্টের শিরোনাম, ‘‘কোরবানির গরু ক্যাওয়াস ব্লগারস স্যাটায়ার৷'' নাজিম-উদ-দৌলা লিখেছেন ঈদ স্পেশাল রম্যগল্প, ‘‘জলিলের বাস ভ্রমণ৷'' ‘বাঙালি মুসলমানের ঈদ উৎসব ও কিছু কথা' নামে পোস্ট দিয়েছেন হাসান ইকবাল৷ একজন ব্লগার কোরবানির কিছু জরুরি মাসয়ালাও পোস্ট দিয়েছেন৷

আমারব্লগে মোহন লাল ঈদের ছুটিতে রাঙামাটি ঘুরে আসার পরামর্শ দিয়ে একটি পোস্ট দিয়েছেন৷ একই ব্লগে হাসিব হায়াতের লেখা পোস্টের শিরোনাম, ‘‘এটা কেমন ইসলামিক দেশ যারা বছর বছর দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়? / কেন কোরবানিকে পশুহত্যা দিবস বলা যাবেনা?'' তিনি লিখেছেন, ‘‘শুধু আমার একটাই কথা, বছর বছর কোরবানি যদি হয়েই থাকে, তাহলে বাঙালি মুসলিমদের ভেতর থেকে অহংকার, হিংসা, লোভ, ক্রোধ, বিদ্বেষ, লোক দেখানো কার্যকলাপ, স্বার্থপরতা, কৃপণতা, গীবত এসব যায়না কেন? কেন আমরা বছর বছর এই গ্রহের সবচেয়ে দুর্নীতিবাজ দেশ হিসেবে পরিচিত হচ্ছি? কেন আমাদের মধ্যে এত দল, মত, ক্লেশ এবং বিভক্তি? যদি সত্যিই আমরা নবিজীর দেখানো কোরবানি করে থাকি, তাহলে তো এসব থাকার কথা নয়৷''

সংকলন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন