1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

কেনিয়ার হামলায় যুক্তরাষ্ট্র আর ব্রিটেনের নাগরিকও জড়িত

শনিবার নাইরোবির এক শপিং মল-এ জঙ্গি হামলায় ৬২ জন মারা যায়৷ ঘটনাস্থলে এখনো তল্লাশি চলছে৷ সরকার দাবি করেছে, পরিস্থিতি তাদের নিয়ন্ত্রণে৷ হামলায় যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রিটিশ নাগরিক অংশ নিয়েছে বলেও জানিয়েছে কেনিয়া সরকার৷

শনিবারের হামলার পর দু দিন পেরিয়ে গেলেও নাইরোবির ওয়েস্টগেট শপিং সেন্টার এখনো ঘিরে রেখেছে সেনাবাহিনী৷ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, তাঁর ধারণা ভেতরে এখনো হামলাকারী জঙ্গিরা আছে৷ সেনাবাহিনী এ সম্পর্কে নিশ্চিত নয়৷ এক সেনা সদস্য বলেছেন, ‘‘ভেতরে কেউ আছে কিনা এ ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত নই৷ আমরা এখনো প্রতিটি কক্ষে ঢুকে ঢুকে তল্লাশি চালাচ্ছি৷''

এ পর্যন্ত কজন জঙ্গি মারা গেছে এ নিয়ে বিভ্রান্তি রয়েছে৷ বিদেশিদের খুব পছন্দের শপিং মলটিতে যাঁরা আটকা পড়েছিলেন সোমবার তাঁদের বের করে আনা হয়৷ যাঁরা নিখোঁজ তাঁদের কী পরিণতি হয়েছে, সে সম্পর্কে সরকারের তরফ থেকে কিছু বলা হয়নি৷ সরকারের এক ঘোষণায় বলা হয়েছিল, এ পর্যন্ত তিনজন জঙ্গি নিহত হয়েছে৷ তবে এক টেলিভিশন চ্যানেল জানায়, ছয়জন জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে খবর পেয়েছে তারা৷

সোমালিয়া কেন্দ্রিক ইসলামি জঙ্গি সংগঠন আল শাবাব আগেই জানিয়েছিল, সোমালিয়া থেকে কেনিয়াকে সৈন্য প্রত্যাহারে বাধ্য করার জন্য শনিবার দুপুরে হামলাটি চালায় তারা৷ কেনিয়া সরকার অবশ্য জানিয়েছে আল শাবাবের দাবি মানা হবে না৷ সরকার আরো জানিয়েছে, ওয়েস্টগেট হামলায় যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রিটেনের নাগরিকও জড়িত৷ কেনিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমিনা মোহাম্মেদ যুক্তরাষ্ট্রের পিবিএস টেলিভিশন চ্যানেলকে বলেছেন, ‘‘দুই অথবা তিনজন অ্যামেরিকান তরুণ এবং ব্রিটেনের এক নারী এ হামলায় অংশ নিয়েছে৷ তরুণদের বয়স ১৮-১৯-এর মতো৷'' তাঁরা আরব অথবা সোমালি বংশোদ্ভুত বলেও জানিয়েছেন তিনি৷

এসিবি/এসবি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়