1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

কৃষিকাজে বিপ্লব আনতে পারে টেকসই উদ্ভিদ

ধারণা করা হচ্ছে, অদূর ভবিষ্যতে ইউরোপও গ্রীষ্মকালে খরার কবল থেকে রক্ষা পাবে না, চাষিদের জন্য যা ডেকে আনবে এক বিরাট বিপর্যয়৷

সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, তাপমাত্রা এক ডিগ্রি বাড়লে শস্যের ফলন ১০ শতাংশ কমে যায়৷ গম ও যব গাছ বীজ বেড়ে ওঠার সময় সবচেয়ে নাজুক থাকে৷ তাপ ও অতিরিক্ত শুকনো আবহাওয়ায় এইসব শস্যের উৎপাদন ৭০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যেতে পারে৷

জার্মানির গাটার্সলেবেন শহরের উদ্ভিদ গবেষণা ইন্সটিটিউটের বিজ্ঞানীরা বিশেষ ধরনের উদ্ভিদের খোঁজ করছেন, যেগুলি সামান্য পানিতেও টিকে থাকতে পারে, তাপ ও শুষ্কতা সত্ত্বেও যথেষ্ট শস্য উত্পাদন করতে পারে৷

গবেষণাগারে এক এক টবে একেক ধরনের যবের চারা বড় হচ্ছে৷ প্রথমে উদ্ভিদের চারাগুলি অল্প কয়েক ফোঁটা পানি পায়৷ তারপর একেবারেই পানি দেওয়া হয় না৷ কম্পিউটারের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হয় এই পানি সরবরাহ ব্যবস্থা৷ বিজ্ঞানীরা জানতে চান, কোন ধরনের যব এই অবস্থায়ও টিকে থাকে, কোন জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়া এর জন্য দায়ী৷ এর জন্য বিশেষজ্ঞরা স্থায়ী পরীক্ষা চালান, নানা তথ্য সংগ্রহ করেন৷

Dürre Malawi Nsanje Feldarbeit Bauern

খরার ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হন কৃষকরা

সালোকসংশ্লেষণ প্রক্রিয়া পানির সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ করে বলে গাছের পাতা বিজ্ঞানীদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ৷ গবেষকরা বার বার নমুনা নিয়ে সেগুলি তাড়াতাড়ি মাইনাস ১৯৬ ডিগ্রিতে জমাট করেন, যাতে তার মধ্যে কোনো পরিবর্তন না ঘটতে পারে৷ তারপর গবেষণাগারে জিন ও প্রোটিনের জটিল সম্পর্ক পরীক্ষা করা হয়৷

গাছের এই পাতার মধ্যেই হয়তো ভবিষ্যতের চাবিকাঠি লুকিয়ে আছে৷ শুকনো অবস্থায় উদ্ভিদের মধ্যে যে সব আণবিক প্রক্রিয়া ঘটে, তা ভালোভাবে বুঝতে চান উদ্ভিদ বিজ্ঞানী হার্ডি রলেচেক৷ তিনি বলেন, ‘‘আসল অসুবিধা হলো, বাস্তবে নানা রকমের জিন ও প্রোটিন রয়েছে৷ যার সংখ্যা কয়েক লক্ষেরও বেশি৷ এগুলি যে শুধু বিভিন্ন সময়ে সক্রিয় থাকে তাই নয়, একটির ওপর আরেকটির প্রতিক্রিয়াও কম নয়৷ বলা যায় এর কোনো সীমা নেই৷ আর এই সমস্ত প্রক্রিয়াটা বোঝাই আমাদের মতো গবেষণা প্রকল্পগুলির মূল লক্ষ্য৷''

এই গবেষণায় প্রচুর তথ্য উপাত্ত জমা হতে থাকে৷ শুধু বিশেষ ধরনের কম্পিউটার প্রোগ্রামের মাধ্যমেই এত তথ্যের বিশ্লেষণ করা সম্ভব৷ শুষ্ক পরিবেশের চাপ বুঝতে এবং আদর্শ জিন খুঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা৷ কিন্তু তাঁরা সেই উত্তর পাওয়ার আগেই হয়তো অনেক উদ্ভিদ বিলুপ্ত হয়ে যাবে৷

আরবি / এসবি

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়