1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

তুরস্ক

কুর্দ এলাকায় ‘গুরুতর’ নিপীড়ন চালিয়েছে তুরস্ক: জাতিসংঘ

জাতিসংঘ তুরস্কের প্রতি দেশের দক্ষিণ-পূর্ব এলাকায় এক পর্যায় হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করতে বলেছে৷ ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের পর যে নিরাপত্তা অভিযান চলে, তারই প্রেক্ষিতে জাতিসংঘের এই রিপোর্ট৷

জাতিসংঘের মানবাধিকার কার্যালয় গত শুক্রবার একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে, যাতে জঙ্গি কুর্দদের বিরুদ্ধে আংকারার সামরিক অভিযানে গুরুতর মানবাধিকার ভঙ্গের অভিযোগ করা হয়েছে৷

‘রিমোট মনিটরিং’ বা দূর থেকে পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে সৃষ্ট এই রিপোর্টে ‘‘ব্যাপক ধ্বংস, হত্যাকাণ্ড ও বিপুল সংখ্যক গুরুতর মানবাধিকার ভঙ্গের’’ ঘটনার দিকে নজর দেওয়া হয়েছে৷ এই সব ঘটনা ঘটে ২০১৫ সালের জুলাই থেকে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে৷ এই সব ঘটনার লক্ষ্য ছিল প্রায় ১,২০০ স্থানীয় বাসিন্দা ও ৮০০ নিরাপত্তা কর্মী৷

সরকারি সেনাবাহিনীর নিরাপত্তা অভিযানে প্রধানত কুর্দরাই বাস্তুচ্যুত হয়েছে, বলে জাতিসংঘের বিবরণে অভিযোগ করা হয়েছে৷ স্যাটেলাইট থেকে তোলা ছবিতে দেখা গেছে যে, সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলিতে ‘‘ভারী অস্ত্রশস্ত্র ব্যবহারের ফলে বাড়িঘর ব্যাপকভাবে ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে,’’ বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে৷ সিরিয়া সীমান্তের কাছে কুর্দ অধ্যুষিত সিজরে শহরের অধিবাসীরা ধ্বংসের পরিমাণকে ‘‘মহাপ্রলয়তুল্য’’ বলে বর্ণনা করেছেন৷

তদন্তের ডাক

জাতিসংঘের রিপোর্টে তুর্কি সরকারের প্রতি ঘটনাবলীর তদন্ত করে দেখতে বলা হয়েছে, যাতে ‘‘বেআইনি হত্যাকাণ্ডের আততায়ীদের আইনের মুখোমুখি করা যেতে পারে৷’’ এছাড়া ঐ রিপোর্টে ‘‘অঘোষিত, অনির্দিষ্ট চব্বিশ ঘণ্টার কারফিুউ’’-এর অন্ত ঘটানোর এবং ‘‘নিপীড়িত ও তাদের পরিবারবর্গকে কার্যকরি ক্ষতিপূরণ দানের’’ আহ্বান জানানো হয়েছে৷

জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান জাইদ রা'দ আল-হুসেইন বলেছেন, তিনি ‘‘এ বিষয়ে বিশেষভাবে চিন্তিত যে, শত শত সম্ভাব্য বেআইনি হত্যাকাণ্ডের কোনো বিশ্বাসযোগ্য তদন্ত করা হয়নি৷’’

এসি/ডিজি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন