1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

কী চমক দেখাবেন জয়?

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার কথা নাকচ করে দিলেও আওয়ামী লীগের প্রচার-প্রচারণায় সক্রিয় থাকছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়৷ তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, ৩ দিনে চমক দেখতে পাবেন৷

সজীব ওয়াজেদ জয় বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক মত বিনিময়ে বলেছেন, ‘‘মানুষ চমক পছন্দ করে৷ তবে ক্ষমতায় থেকে সাফল্য দেখানো সহজ নয়৷ তারপর এবারো চমক দেখান হবে৷ আগামী ৩ দিন একটু খেয়াল রাখুন চমক দেখতে পাবেন৷ বিরোধী দলের অপপ্রচার মোকাবিলা ও সরকারের সাফল্য তুলে ধরতে ভিন্ন ধরনের কৌশল নিয়েছি৷'' শুক্রবার তিনি বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তরুণসহ নানা পেশা ও শ্রেণির মানুষের সঙ্গে মত বিনিময় করেন৷ সেখানে তিনি গত ৫ বছরে সরকারের সাফল্য তুলে ধরে সরকারের অসমাপ্ত উন্নয়ন বিপ্লব সমাপ্ত করার সুযোগ চান৷ তিনি বিভিন্ন খাতের তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরে উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন৷ এরপর ‘রূপকল্প ২০২১' নিয়ে কথা বলেন৷

সরকারের এই উন্নয়ন প্রচারণা নানা ভাবে তুলে ধরা হচ্ছে৷ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকেও ব্যবহার করা হচ্ছে ব্যাপকভাবে৷ সেখানেও দেয়া হচ্ছে তুলনামূলক তথ্য-উপাত্ত৷

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ঘনিষ্ঠ দু'এক জনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তিনি বিরোধী দলের অপপ্রচার মোকাবিলা এবং সরকারের ইতিবাচক কাজ তুলে ধরতে প্রচারণায় আধুনিক সব মাধ্যম ব্যবহার করতে যাচ্ছেন৷ আর এই প্রচারণায় কোন ফাঁকা বুলি না দিয়ে তিনি ব্যবহার করছেন সঠিক তথ্য-উপাত্ত৷ এর বাইরে আর কী চমক হতে পারে, সে ব্যাপারে তাদের কোনো ধারণা নেই৷ বৃহস্পতিবারের মত বিনিময় সভায় উপস্থিত এক সাংবাদিক জানান, তাঁর মনে হয়েছে তিনি যে চমকের কথা বলেছেন, তা হয়তো এই প্রচার-প্রচারণার আধুনিক স্টাইল৷

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তরুণ অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘সজীব ওয়াজেদ জয়ের প্রচার-প্রচারণার স্টাইল আধুনিক ও ইতিবাচক৷ তিনি যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশুনা করেছেন৷ বারাক ওবামার নির্বাচনি প্রচারাভিযান দেখেছেন৷ তিনি ডিজটিাল বাংলাদেশের ধারণা দিয়েছেন৷ তাই আধুনিক কৌশল ব্যবহার করবেন, সেটাই স্বাভাবিক৷ তিনি যদি বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট, দেশের মানুষের মনের কথা বুঝে তা প্রচার-প্রচারণায় কাজে লাগতে পারেন, তাহলে তা আওয়ামী লীগের জন্য সুফল বয়ে আনতে পারে৷''

রোবায়েত ফেরদৌস আরও বলেন, ‘‘তবে কোনো চমক নয়, চমক দিয়ে কাজ হয়না৷ আওয়ামী লীগ তার শাসনামলে কী কাজ করেছে তা দেশের মানুষ জানে৷ আর সজীব ওয়াজেদ জয় একজন তরুণ৷ তিনি যদি গ্রহণযোগ্য কথা বলেন, তরুণরা তা নিশ্চয়ই গ্রহণ করবেন৷ তরুণ কেন, দেশের মানুষও তা গ্রহণ করবে৷ তাই চমক নয়, সত্যিকারের তথ্য উপাত্তই মানুষকে জানান দরকার৷ আর অপপ্রচারের জবাবও দিতে যৌক্তিকভাবে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়