1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

কি ঘটেছে নাইজেরিয়ার অপহৃত ছাত্রীদের ভাগ্যে?

নাইজেরিয়ায় এবার ইসলামি জঙ্গি দল বোকো হারাম ১২৯ জন স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ করেছে৷ তবে সেনাবাহিনীর দাবি, তাদের সবাইকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে৷ এরপরেও অধ্যক্ষ এবং এক সেনা সদস্যের কথায়, অত্যন্ত ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা৷

নাইজেরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সোমবার রাতে দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের রাজ্য বোর্নো-র চিবোক এলাকা থেকে ১২৯ জন ছাত্রীকে অপহরণ করেছিল বন্দুকধারীরা৷ রাজধানী আবুজায় বোকো হারামের বোমা হামলার কয়েক ঘণ্টা পরেই এই গণ অপহরণের ঘটনাটি ঘটে৷ ঐ হামলায় মারা যায় ৭৫ জন৷ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সেনা সদস্য সংবাদ সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন যে, এখনও অন্তত ১০০ জন জঙ্গিদের হাতে বন্দি রয়েছে৷

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় অবশ্য জানিয়েছে, ছাত্রীরা সবাই নিরাপদে আছে৷ তবে মেয়েদের না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তাদের বাবা-মা৷ এমনই একজন বাবা লাওয়ান জান্না বলেছেন, ‘‘সেনাবাহিনী মেয়েদের খুঁজে পেয়ে উদ্ধার করেছে এর সত্যতা ততক্ষণ স্বীকার করব না, যতক্ষণ তাদের নিজের চোখে দেখতে পাচ্ছি৷ তিনিসহ অন্য অভিভাবকদের অভিযোগ, সেনাবাহিনী তাদের মিথ্যা সান্ত্বনা দেয়ার চেষ্টা করছে৷ জান্না প্রশ্ন করেন ‘‘তারা বলছে, আমাদের মেয়েরা মুক্তি পেয়েছে, কিন্তু কোথায় তারা?''

Symbolbild - Verschleierte Frau in Nigeria

স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অবিরাম হামলা চালিয়ে যাচ্ছে বোকো হারাম

সোমবার রাতে অপহরণের আগে ঐ সরকারি গার্লস স্কুলের ভবনে আগুন লাগিয়ে গেটে পাহারা দেয়া নিরাপত্তারক্ষীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে বন্দুকধারীরা৷ সেখানেই দুই নিরাপত্তারক্ষী নিহত হয়৷ পালিয়ে আসা তিন ছাত্রী জানিয়েছে তাদের বোর্নো-র সাম্বিসা জঙ্গলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল৷ ঐ এলাকাটি বোকা হারামের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত৷ বোর্নো-র গভর্নর কাশিম সেট্টিমা বুধবার জানিয়েছিলেন, মাত্র ১৪ জন মেয়ে জঙ্গিদের হাত থেকে পালাতে পেরেছে৷

সেনাবাহিনীর তথ্য অস্বীকার বৃহস্পতিবার টেলিফোনে সংবাদ সংস্থা এপিকে স্কুলটির অধ্যক্ষ আসাবে কোয়ামবুরা বলেছেন যে, সব ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়নি৷ তিনি বলেন, ‘‘আমরা এখনো অপেক্ষা করছি এবং প্রার্থনা করছি যাতে তারা নিরাপদে ফিরে আসে৷ নিরাপত্তাকর্মীরা এখনো তাদের অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে৷ জঙ্গল তন্ন তন্ন করে খুঁজে দেখছে তারা৷''

তিনি এও জানান, ‘‘মঙ্গলবার ভোরে ১৪ জন ছাত্রী পালিয়ে এসেছে৷ কারণ তারা ট্রাক থেকে লাফিয়ে পড়েছিল৷''

বোকো হারাম বরাবরই পশ্চিমা শিক্ষার বিরুদ্ধে এবং এ কারণে ২০০৯ সাল থেকে স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অবিরাম হামলা চালিয়ে যাচ্ছে দলটি৷ তবে এতগুলো মেয়েকে অপহরণের ঘটনা এই প্রথম৷ এ বছরেই এ পর্যন্ত বোকো হারামের হাতে নিহত হয়েছে ১,৫০০ মানুষ৷ অথচ ২০১০ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত তাদের হামলায় নিহত হয়েছিল কমপক্ষে ৩,৬০০ জন৷

এপিবি/ডিজি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন