1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

কায়রোর তাহরির চত্বর এখন জনতার সমুদ্র

মিশরের রাজধানী কায়রোর তাহরির চত্বর এখন জনতার সাগরে পরিণত হয়েছে৷ ‘মার্চ অফ এ মিলিয়ন’ এর ডাকে সাড়া দিয়ে হাজার হাজার মানুষ এখন সেখানে জড়ো হয়েছেন৷

default

সর্বশেষ পরিস্থিতি

আন্দোলনের আজ অষ্টম দিন৷ বিক্ষোভ উপলক্ষ্যে এর আগে যত লোকের সমাগম হয়েছিল, আজ তার চেয়ে বেশি লোক জড়ো হয়েছে তাহরির চত্বরে৷ ছেলে-বুড়ো সবাই সেখানে রয়েছেন৷ তারা নাচছেন, গাইছেন আর মুবারক বিরোধী স্লোগান দিচ্ছেন৷ বলা যায়, এক রকম উৎসবের মধ্যেই রয়েছেন তারা৷ এরই মধ্যে এক সময় কিছু লোক রাস্তার আলোকদন্ড থেকে মুবারকের কুশপুত্তলিকা ঝুলিয়ে দিলে জনতার মধ্যে আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে৷ তবে শুধু কায়রোতেই নয়, আলেকজান্দ্রিয়াতেও এরকম মিছিলের জন্য হাজার হাজার মানুষ জড়ো হয়েছে৷ কারণ কায়রোতে জন সমাগম ঠেকাতে সরকার গতকাল রেল যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছিল৷ এছাড়া আজ সকাল থেকেই কায়রো ও আলেকজান্দ্রিয়ার মধ্যবর্তী সড়কে পাহারা বসিয়ে গাড়ি চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে৷

সেনাবাহিনীর ভূমিকা

সেনা সদস্যরা বিক্ষোভস্থলে রয়েছেন৷ কিন্তু তারা আগেই বলে দিয়েছেন যে, তারা গুলি চালাবেন না৷ তবে তারা তাহরির চত্বরে ঢোকার আগে সবার পরিচয়পত্র দেখে নিচ্ছেন৷ সেনাবাহিনীর এই সিদ্ধান্তকে মুবারকের জন্য একটা ধাক্কা বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা৷

আলোচনা

ভাইস-প্রেসিডেন্ট সুলাইমানের আলোচনার প্রস্তাবে বিরোধী নেতা এল বারাদেই বলেছেন, আলোচনা হতে পারে, তবে তার আগে মুবারককে সরতে হবে৷ এছাড়া আল-আরাবিয়া টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন মুবারকের উচিত শুক্রবারের আগেই চলে যাওয়া৷ কারণ তিনি বলছেন, বিক্ষোভকারীরা চায় এ সময়ের মধ্যেই মুবারক চলে যাক৷

নিহতের নতুন সংখ্যা

সংস্থার মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনার নাভি পিল্লাই বলছেন, এ পর্যন্ত প্রায় ৩০০-র মত লোক মারা গিয়ে থাকতে পারে৷ তিনি বলছেন, প্রতিদিনই লোক মারা যাচ্ছে৷ এছাড়া তিন হাজারেরও মত মানুষ আহত হয়েছে, বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন তিনি৷ তবে হতাহতের সংখ্যার বিষয়ে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায় নি বলেও ঐ বিবৃতিতে বলা হয়েছে৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন