1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘কালিমা লাগুক, তবু বাড়িয়ে দিও সাহায্যের হাত'

কথাটা কোনো প্রবাদবাক্য নয়, নয় কোনো মন্ত্রী-আমলা অথবা মুনি-ঋষির ভাষণ৷ কথাগুলো ‘সার্ফ এক্সেল'-এর একটা বিজ্ঞাপনের৷ এর মাধ্যমেই রমজান মাসে বাচ্চাদের পরোপকারিতা বা অপরকে সাহায্য করার শিক্ষা দিচ্ছে পাকিস্তান৷

রমজান উপলক্ষ্যে ভারত-বাংলাদেশ-পাকিস্তানের বহু বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানই প্রতিবছর বিজ্ঞাপন তৈরি করে থাকে, নানা আঙ্গিকের৷ তারই ধারাবাহিকতায় এই অভিনব বিজ্ঞাপনটি নিয়ে এসেছে জামা-কাপড় ধোয়ার গুঁড়োসাবান ‘সার্ফ এক্সেল'৷

ভিডিওটিতে ক্লিক করলেই বাচ্চা একটা ছেলের মুখ ভেসে ওঠে৷ ইফতারের সময়, তাই মায়ের কোল থেকে এক ছুটে ঘর থেকে বেরিয়ে যায় সে৷ বন্ধুদের সঙ্গে ইফতারের বাজারে ঘুরে বেড়ানোর মজাই যে আলাদা!

কিন্তু ঘর থেকে বের হতেই তার চোখ পড়ে এক বৃদ্ধ ফেরিওয়ালার দিকে৷ গরম গরম সামোসা, জিলিপি বিক্রি করছিলেন তিনি৷ কিন্তু হঠাতই ঠেলা গাড়িটা তাঁর আটকে যায় রাস্তার ফাটলে৷ এদিকে ইফতারের সময় চলে যাচ্ছে...৷ তাই আমাদের সেই ছোট্ট বন্ধু নিজের কুর্তার মধ্যে সামোসা ভরে নিয়ে সেগুলো বিক্রি করতে সাহায্য করে বৃদ্ধকে৷ কিন্তু বিক্রির শেষ পর্যায়ে এসে ছেলেটি দেখে যে, তার জামাটা নোংরা হয়ে গেছে৷ ঠিক সেই সময় তার মা চলে আসে৷ ছেলেটি ভয় পায়৷ ভাবে, মা যদি বকে? কিন্তু মা ছেলের এই কাজ দেখে মনে মনে খুশিই হন, হাসেন৷ তারপর বৃদ্ধ মানুষটাকে নিয়ে একসঙ্গে ইফতারও করেন৷ আর ছেলেকে বলেন, ‘কারো সাহায্য করা যে ইবাদত৷ তাই সাহায্য করতে গিয়ে যদি দাগ লেগে যায়, তাহলে দাগই ভালো৷'

হ্যাঁ, এটাই বিজ্ঞাপনটির মূল কথা৷ আসলে পরোপকার ও আত্মত্যাগের তাগিদ ইসলামেই রয়েছে৷ অবশ্য শুধু ইসলামেই নয়, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টধর্মেও আমরা অন্যকে উপকারের কথা পড়েছি, শুনেছি৷ স্বামী বিবেকানন্দও তো বলেছিলেন, ‘‘জীবে প্রেম করে যেই জন/সেই জন সেবিছে ঈশ্বর৷''

গত ১০ই জুন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ইউটিউব-এ এই ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়৷ আর প্রকাশিত হওয়ার মাত্র তিনদিনের মধ্যেই ‘ভাইরাল' হয়ে যায় ভিডিওটি৷ পরে ফেসবুকেও ‘পোস্ট' করা হয় এটি৷ পাকিস্তান তো বটেই, ইতিমধ্যে ভারত-বাংলাদেশের লক্ষ লক্ষ মানুষও ভিডিওটিতে ‘লাইক' দিয়েছেন৷ আপনিও দিয়েছেন তো?

ডিজি/এসবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন