1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

কামারুজ্জামানের রায়ে স্বস্তি, আছে সময় নিয়ে প্রশ্ন

যুদ্ধাপরাধী মোহাম্মদ কামারুজ্জামানের ফাঁসির রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ৷ সামাজিক মাধ্যমে এই রায়ের পক্ষে, বিপক্ষে চলছে আলোচনা৷

মো. ফজলে রাব্বী টুইটারে সংবাদ সংস্থা এএফপি'র এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ শেয়ার করেছেন৷

স্যাম জাহান লিখেছেন, ‘‘যুদ্ধাপরাধী কামারুজ্জামানের ফাঁসির রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন খারিজ করে দিয়েছে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ৷''

দেবজিৎ সিংহ সাত দিনের মধ্যে ফাঁসি কার্যকরের দাবি জানিয়েছেন৷

ফজলুল বারী ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘যুদ্ধাপরাধী কামারুজ্জামানের বিচার শেষ হওয়ায় ফাঁসি হচ্ছে জেনে শান্তি লাগলো৷ কারণ জামায়াতের যুদ্ধাপরাধী নেতাদের যাদের ব্যক্তিগতভাবে চিনতাম-জানতাম কামারুজ্জামান তাদের অন্যতম৷

তাদের একাত্তরের অপরাধ নিয়ে অনেকদিন সামনাসামনি আলাপ করেছি৷ এরা কোনোদিন বাংলাদেশের জন্মের বিরুদ্ধে তাদের সশস্ত্র যুদ্ধকে ভুল মনে করেনি৷ উল্টো বলতে চেয়েছে তাদের বিচারের সাহস-সামর্থ্য কারো নেই! শহীদ জননী জাহানারা ইমাম যখন সন্তান হত্যার বিচারের দাবিতে এদের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেন, এরা তাঁর বিরুদ্ধে ধৃষ্ট সব কটূক্তি করেছে৷''

এদিকে, বাংলাদেশের ইংরেজি দৈনিক নিউএজ এর সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান নিজের ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘এই সময় মো. কামারুজ্জামানের যুদ্ধাপরাধ মামলার রায় দিয়ে ঠিক করল বাংলাদেশ সরকার?'' তিনি এটিকে নির্বাচন পূর্ববর্তী রায় হিসেবে উল্লেখ করেছেন৷ লিখেছেন, ‘‘২০১৪ সালের জানুয়ারিতে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কয়েক সপ্তাহ আগে ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে কার্যকর করা হয়েছিল কাদের মোল্লার ফাঁসির রায়৷ আর এখন ঢাকা, চট্টগ্রাম মেয়র নির্বাচনের ঠিক আগে এমন একটি রায়..আরো হয়ত কিছু অপেক্ষা করছে৷''

সুরেশ সি ডেভিড বার্গম্যানের লেখা ব্লগ শেয়ার করে লিখেছেন, সবকিছু দেখে মনে হচ্ছে আজ রাতেই কামারুজ্জামানের ফাঁসি কার্যকর হবে৷

এই রায়ের বিরুদ্ধে টুইটারে লিখেছেন খালেদ সাইফুল্লাহ৷ লিখেছেন, কামারুজ্জামান অবিচারের শিকার৷ এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও প্রতিবেদন শেয়ার করেছেন তিনি৷

কামারুজ্জামান নাবিল লিখেছেন, ‘‘কামারুজ্জামানের রায়ের পর মঙ্গল ও বুধবার হরতাল ডেকেছে জামাত৷''

সংকলন: অমৃতা পারভেজ

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়