1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘কাপুরুষের কাছে মাথা নোয়াবার সুযোগ নেই'

ড. জাফর ইকবাল এবং ডা. ইমরান এইচ সরকারের জন্য হত্যার হুমকি নতুন কিছু নয়৷ যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরুর পর থেকে হুমকি দিয়ে ব্লগার হত্যা অনেকটা নিয়মই হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ এ পরিস্থিতিতে নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে কী ভাবছেন তাঁরা?

কয়েকদিন আগের একটি খবর অনেকেরই নজর কেড়েছে৷ বাংলাদেশের কয়েকটি দৈনিক পত্রিকাতেই এসেছে খবরটি৷ খবরে বলা হয়, মৌলবাদি কয়েকটি সংগঠন ব্যাংক ডাকাতির টাকা খরচ করে স্বনামধন্য লেখক ও শিক্ষক ড. জাফর ইকবাল এবং ব্লগার ডা. ইমরান এইচ সরকারকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল৷

এর আগে দেশের দশ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে হত্যার হুমকি দিয়ে ‘আল-কায়েদা এ. বাংলা টিম ১৩' যে চিঠি পাঠিয়েছিল, সেই চিঠিতেও ছিল এই দু'জনের নাম৷

তা লাগাতার হত্যার হুমকি এবং হত্যা পরিকল্পনার খবরে তাঁরা কি বিচলিত? চিন্তিত?

ইমরান এইচ সরকারের ফেসবুক অ্যাকাউন্টেই রয়েছে এর জবাব৷

Imran H Sarker Blogger aus Bangladesch

ডা. ইমরান এইচ সরকার

দেশের বিজ্ঞানমনস্ক, আধুনিক অনেক মানুষের মতো গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারের কাছেও অধ্যাপক জাফর ইকবাল শ্রদ্ধার পাত্র৷ তাই তাঁর ফেসবুকে কভার ফটোও জাফর ইকবালের৷ সেই ছবির সঙ্গে শোভা পাচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় বিজ্ঞান লেখকের একটি কথা, ‘‘একজন বিখ্যাত মানুষ দিয়ে কী হয়? কিছুই হয় না৷ কিন্তু একজন খাঁটি মানুষ একটা দেশ বদলে দিতে পারে৷''

আর হত্যার হুমকি সম্পর্কে ব্লগার ইমরান এইচ সরকার লিখেছেন, ‘‘বৈষম্যমুক্ত, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার শপথটাই আমাদের সকল সাহস ও শক্তির উৎস৷ আমাদের ভয় দেখিয়ে কোনো লাভ নেই৷ অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই আমৃত্যু জারি থাকবে৷ জয় বাংলা বলে আপনিও শামিল হোন এ লড়াইয়ে...৷''

এই মন্তব্যের নীচে তাঁর এক ফেসবুক বন্ধু লিখেছেন, ‘‘সাথে আছি এবং দেশ-জাতির পক্ষে আছি৷ চালিয়ে যাও৷ মানুষ মাত্রই মরণশীল, তাই অপশক্তির কাছে-কাপুরুষের কাছে মাথা নোয়াবার কোনো সুযোগ নেই৷ জীবনও একটাই এবং দেশও একটাই, প্রাণের বাংলাদেশ৷''

হত্যার হুমকি সম্পর্কে ড. জাফর ইকবালের বক্তব্যও সবারই জানা৷ আল-কায়েদা এ আনসারুল্লাহ বাংলা টিম-১৩-র নামে পাঠানো হত্যার হুমকি সম্বলিত সেই চিঠির পরই সিলেট শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বলেছিলেন, ‘‘আমাকে দেওয়া হুমকি নিয়ে আমি উদ্বিগ্ন নই৷ বরং নিরাপত্তাহীনভাবে বসবাস করা ব্লগারদের নিয়েই বেশি উদ্বিগ্ন৷''

তিনি আরো বলেছিলেন, ‘‘‘যে ৮৪ জন ব্লগারের নামের তালিকা করা হয়েছে এবং সেখান থেকে একজন একজন করে খুন করা হচ্ছে, আমি তাঁদের নিয়ে বরং উদ্বিগ্ন৷ আমি এখানে সিকিউরিটির মধ্যেই আছি, গত কদিন পুলিশও আমাকে সিকিউরিটি দিচ্ছে৷ কিন্তু যে ৮৪ জন ব্লগার আছে তাদের কিন্তু কেউ প্রটেকশন দেয় না, তারা কিন্তু খুব বিপদে আছে৷'' তখনো ব্লগারদের নিরাপত্তায় সরকার কার্যকর কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায় তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন৷ পুলিশের নিষ্ক্রিয়তার বিষয়টি তুলে ধরতে গিয়ে জাফর ইকবাল বলেছিলেন, ‘‘জঙ্গিরা কিন্তু প্রকাশ্যেই হত্যা করছে৷ হত্যার পর নিহত ব্লগারদের বন্ধুদের ফোন করেও হুমকি দিচ্ছে৷ কিন্তু পুলিশ খুব কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না৷''

বাস্তবতা হলো, গত দু'সপ্তাহেও সরকারের ভূমিকায় কোনো পরিবর্তন আসেনি৷

সংকলন: আশীষ চক্রবর্ত্তী

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়