1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় দ্রুত কার্যকর হচ্ছে

জামায়াত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে দেয়া ফাঁসির পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়েছে৷ এই রায় দ্রতই কার্যকর করা হবে৷ তবে কাদের মোল্লার আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক বলেন, তারা এ রায়ের রিভিউ আবেদন করবেন৷

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লাকে গত ৫ই ফেব্রুয়রি প্রথমে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয় ট্রাইব্যুনাল৷ এরপর এই রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র এবং আসামি উভয়পক্ষ আপিল করে৷ গত ১৭ই সেপ্টেম্বর আপিল বিভাগের রায়ে কাদের মোল্লাকে ফাঁসির দণ্ড দেয়া হয়৷ সেই ৯৭০ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ রায় বৃহস্পতিবার প্রকাশ করা হয়েছে৷

Bangladesen demonstrieren Solidarität mit Shahbag in Stuttgart

ফেব্রুয়ারি মাসে কাদের মোল্লার যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায়কে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠে গণজাগারণ মঞ্

ফেব্রুয়ারি মাসে কাদের মোল্লার যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায়কে কেন্দ্র করেই গড়ে ওঠে গণজাগারণ মঞ্চ৷ তাদের আন্দোলনের মুখেই আন্তর্জাতিক মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইন সংশোধন করে রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের সুযোগ দেয়৷ এর আগে শুধুমাত্র আসামিপক্ষের আপিলের সুযোগ ছিল৷

পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম জানান, এখন নিয়ম অনুযায়ী আপিল বিভাগ থেকে রায়টি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের কাছে যাবে৷ সেখান থেকে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে রায়টি পাঠানো হবে কারাগারে৷ এরপরই কারা-কর্তৃপক্ষ রায়টি কার্যকরের ব্যবস্থা নেবে৷

তিনি বলেন, কারাগারে রায়টি যাওয়ার পর কাদের মোল্লা কারা-কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইতে পারেন৷ তিনি যদি এ আবেদন জানান, তাহলে কয়েকটি দিন সময় লাগলে পারে৷ তবে দ্রুততম সময়ের মধ্যেই কাদের মোল্লার ফাঁসির আদেশ কার্যকর হবে৷ আইন প্রতিমন্ত্রী বলেন, আপিল বিভাগে কাদের মোল্লার ফাঁসির দণ্ড হয়েছে৷ তাই এখানে আপিলের কোনো সুযোগ নেই৷ নেই রিভিউ আবেদনের সুযোগও৷

তবে কাদের মোল্লার আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়েছে৷ রায়ের কপি পাওয়ার পর, তারা তা রিভিউয়ের আবেদন করবেন৷ তিনি বলেন, রিভিউ পিটিশনের সুযোগ সাংবিধানিক অধিকার৷ এই অধিকার অন্য কোনো আইন বলে কেড়ে নেয়া যায় না৷ আর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইনে বলা নেই যে, মৃত্যুদণ্ড কিভাবে কার্যকর করা হবে৷ তাই এক্ষেত্রে, জেলকোড অনুসরণ করতে হবে৷ আর জেলকোড অনুযায়ী রায়ের কপি পাওয়ার পর ২১ দিনের আগে এই রায় কার্যকর করা যাবে না৷

ওদিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে যে, পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর কারাগারে নিরাপত্তাসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা এবং স্পর্শকাতর জায়গার নিরপত্তা বাড়ানো হয়েছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়