1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

কাতারে আজ শুরু হচ্ছে এশিয়ান কাপ

যেহেতু কাতার ২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ অনুষ্ঠানের দায়িত্ব পেয়েছে, সেজন্য এবারের এশিয়ান কাপের উপর নজর সারা বিশ্বের৷

Sport, Football, Qatar, Asian, Cup, আজ, এশিয়ান কাপ, ফুটবল, বিশ্বকাপ, India, Asia,

আজ শুরু হচ্ছে এশিয়ান কাপ

ডয়চে ভেলে'র হয়ে দোহা গিয়ে এশিয়ান কাপের খবরাখবর নিচ্ছেন এবং দিচ্ছেন অরুণাভ চৌধুরী৷ গভীর রাতে হোটেলের রুমে তাঁকে ঘুম থেকে তুলে প্রশ্ন: কাতারের প্রস্তুতি এবং আবহাওয়া কেমন? জানালেন, ‘‘প্রথম যখন আমি দোহাতে নামলাম, তখন দেখলাম যে, বিমানবন্দরটা ততো বড় না৷ তবে যা দরকারি তার সব কিছুই আছে৷ এশিয়ান কাপ ডেস্ক আছে৷ আমার আধ ঘণ্টা পরে ভারতীয় জাতীয় দল এসে পৌঁছলো৷ তাদের বাস একদম সামনেই দাঁড়িয়ে ছিল৷ সারা শহরে প্ল্যাকার্ড সাজানো এএফসি কাপের৷ পতাকা দিয়ে একেবারে মোড়ানো শহরের চারিদিক৷ বেশ সুন্দর৷ আর আবহাওয়াও চমৎকার৷ ২২-২৩ ডিগ্রি তাপমাত্রা৷ শীতকালে আর কি চাই আমরা?''

ভারতীয় দলের হালচাল সম্পর্কে অরুণাভ বললেন: ‘‘গতকাল ভারতীয় দল এবং তাদের কোচ বব হাউটন'এর সাথে দেখা হয়েছে৷ কথাও হয়েছে৷ তবে তারা সবাই চিন্তিত কারণ তাদের তারকা খেলোয়াড় বাইচুং ভুটিয়া হয়তো বা পুরো টুর্নামেন্টেই খেলতে পারবে না৷ হয়তো তাকে শেষ মুহূর্তে বাদ দিতে হবে৷ তবে দেখা যাক, অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচ আছে সোমবার৷ এখন ভারত কী করতে পারে, তা দেখার অপেক্ষায় আছে সবাই৷''

Fußball, Asien-Cup in Kuala Lumpur, Irak gewinnt gegen Südkorea

ফাইল ছবি

এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের সম্মেলন সম্পর্কে অরুণাভ'র বিবরণ: ‘‘সবচেয়ে বড় ঘটনা হলো নির্বাচনে জর্ডানের প্রিন্স আলি দক্ষিণ কোরিয়ার চুং'কে হারিয়েছেন যিনি অনেক বছর ধরেই এএফসি এবং ফিফা নির্বাহী পরিষদে ছিলেন৷ এখানে একটি রাজনৈতিক বিষয় আছে ফিফা প্রধান সেপ ব্লাটার এবং এএফসি প্রধান মোহাম্মদ বিন হাম্মামের মধ্যে৷ আর দক্ষিণ এশিয়ার জন্য ভালো খবর হলো যে, পাঁচজন দক্ষিণ এশিয়া থেকে বিজয়ী হলো৷ একদিকে শ্রীলঙ্কার মনিলাল ফের্নান্ডো ফিফা নির্বাহী পরিষদে ঢুকতে পারলো৷ অন্য তিন জনের একজন বাংলাদেশ, একজন ভারত এবং একজন নেপাল থেকে এএফসির নির্বাহী পরিষদে ঢুকল৷ আরো একজন ঢুকেছে ফিফার নীতি-নির্ধারণী পরিষদে৷ ফলে দক্ষিণ এশিয়ার জন্য এটা একটা বড় আনন্দের দিন৷''

প্রতিবেদন: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: হোসাইন আব্দুল হাই