1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

কাতারের নাগরিকত্বের প্রস্তাব পেলেন শিল্পী ফিদা হুসেন

হিন্দু মৌলবাদীদের হিটলিস্টে থাকা ভারতের নামজাদা চিত্রী এম এফ হুসেনকে নাগরিকত্বের প্রস্তাব দিল কাতার৷ ভারত সরকার তাঁকে নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি দিলেও স্বদেশে নিরাপদ বোধ করছেন না হুসেন৷

default

মকবুল ফিদা হুসেনের আঁকা রাগমালা সিরিজের একটি ছবি লন্ডনের ক্রিস্টিজ-এর অকশনে

চুরানব্বই বছর বয়স এখন তাঁর৷ তিনি মকবুল ফিদা হুসেন৷ ভারতের প্রথম সারির শিল্পী এবং সারা বিশ্বে তিনি পরিচিত একজন ফ্রি স্টাইল পেইন্টার বা চিত্রী হিসেবেই৷ হুসেনকে বলা হয়ে থাকে ভারতের পিকাসো৷ বিতর্ক প্রায় সারা জীবনই তাঁর সঙ্গে থেকেছে৷ কিন্তু নয়ের দশকের গোড়ার দিকে হুসেনের আঁকা কিছু হিন্দু দেবদেবীর নগ্ন চিত্র বেশ বড়সড়ো বিতর্ক তৈরি করেছিল৷ সে সময়েই হিন্দু মৌলবাদী সংগঠনগুলি তাঁর বিরুদ্ধে ক্রমশ সোচ্চার হয়ে ওঠে৷ অভিযোগ ছিল, ধর্মে মুসলমান হুসেন হিন্দুদের ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত করছেন এইসব ছবি এঁকে৷ এরপরেই তাঁকে খতম করার ফতোয়া জারি করে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ সহ কয়েকটি হিন্দু মৌলবাদী সংগঠন৷ তাঁর মাথার দাম ধার্য করা হয় সাড়ে এগারো মিলিয়ন ডলার৷

২০০৬ সালে স্বেচ্ছায় ভারত থেকে চলে যান হুসেন৷ বাস করতে থাকেন কাতারে৷ সম্প্রতি কাতারের রাজ পরিবার স্বতঃপ্রবৃত্ত হয়ে হুসেনকে সেদেশের নাগরিকত্ব দিতে চেয়ে বিবৃতি দিয়েছে৷ হুসেন নিজেই একথা জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমকে৷ বলেছেন, তিনি নিজে কোনরকম উদ্যোগ নেননি এ বিষয়ে৷ তাঁর পরিস্থিতি বিবেচনা করে রাজ পরিবারের এই সিদ্ধান্তে সম্মানিত বোধ করছেন বৃদ্ধ শিল্পী৷

ভারতের অভ্যন্তরে তাঁর নিরাপত্তার দায়িত্ব নেওয়ার বিষয়ে আশ্বস্ত করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব জি কে পিল্লাই৷ বলেছেন, হুসেনের নিরাপত্তার জন্য যা কিছু করণীয় করতে প্রস্তুত সরকার৷ কিন্তু সম্ভবত এই আশ্বাসবাক্যে নিশ্চয়তা পাচ্ছেন না খ্যাতিমান শিল্পী নিজে এবং তাঁর পরিবার৷

হিন্দু মৌলবাদী গোষ্ঠী বিশ্ব হিন্দু পরিষদের তরফে তাদের জনসংযোগ আধিকারিক বিনোদ বানশাল সংবাদসংস্থা এএফপিকে বলেছেন, হুসেনের মত ব্যক্তির ভারতের নাগরিকত্ব রাখার কোন অর্থ নেই৷ এর কারণ হিসেবে বানশালের ব্যাখ্যা, দেশের মূল্যবোধকে অপমানিত করেছেন হুসেন তাঁর আঁকা ছবির মাধ্যমে৷

দেশজুড়ে হিন্দু মৌলবাদীরা হুসেনের বিরিদ্ধে প্রায় নয়শো মামলা এনেছে এ পর্যন্ত৷ এই মামালাগুলির অধিকাংশতেই তাঁর বিরুদ্ধে ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত হানার অভিযোগ রয়েছে৷ ভারত থেকে স্বেচ্ছা নির্বাসিত মকবুল ফিদা হুসেন কাতারের নাগরিকত্বের প্রস্তাব গ্রহণ করবেন কিনা সে বিষয়ে এখনও কিছু খুলে বলেন নি৷ তবে তিনি যদি এই প্রস্তাব গ্রহণ করেন, সেক্ষেত্রে ভারতীয় পাসপোর্ট তাঁকে ছেড়ে দিতে হবে৷ কারণ দ্বৈত নাগরিকত্বের ব্যবস্থা স্বীকার করে না ভারতের সংবিধান৷

প্রতিবেদন-সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা - হোসাইন আব্দুল হাই

সংশ্লিষ্ট বিষয়