1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

কাইট সার্ফিং ওয়ান্ডার

গিসেলা পুলিদো স্পেনের মেয়ে৷ তাঁর নেশা ও পেশা কাইট সার্ফিং, যে কাজে তাঁর বাবা খুয়ান তাঁর ট্রেনার৷ কাইট সার্ফিংয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন গিসেলা এবারেও সেই খেতাব বজায় রাখতে চান৷ দেখলে-শুনলে মনে হবে: কাজটা তাঁর পক্ষে অসাধ্য নয়৷

গিসেলা পুলিদো কাইটসার্ফিং-এ বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন – এই নিয়ে দশম বার৷ এ পর্যন্ত তাঁর সবচেয়ে বড় অ্যাডভেঞ্চার ছিল, তিনি একবার একটি এক্সপ্রেস ফেরির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে জিব্রালটার প্রণালী পার হয়েছিলেন৷ তখন তাঁর বয়স ছিল ষোলো৷ গিসেলা আর ফেরি, উভয়েই মরক্কোর ট্যানজিয়ার্সে পৌঁছয় ঠিক ৩৫ মিনিটে৷

এক বছর পরে গিসেলা অস্ট্রেলিয়ার টুয়েলভ অ্যাপোস্টলস, অর্থাৎ যিশুর বারোজন শিষ্য বলে পরিচিত উপকূলের খড়ি পাথরের স্তম্ভগুলোকে চক্কর দিয়েছিলেন কাইটসার্ফিং করে – তাঁর আগে আর কেউ যা কোনোদিন করতে পারেনি, কেননা স্তম্ভগুলোর কাছে বাতাস নাকি বড় এলোমেলো! গিসেলা বলেন, ‘‘যদি বিশ্বের সেরা কাইটসার্ফার হতে চান, তাহলে ঝুঁকি নিতেই হবে, সত্যিই কঠিন সব কারিকুরি করতে হবে৷ শেষমেষ শরীরও সেটা মালুম পাবে৷''

যে কারণে স্পেনের মেয়ে গিসেলা পুলিদো আরেকটি পেশা বেছে রেখেছেন৷ তারিফায় তাঁর একটি রেস্টুরেন্ট আছে, সেই সঙ্গে একটি কাইটসার্ফিং স্কুল ও দু'টি সার্ফশপ৷ কাতালোনিয়ার মেয়ে গিসেলা করেসপন্ডেন্স কোর্সে ‘‘ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস'' নিয়ে পড়াশুনো করছেন৷ কিন্তু প্রথম স্থানে আগের মতোই রয়েছে কাইটসার্ফিং৷ রেসে নামার ও জেতার টাকা, সেই সঙ্গে স্পন্সরদের টাকা মিলিয়ে গিসেলার রোজগার বছরে কম করে আড়াই লাখ ইউরো৷

তাঁর পাশে সর্বদাই রয়েছেন তাঁর বাবা ও ট্রেনার খুয়ান মানুয়েল পুলিদো৷ খুয়ান দেখেন, সব ম্যানোভার ঠিক হচ্ছে কিনা৷ ওয়ার্ল্ড কাইট টুরের প্রতিযোগিতাগুলোতে ১২টি ট্রিক দেখানো চলে৷

প্রতিবছরই তার মান বাড়ছে, খুয়ান সেটা জানেন৷ ম্যানোভার বা কারিকুরিগুলোও ক্রমেই আরো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে আসছে৷ মানুয়েল বলেন, ‘‘গিসেলা মাথা ঠাণ্ডা রাখে, ভালো মনঃসংযোগ করতে পারে৷ সেটাই ওর সবচেয়ে বড় ক্ষমতা৷ ওর ওপর বিরাট চাপ আছে৷ মিডিয়া আর স্পন্সররা ভাবছে, আবার জেতাটা বোধহয় খুব সহজ হবে৷ আমি আশা করব, ওর চাপ সহ্য করার ক্ষমতা ওকে সাহায্য করবে৷''

গিসেলা পুলিদো তাঁর চ্যাম্পিয়ন খেতাব এবারও বজায় রাখতে চান৷ সেজন্য প্রস্তুতি চলেছে জোরদমে৷ গিসেলার মতে, ‘‘এতো ট্রেনিং করতে হয় - আমার সারা জীবনটাই কাইটসার্ফিং আর প্রতিযোগিতাগুলোকে ঘিরে৷ কাজেই জিততে পারলে দারুণ লাগে৷''

এভাবেই তিনি কমপিটিশনের পর কমপিটিশনে জিতে চলেছেন৷ সাধে কি তাঁকে কাইট সার্ফিং ওয়ান্ডার বলে!

আনা ফাইস্ট/এসি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়