1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

কমছে মৃত্যুর হার, বাড়ছে পরমায়ু

গরিব দেশগুলোতে গত ২০ বছরে মানুষের প্রত্যাশিত আয়ু গড়ে নয় বছর বেড়েছে৷ এছাড়া সারা বিশ্বে প্রত্যাশিত আয়ু ছয় বছর বেড়ে নারীদের ক্ষেত্রে হয়েছে ৭৩ বছর, যেখানে পুরুষের ৬৮ বছর৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সম্প্রতি জানিয়েছে এ তথ্য৷

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা ডাব্লিউএইচও বলছে, রোগ প্রতিরোধে সাফল্য এবং শিশুমৃত্যুর হার কমে আসার ফলেই এ অগ্রগতি সম্ভব হয়েছে, যদিও ধনী ও দরিদ্র দেশে মানুষের গড় আয়ুর ব্যবধান এখনো অনেক বেশি৷

ডাব্লিউএইচও-র বার্ষিক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ১৯৯০ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে ছয়টি দরিদ্র দেশে মানুষের প্রত্যাশিত আয়ু ১০ বছর পর্যন্ত বেড়েছে৷ এর মধ্যে লাইবেরিয়ায় প্রত্যাশিত গড় আয়ু ৪২ বছর থেকে ২০ বছর বেড়ে ৬২ বছর হয়েছে৷

এছাড়া ইথিওপিয়ায় ৪৫ বছর থেকে বেড়ে ৬৪ বছর, মালদ্বীপে ৫৮ থেকে বেড়ে ৭৭ বছর, কম্বোডিয়ায় ৫৪ থেকে বেড়ে ৭২ বছর, পূর্ব টুমরে ৫০ থেকে বেড়ে ৬৬ বছর এবং রুয়ান্ডায় ৪৮ থেকে বেড়ে ৬৫ বছর হয়েছে৷

১৯৯০ সালে বাংলাদেশে একটি নবজাতকের প্রত্যাশিত আয়ু ছিল ৬০ বছর৷ ২০১২ সালে তা বেড়ে হয়েছে ৭০ বছর৷

ডাব্লিউএইচও-র প্রধান মার্গারেট চ্যান এক বিবৃতিতে বলেন, ‘‘বিশ্বজুড়ে মানুষের গড় আয়ু বৃদ্ধির একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হলো, এখন পাঁচ বছর বা তার কম বয়সি শিশুমৃত্যুর হার অনেক কমে এসেছে৷''

অবশ্য জীবনযাপন পদ্ধতিতে পরিবর্তনের কারণে বিশ্বের বিভন্ন দেশে হৃদরোগ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে৷ সংক্রামক রোগের প্রকোপ কমে এলেও অসংক্রামক রোগে মৃত্যুর হার আগের তুলনায় বেড়েছে বলে জানান ডাব্লিউএইচও-র পরিসংখ্যান ও তথ্য বিভাগের প্রধান তিস বুয়ের্মা৷

ধনী দেশগুলোতে গত দুই দশকে প্রত্যাশিত গড় আয়ু বৃদ্ধির হার কমার কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি৷ এদিক দিয়ে সবচেয়ে এগিয়ে আছে জাপান৷ সেখানে একজন নারী ৮৭ বছর পর্যন্ত বাঁচার আশা করতে পারেন৷ আর পুরুষদের প্রত্যাশিত গড় আয়ু সবচেয়ে বেশি আইসল্যান্ডে, ৮১.২ বছর৷

ডাব্লিউএইচও-র পরিসংখ্যান বিভাগের কলিন ম্যাথার্স বলেন, ‘‘মানুষের আয়ুর সীমা যদি আমরা ৯০ বছর ধরি, তাহলে ওই সীমার দিকে যত অগ্রসর হওয়া যাবে, প্রত্যাশিত গড় আয়ু বৃদ্ধির হার তত কমে আসার কথা৷ কিন্তু ধনী দেশগুলোতে এর কোনো লক্ষণ আমরা দেখতে পাচ্ছি না৷''

মার্গারেট চ্যান বলেন, ‘‘ধনী ও গরিবের মধ্যে প্রত্যাশিত গড় আয়ুর ব্যবধান এখনো অনেক বেশি৷ কারণ উচ্চ আয়ের দেশের মানুষ একটি নিম্ন আয়ের দেশের মনুষের তুলনায় অনেক ভালোভাবে জীবন কাটাতে পারে৷''

এখনকার গড় আয়ুর বিচারে একটি ধনী দেশের ছেলে শিশু ৭৬ বছর বাঁচবে বলে আশা করা যায়৷ অন্যদিকে একটি গরিব দেশের ছেলে শিশুর প্রত্যাশিত আয়ু তার চেয়ে ১৬ বছর কম৷ মেয়েদের ক্ষেত্রে এই পার্থক্য আরো বেশি৷ ধনী দেশে যেখানে নারীদের প্রত্যাশিত গড় আয়ু ৮২ বছর, দরিদ্র দেশে তা ৬৩ বছর৷

তামাকের ব্যবহার কমে আসার কারণেও অনেক দেশে প্রত্যাশিত গড় আয়ু বাড়ছে বলে ডাব্লিউএইচও-র প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে৷

জেকে/ডিজি (রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়