1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

কনডোম ব্যবহারে পর্নো সিনেমার বাজারে ধস

২০১২ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পর্নো মুভিগুলোতে পুরুষদের কনডোম ব্যবহার করে অভিনয় করা আইনত বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল৷ কিন্তু এর ফলে লস অ্যাঞ্জেলেসের পর্নোগ্রাফি ব্যবসায় ধস নেমেছে৷ এমনই অভিযোগ নির্মাতাদের৷

Indische Porno-Schauspielerin Sunny Leone

একসময় পর্নো সিনেমায় অভিনয় করতেন সানি লিওন (ফাইল ফটো)

এইডস নিয়ন্ত্রণে ২০১২ সালে লস অ্যাঞ্জেলেসে পর্নো মুভি অভিনেতাদের কনডোম পরে অভিনয়ের বিষয়টি আইন করে বাধ্যতামূলক করা হয়৷ আইন প্রণেতাদের মতে, এর ফলে যাঁরা এসব মুভি দেখবেন তাঁদের এ বিষয়ে সচেতনতা বাড়বে৷ সে বছর নভেম্বরে এই আইন করার আগে ৪৮০টি পর্নো মুভি নির্মিত হয়েছিল লস অ্যাঞ্জেলেসে৷ এই আইনের কার্যকরের পর কনডোম ব্যবহার করে মুভি নির্মাণের কারণে ২০১৩ সালে মাত্র ৪০টি এবং এ বছর এখন পর্যন্ত ২০টি মুভি নির্মাণ হয়েছে৷ অর্থাৎ লস অ্যাঞ্জেলেসের এই ব্যবসায় ধস নেমেছে বলে জানিয়েছেন মুভি নির্মাতারা৷

পর্নোগ্রাফি প্রযোজনা কোম্পানি ভিভিড এন্টারটেইনমেন্ট-এর প্রতিষ্ঠাতা স্টিভেন হার্শ জানালেন, ‘‘২০১২ সালের নভেম্বর মাসে আইনটি পাস হওয়ার পর, আমরা লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টিতে একটিও মুভি প্রয়োজনা করিনি৷''

তবে কেবল এই একটি কাউন্টিতেই এই আইন জারি হয়েছে৷ স্টিভেন জানান, মুভি নির্মাণের আগে প্রত্যেকটি অভিনেতা অভিনেত্রীর এইচআইভি পরীক্ষা করেই নেয়া হতো৷ ফলে মুভি তৈরিতে কোনো সমস্যা ছিল না৷ যাঁর এইচআইভি পজেটিভ হতো তাঁকে বাদ দেয়া হত৷ এছাড়া এই মুভিতে যাঁরা অভিনয় করেন তাঁরা কনডোম ব্যবহার করতে চান না৷ এগুলো ছাড়া চলচ্চিত্রে সাবলীলভাবে অভিনয় করতে পারেন না বলে অভিযোগ করেন অভিনেতারা৷ এমনকি এই মুভির দর্শকরাও অভিনেতাদের কনডোম ছাড়াই দেখতে চান বলে জানান তিনি৷

এ কারণে প্রযোজকদের একটি দল খুব শিগগিরই এই আইনের বিরুদ্ধে আবেদন করবেন বলে জানালেন স্টেভান৷ পর্নো মুভি নিয়ে লস অ্যাঞ্জেলেসের ব্যবসাটা বিশাল৷ অন্তত ১০ হাজার মানুষ এতে কাজ করে৷ বছরে আয় হয় কয়েকশ' কোটি টাকা৷ তবে ২০১৩ সালে পর্নো মুভিতে অভিনয় করেন এমন পাঁচজন অভিনেতার রক্তে এইচআইভি জীবাণু পাওয়া যায়৷ স্টেভানের মতে, সিনেমার বাইরে নিজেদের অনিরাপদ যৌন জীবনই তাঁদের এইডস এর কারণ

বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এইডস হেলথ কেয়ার ফাউন্ডেশন এর সভাপতি মিশেল ভাইনস্টাইন বলেছেন, ‘‘কেবল এইডস নয়, বিভিন্ন ধরণের যৌন সম্পর্কের কারণে বিভিন্ন রোগ একে অপর থেকে ছড়াতে পারে৷ আর এ কারণেই এই আইন করা হয়েছে৷''

তিনি একথাও বলেন, ‘‘আপনি অভিনয়শিল্পীদের নিয়ে গিয়ে বাংলাদেশে হয়ত কনডোম ছাড়াই শুটিং করতে পারেন, তবে এখানে তা সম্ভব নয়৷''

এপিবি/ডিজি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন