1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘কঠোর শাস্তি দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করুন'

ঢাকার উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের ছাত্রী সুরাইয়া আক্তার রিশা হত্যায় সন্দেহভাজন যুবক ওবায়েদুল খানকে আটক করেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী৷ এ নিয়ে কী বলছেন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ব্যবহারকারীরা পড়ুন৷

ওবায়েদুল খান

ওবায়েদুল খান

ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর ক‌্যাম্পের অধিনায়ক মেজর আবদুল্লাহ আল-মাহমুদ বলেন, তাদের একটি দল বুধবার সকালে পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার সোনারায় গ্রাম থেকে ওবায়েদকে আটক করে৷

অন‌্যদিকে নীলফামারীর সহকারী পুলিশ সুপার ফিরোজ কবির বলছেন, ডোমার উপজেলার সোনারাই বাজার থেকে পুলিশের একটি দল ওবায়েদকে আটক করেছে৷ ঢাকায় পুলিশ ও র‌্যাব সদরদপ্তর থেকেও এ বিষয়ে পরস্পরবিরোধী বক্তব‌্য পাওয়া গেছে৷

সংগীত শিল্পী এলিটা করিম টুইটারে শেয়ার করেছেন সংবাদটি৷

অপু মাহফুজ ফেসবুক পাতায় লিখেছেন,

‘‘দুই হাত জোড় করে অনুরোধ করি নীতিনির্ধারকদের, আপনারা দৃষ্টান্ত স্থাপন করুন, আপনারা এমন কড়া, এমন ভয়াবহ বিচারের ব্যবস্থা করুন যাতে বাংলাদেশের প্রতিটা স্কুল ছাত্রীর বাবা-মা নির্ভরতা পান, নিশ্চিন্ত থাকেন মেয়েকে স্কুলে পাঠিয়ে৷ এইসব পশুদের বুঝিয়ে দিন কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়৷''

লুৎফর রহমান হিমেল লিখেছেন,

হতভাগ্য স্কুলছাত্রী রিশার অভিভাবকরা অভিযোগ করেছেন, ‘‘রিশা ছুরিকাহত হয় স্কুলের সামনের ফুটওভার ব্রিজে৷ কিন্তু তখন স্কুলের গাড়িটা পাশেই ছিল, কর্তৃপক্ষ তাকে গাড়িটা দেয়নি৷ কোনো শিক্ষক এগিয়ে আসেননি৷ পুলিশ কেস হবে বলে স্কুল কর্তৃপক্ষ এগিয়ে আসেনি৷''

তিনি লিখেছেন, ‘‘ঘাতক ওবায়দুল ছাড়াও এই স্কুল প্রশাসনের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাই৷ স্কুল কর্তৃপক্ষ অভিভাবকতো দূরের কথা, সরকারকেও পাত্তা দেয় না৷ একটি স্বাধীন দেশে এরা শিক্ষাবাণিজ্য করবে, অথচ জবাবদিহিতার মধ্যে থাকবে না! এটা কি করে সম্ভব?''

বিভিন্ন গণমাধ্যমেও শিরোনাম ছিল এটি৷

সাদিয়া রিয়া ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘‌রিশার হত্যাকারী গ্রেপ্তার, দ্রুততম সম‌য়ে বিচার শেষ করা হোক৷''

আতিক রহমান লিখেছেন, ‘‘পুলিশ চাইলে সবই পারে৷ রিশার হত্যাকারী ওবায়দুলকে ঠিকই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার করতে সমর্থ হল৷ কিন্তু অতীতের অনেক ঘটনার খল নায়করা আজ পর্যন্ত বিচারের আওতায় এলো না৷''

মো. রাকিবুল ইসলাম লিখেছেন, ‘‘রিশার হত্যাকারী একজন দর্জি, তাই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ কিন্তু তনুর হত্যাকারীরা দেশ নিয়ন্ত্রণ করে৷ তাই তাদের গ্রেপ্তার করা হয়নি, কারণ যদি অভ্যুত্থান ঘটিয়ে ফেলে৷''

ঢাকার উইলস লিটল ফ্লাওয়ারের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী রিশা (১৪) গত বুধবার স্কুলের সামনের ফুটওভারব্রিজে এক যুবকের ছুরিকাঘাতে আহত হয়৷ তিনদিন পর রোববার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়৷

সংকলন: অমৃতা পারভেজ

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন