1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

কঠোর আন্দোলনে বিএনপি, সর্বাত্মক প্রচারে আওয়ামী লীগ

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি আদায়ে কঠোর আন্দোলনে নামছে বিএনপি-র নেতৃত্বে বিরোধী ১৮ দল৷ তারা মনে করছে, সরকারকে আর সময় দেয়া যায়না৷ বিপরীতে সরকারের উন্নয়ন এবং নির্বাচনী প্রচারণায় নামছে আওয়ামী লীগ৷ তারা জবাব দেবে ‘অপপ্রচারের'৷

বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠক ১৭ই আগস্ট৷ জোটের নেতাদের বৈঠক পরদিন ১৮ই আগস্ট৷ সেদিনই আন্দোলনের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা হতে পারে৷ এরপর ১৯শে আগস্ট আন্দোলনের দায়িত্ব বণ্টন নিয়ে দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন খালেদা জিয়া৷ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ডয়চে ভেলেকে বলেন, তাঁরা কোনোভাবেই দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবেন না৷ কারণ আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবেনা৷ এতদিন তাঁরা সরকারকে তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থার দাবি মেনে নেয়ার সময় দিয়েছেন, কিন্তু সরকার তাঁদের দাবিকে কোন গুরুত্ব দেয়নি৷ তাই দাবি আদায়ে এবার তাঁরা চূড়ান্ত ভাবে মাঠে নামছেন৷ তাঁরা হরতাল, অবরোধ এবং অসহযোগের মত কর্মসূচিও দিতে পারেন৷

বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেকজন সদস্য হান্নান শাহ ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘কেন্দ্রীয় নেতারা আন্দোলনের জন্য সারা দেশে ছড়িয়ে পড়বেন৷ আন্দোলনে নেতা-কর্মী ছাড়াও সাধারণ মানুষকে সম্পৃক্ত করা হবে৷ ১৯শে আগস্টের বৈঠকে খালেদা জিয়া কোন নেতা কোন জেলায় যাবেন, তা ঠিক করে দেবেন৷'' তিনি আরও জানান, সরকারকে আর সময় দেয়া হবেনা৷ তাঁর মতে, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি কোনো দলীয় দাবি নয়৷ দেশের ৯০ ভাগ মানুষ নির্বাচনের সময় তত্ত্বাবধায়ক সরকার চায়৷ জনগণের এই দাবিকে সরকার মেনে নিতে বাধ্য হবে৷ আন্দোলনের মাধ্যমেই এখন দাবি আদায় করা হবে৷

Bangladesch Opposition Demonstration Begum Khaleda Zia

১৯শে আগস্ট দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন খালেদা জিয়া

এদিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, আন্দোলন করে কোনো দাবি আদায় করা যাবেনা৷ তিনি বলেন, আন্দোলন করে কোনো লাভ হবেনা৷ আলোচনার মাধ্যমেই সমাধান খুঁজতে হবে৷ তিনি জানান, যথা সময়ে নির্বাচন হবে৷ সবাই নির্বাচনে আসবে বলে তাঁর আশা৷ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম ডয়চে ভেলেকে জানান, তাঁরা নির্বাচনের কাজ শুরু করে দিয়েছেন৷ আওয়ামী লীগের নির্বাচন এবং উন্নয়নের প্রচারণা একই সঙ্গে শুরু হয়েছে৷ এখন এটা আরো সর্বাত্মকভাবে শুরু হবে৷

জানা গেছে, এ জন্য আগামী ১৮ই আগস্ট গণভবনে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠক ডাকা হয়েছে৷ শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ঐ বৈঠকে প্রচার-প্রচারণার বিষয়টি চূড়ান্ত হবে৷ এর আগে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক এবং বন ও পরিবেশমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ ডয়চে ভেলেকে বলেছিলেন, ঢাকা শহরে বিলবোর্ড প্রচারণার পর সারা দেশে প্রচারণায় নামবেন তারা৷ শুধু সরকারের উন্নয়নই নয়, বিরোধীদের অপপ্রচারের জবাব দেয়া হবে এই প্রচারণায়৷

জানা গেছে, প্রচার কৌশল হিসেবে এবার আওয়ামী লীগ প্রচলিত পদ্ধতির পাশাপাশি তথ্যচিত্র, রোড-শো, পথসভা, পোস্টার ব্যবহার করবে৷ বিটিভি ছাড়াও বেসরকারি টেলিভিশনে তারা চাঙ্ক কিনে নিয়ে উন্নয়নের প্রচারণা চালাবে৷ হেফাজতে ইসলামের অপপ্রচারের বিরুদ্ধে প্রামাণ্য চিত্র বানান হচ্ছে৷ এই প্রচারণায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকেও ব্যবহার করা হবে৷ এই প্রচার টিমের সঙ্গে যুক্ত আওয়ামী লীগের সহ সম্পাদক আহকাম উল্লাহ ডয়চে ভেলেকে জানান, এ জন্য তাঁরা রাত দিন কাজ করছেন৷ তাঁরা অপপ্রচারের জবাব দেবেন যৌক্তিকভাবে৷ প্রচার পদ্ধতি হবে শৈল্পিক এবং দৃষ্টি নন্দন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়