1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘‘ওরা আমাদের প্রধানমন্ত্রীর আদরের সন্তান''

বিশ্বজিৎ হত্যার পর দুই বছর কেটে গেছে৷ মামলার রায়ে সাজাপ্রাপ্ত ২১ জনের মধ্যে ১৩ জন ছাত্রলীগ কর্মী প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে৷ এদিকে, রায় কার্যকর নিয়ে শঙ্কিত বিশ্বজিতের পরিবার৷

এই হত্যাকাণ্ড এবং এর বিচার পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে ডয়চে ভেলের ফেসবুক বন্ধুদের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয়েছিল৷

উত্তরে পাঠক নিজাম লিখেছেন, ‘‘দেশে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অত্যন্ত খারাপ, দেশে সুশাসন নাই বলা যায়৷ যাঁরা মন্ত্রী পরিষদে থাকে তাঁরা স্বজনপ্রীতি করে বলেই তো আজও বিশ্বজিৎ হত্যার মামলার বিচার সম্পন্ন হয়নি৷''

এনএইচ সরকারের মন্তব্য, ‘‘যার হুকুমে লগি বৈঠা দিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে মানুষ খুন করে যারা লাশের ওপর নৃত্য করতে পারে! যারা বিশ্বজিৎকে শিবির মনে করে হায়নার মত ঝাপিয়ে পড়ে চাপাতির কষাঘাতে রাজপথে রক্তাক্ত দেহ ফেলে দিয়ে পুলিশের সামনে বীরদর্পে চলে যেতে পারে!! যারা ধর্ষণে সেঞ্চুরি করতে পারে!!! যারা কুকুরের মত নিজেরাই নিজেকে কামড়াতে পারে, হত্যা করতে পারে!!! যারা শিক্ষাগুরুকে চড় থাপড় মারতে পারে, এমনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জ্বালিয়েও দিতে পারে!!!! তাদেরকেই আবার যারা সোনার ছেলে, দেশের ভবিষ্যত কাণ্ডারী, বিসিএস ক্যাডার, অতঃপর বিচারক নিয়োগ করতে পারে!!!!! তারা কার বিচার করবে??? সত্যি সেলুকাস বিচিত্র এই ডিজিটাল বাংলাদেশ!!!''

মো. আরিফ ইসলাম বলেছেন, ‘‘আওয়ামী লীগের মানুষ নির্দোষ, কারণ আদালত হাসিনার৷''

সাইফুল ইসলাম ইয়ামিন এবং মিজান নাঈমের প্রতিক্রিয়া প্রায় একই রকম৷ সেটা এমন, ‘‘ওরা সব সোনার ছেলে, ওদের কোনো দোষ নাই, ওদের কোনো বিচার হবেনা৷''

মোত্তালিবুর রহমান ব্যাঙ্গো করে লিখেছেন, ‘‘তারাতো রাজাকার না যে, বিচার হবে৷''

ফয়সাল আহমেদের মন্তব্য, ‘‘ওরা হলো আমাদের প্রধানমন্ত্রীর আদরের সন্তান৷''

পল্লব দেবনাথ অনিকেত বলছেন, ‘‘বিচার চেয়ে লজ্জা পাবেন না৷''

চৌধুরী কুমলাউ হতাশ হয়ে লিখেছেন, ‘‘আজব দেশ আর আজব বিচার রে ভাই!''

হাবিবুন নবী শাওনের উত্তর, ‘‘ছাত্রলীগ বলে কথা! যত অপরাধই করুক তবু ওরা সোনার ছেলে!''

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন