1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ওবামার হুমকির পরও ক্রাইমিয়া ছাড়ছে না রাশিয়া

ইউক্রেন সংকট নিরসনের জন্য ভ্লাদিমির পুটিনের সঙ্গে কথা বলেন বারাক ওবামা৷ সমঝোতার পথ ধরার অনুরোধ জানান তিনি৷ কিন্তু অবরোধের ওবামার এই আহ্বানে সাড়া মেলেনি৷ ইউক্রেন ছেড়ে রাশিয়ার সঙ্গে যোগ দেয়ার পথেই এগোচ্ছে ক্রাইমিয়া৷

ক্রাইমিয়ায় রাশিয়ার সামরিক হস্তক্ষেপকে ‘আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন' অভিধায় আখ্যায়িত করে বৃহস্পতিবারই যুক্তরাষ্ট্র কঠোর পদক্ষেপ নেবে বলে জানিয়েছিলেন বারাক ওবামা৷ ইউক্রেনে সামরিক হস্তক্ষেপে জড়িতদের প্রতি অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ, সংশ্লিষ্টদের যুক্তরাষ্ট্র সফরে নিষেধাজ্ঞাসহ বেশ কিছু কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি৷ ইউরোপীয় ইউনিয়নেও ক্রাইমিয়ায় রাশিয়ার হস্তক্ষেপ নিয়ে দেখা দিয়েছে বিরূপ প্রতিক্রিয়া৷ রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি ইইউ নেতৃবৃন্দের মুখেও শোনা যাচ্ছে৷

Moskau - Präsident Putin äußert sich zum Militäreinsatz

টেলিফোনে কথা বলার পর এক বিবৃতিতে পুটিন জানিয়েছেন, ক্রাইমিয়ার কর্তৃপক্ষ সম্পূর্ণ আইনানুগ পদক্ষেপ নিয়েছে বলেই তিনি মনে করেন

তবে হুমকিতে ক্রাইমিয়ার পরিস্থিতি বদলায়নি৷ বৃহস্পতিবার সেখানকার মস্কোপন্থি প্রশাসন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের উদ্দেশ্যে ক্রাইমিয়াকে রাশিয়ান ফেডারেশনে গ্রহণ করার অনুরোধ জানায়৷ আগামী ১৬ মার্চ গণভোট হবে ক্রাইমিয়ায়, সেদিন ভোট দিয়ে ক্রাইমিয়াবাসী ঠিক করবেন তাঁরা ইউক্রেনে থাকতে চান, নাকি যোগ দিতে চান রাশিয়ান ফেডারেশনে৷ ইতিমধ্যে রাশিয়ার সংসদের স্পিকার জানিয়েছেন, ক্রাইমিয়ার মানুষ যে সিদ্ধান্ত নেবে রাশিয়া তাকে সম্মান জানাবে৷

অর্থাৎ ক্রাইমিয়া এবং রাশিয়া পারস্পরিক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে আরো দৃঢ় বন্ধনে আবদ্ধ করতে চলেছে৷ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এক ঘণ্টা ধরে টেলিফোনে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের সঙ্গে কথা বলেও ক্রাইমিয়া সম্পর্কে রাশিয়ার অবস্থানে পরিবর্তন আনতে পারেননি৷

টেলিফোন কথোপকথনের পর এক বিবৃতিতে পুটিন জানিয়েছেন, ক্রাইমিয়ার কর্তৃপক্ষ সম্পূর্ণ আইনানুগ পদক্ষেপ নিয়েছে বলেই তিনি মনে করেন৷ এ অবস্থায় ক্রাইমিয়ার রুশ ভাষাভাষী জনতার পাশে যে কোনো মূল্যে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করতে গিয়ে পুটিন বলেন, ‘‘সাহায্যের আহ্বানকে রাশিয়া অগ্রাহ্য করতে পারেনা৷ আন্তর্জাতিক আইন মেনেই (ক্রাইমিয়াকে) কাজ করবে রাশিয়া৷''

এদিকে যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রবল বিরোধিতার মুখেও চীনকে পাশে পাচ্ছে রাশিয়া৷ ক্রাইমিয়া এবং রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমা দেশগুলোর অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপের হুমকি প্রসঙ্গে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেছেন, ‘‘চীন সবসময়ই অবরোধের সহজ প্রয়োগ কিংবা অবরোধের হুমকির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে এসেছে৷ আমরা আশা করি, বর্তমান পরিস্থিতিতে উত্তেজনা প্রশমন করে সংকটের রাজনৈতিক সমাধানের উপায় বের করার জন্য সংশ্লিষ্ট সব পক্ষ কঠোর পরিশ্রম করবে৷''

এসিবি/এসবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়