1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ওবামার সঙ্গে পা মেলালেন অশীতিপর বৃদ্ধা

১০৬ বছরের ভার্জিনিয়া ম্যাকলরিন গটগট করে হেঁটে ঢুকলেন হোয়াইট হাউসে৷ তাঁকে অভ্যর্থনার জন্য অপেক্ষায় ছিলেন খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷ হ্যাঁ৷ আর বারাক ওবামাকে দেখে দুয়েকটা কথার পরই আনন্দে নাচতে শুরু করলেন বৃদ্ধা৷

ভার্জিনিয়ার পরনে গাঢ় নীল রঙের স্কার্ট-ব্লাউজ, পায়ে কালো বুট৷ বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছে তাঁর দেহ৷ তাই হাতে শক্ত করে ধরা একটা লাঠি৷ কিন্তু তাতে কী? ওবামা এসে হাত ধরতেই, বাঁ হাতের লাঠিটা উঁচু করে ধরে কোমর দোলাতে থাকেন ভার্জিনিয়া৷ তারপর শুরু করেন নাচ৷ তাঁর তড়িৎ গতিতে ছোট্ট ছোট্ট পা ফেলা দেখে ওবামা-পত্নী ভার্জিনিয়াকে জড়িয়ে ধরেন, যোগ দেন সেই নাচে৷ আনন্দের নাচ, তা-ও আবার স্বয়ং প্রেসিডেন্টের হাত ধরে! এ দিনটার জন্য যে অনেকগুলো বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে ভার্জিনিয়াকে৷

ওবামা-দম্পতির সঙ্গে ১০৬ বছরের বৃদ্ধা ভার্জিনিয়া ম্যাকলরিনের মাত্র কিছুক্ষণের এই নাচ নিয়ে তোলপাড় ইন্টারনেট বিশ্ব৷ ‘ব্ল্যাক হিস্টরি মান্থ' উপলক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করতে আসা এই ‘ব্ল্যাক লেডি'-র কথায়, ‘‘কখনও ভাবিনি জীবনে কোনো কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্টকে অ্যামেরিকায় কর্তৃত্ব করতে দেখতে পারবো৷''

কয়েক বছর আগে থেকেই ওবামার সঙ্গে দেখা করার পরিকল্পনা করছিলেন ভার্জিনিয়া৷ কিন্তু ওয়াশিংটনে থেকেও প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করা তো আর চাট্টিখানি কথা নয়! তার ওপর বয়স বাড়ছিল ভার্জিনিয়ার৷ কিন্তু তিনি হাল ছাড়েননি৷ বরং এ যাবৎ ইন্টারনেটে রীতিমতো আন্দোলন চালিয়েছেন তিনি, করেছেন দেন-দরবার৷ অবশেষে আসে এই সুযোগ৷ আসে ‘বিশাল এই সম্মান', তা-ও আবার ১০৬ বছর বয়সে৷

মিশেল ওবামা যখন তাঁকে বলেন, ‘‘ভার্জিনিয়া, আমিও বয়সের সঙ্গে সঙ্গে আপনার মতো হতে চাই'', তখন উত্তর আসে, ‘‘তুমি নিশ্চয়ই পারবে৷''

ডিজি/জেডএইচ

বন্ধুরা, কেমন লাগলো আপনাদের এই অশীতিপর বৃদ্ধার নাচ? জানান মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়