1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

ঐতিহাসিক সূর্যের চাকতির রহস্য উদ্ধারের প্রচেষ্টা

কোনো ঐতিহাসিক নিদর্শন সম্পর্কে মনে সংশয় থাকলে তার গুরুত্বও কমে যায়৷ নানা বৈজ্ঞানিক পরীক্ষার মাধ্যমে সেই সংশয় অবশ্য দূর করার পথও আছে৷ এভাবে অতীত সম্পর্কে নানা মূল্যবান তথ্য জানা যায়৷

ডাকাতরা এক জঙ্গল এলাকায় রহস্যজনক ‘সান ডিস্ক' পেয়েছিল বলে দাবি করে৷ কিন্তু তারা কি সত্যি কথা বলেছে? মাটির নমুনা থেকে অবশ্য প্রমাণ পাওয়া গেছে, যে সেখানে ব্রোঞ্জের তৈরি কোনো বস্তু ছিল৷ ডাকাতরা তাদের আবর্জনাও একই জায়গায় পুঁতেছিল৷ হালে মিউজিয়ামের কিউরেটর ড. হারাল্ড মেলার বলেন, ‘‘যে কোনো বড় নিদর্শনের মতো এ ক্ষেত্রেও শুরুতে সংশয় ছিল৷ ‘সান ডিস্ক' যে খাঁটি, বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে তা প্রমাণিত হয়েছে৷ প্রথমত তার যে অবক্ষয় হয়েছে, তা নকল করা সম্ভব নয়৷''

প্রত্নতাত্ত্বিকরা সরকারি অপরাধ দপ্তরের বিশেষজ্ঞদের প্রযুক্তি ও জ্ঞান কাজে লাগানোরও সুযোগ পেয়েছিলেন৷ মাইক্রোস্কোপের মাধ্যমে প্রথম দর্শনে দেখা গেল, যে প্যাটিনা বা প্রাথমিক স্তরের কাঠামো একেবারে খাঁটি৷

সংশয় পুরোপুরি দূর করতে একটি বিশেষ অংশের নমুনা সংগ্রহ করে গুঁড়া করা হলো৷ বিশেষ ধরনের এক্স-রে যন্ত্রের সাহায্যে সেই পদার্থের ক্রিস্টালাইন কাঠামো পরীক্ষা করা হলো৷ পরীক্ষায় প্রমাণ হলো প্যাটিনা সত্যি খাঁটি৷ সবুজ প্যাটিনা অত্যন্ত ধীরে বেড়ে ওঠে৷ সেটি কোনো নিদর্শনের বয়সের প্রমাণ দেয়৷ এর নকল করা অসম্ভব৷

বার্লিন শহরে ‘বেসি' নামের বিশাল গবেষণাকেন্দ্রে স্কাই ডিস্ক-এর নতুন পরীক্ষা হয়েছে৷ বস্তুর কোনো ক্ষতি না করেই পার্টিকেল অ্যাক্সিলারেটর উপকরণের নিখুঁত বিশ্লেষণ করে৷ এ ক্ষেত্রে অত্যন্ত শক্তিশালী বিকিরণের মাধ্যমে গোল্ড প্লেটিং পরীক্ষা করা হচ্ছে৷ এই পরীক্ষাও প্রমাণ করলো বস্তুটি সত্যি কতটা প্রাচীন৷

জার্মানির মানহাইম শহরে ‘সেন্টার ফর আর্কিওমেট্রি' ধাতুর বিশ্লেষণ ও বয়স নির্ণয়ের ক্ষেত্রে বিশ্বের সেরা বলে পরিচিত৷ প্রতিষ্ঠানের প্রধান অ্যার্নস্ট প্যারনিৎসকা এককালে কিংবদন্তির ট্রয় নগরী নিয়ে গবেষণা করেছিলেন৷ স্পেকট্রোমিটারে রসায়নবিদ ধাতুর নমুনার উপকরণগুলি বিশ্লেষণ করছেন৷ এই পরীক্ষায়ও ডিস্কের বয়স জানা গেল৷ ধাতুর বিশ্লেষণ করে ডিস্কের তামার উৎসও জানা গেল৷ আলপ্স পর্বতের পূর্বাঞ্চলে এক পর্বতশ্রেণির কয়েক হাজার বছর প্রাচীন এক আকরিক খনি থেকে সেই তামা তোলা হয়েছে৷

ডিস্ক যে খাঁটি, সে বিষয়ে যাবতীয় সংশয় দূর করার পর ডিজাইনের উপর নজর পড়লো৷ ৩২টি নক্ষত্র, কাস্তের মতো চাঁদ ও সোনালী বলয়৷একটি গোষ্ঠী নিশ্চয় প্লেইডিস বা সাত বোনের প্রতীক৷

জ্যোতির্বিজ্ঞানী মাটিউ অসেনড্রাইভার এক চমকপ্রদ আবিষ্কার করলেন৷ তিনি বলেন, ‘‘চাঁদ ও প্লেইডিস-এর এই বিন্যাস ‘মাল-আপিন' নামের এক ব্যাবিলনীয় টেক্সটের কথা মনে করিয়ে দেয়৷ বছরে বাড়তি এক মাস যোগ করার প্রেক্ষাপটে সেখানেও চাঁদ ও প্লেইডিস-এর উল্লেখ আছে৷''

মেসোপটেমিয়া-ও পুরোহিত-জ্যোতির্বিদরা তাঁদের মন্দির থেকে আকাশ পর্যবেক্ষণ করতেন৷ তাঁরা মহাজাগতিক ঘটনা পর্যবেক্ষণ করে তাঁদের পূ্র্ববাণী পলিমাটির ট্যাবলেটে লিখে রাখতেন৷ প্রো. অসেনড্রাইভার বলেন, ‘‘তাঁরা বছরের শুরুতে প্রথম অর্ধচন্দ্রের অবস্থান লক্ষ্য করতেন৷ সেই নিখুঁত অবস্থানের উপর নির্ভর করে প্লেইডিস-এর পরিপ্রেক্ষিতে তাঁরা সিদ্ধান্ত নিতেন, কোনো বছরে একটা বাড়তি মাস – অর্থাৎ ত্রয়োদশ মাসের প্রয়োজন পড়বে কিনা৷''

জার্মানিতে কয়েক হাজার বছর আগের মতো ইসলামি জগতের হিজরি ক্যালেন্ডারও চাঁদ পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে গড়ে উঠেছে৷ সাওয়ালের চাঁদ রোজার মাসের সমাপ্তি ইঙ্গিত করে৷

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়