1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ঐতিহাসিক যাত্রায় যুক্তরাজ্য পৌঁছেছে ডয়চে বান

মঙ্গলবার জার্মানির রেলওয়ে প্রতিষ্ঠান ডয়চে বানের দ্রুতগামী ট্রেনটি প্রথমবারের মতো ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের মধ্যকার চ্যানেল টানেল অতিক্রম করে লন্ডনের সেন্ট প্যানক্রাস স্টেশনে পৌঁছেছে৷

Channel, Tunnel, train, Deutsche, Bahn, France, UK, যুক্তরাজ্য, ডয়চে, বান, জার্মান, ট্রেন

চ্যানেল টানেলে জার্মান ট্রেন

এর ফলে ডয়চে বানের ২০১৩ সালের মধ্যে নিয়মিতভাবে ট্রেন যোগাযোগ স্থাপনের পরিকল্পনাটি পায়ের নীচে শক্ত জমি পেল৷

সিমেন্স নির্মিত ডয়চে বানের দ্রুতগামী আইসিই ৩ ট্রেনটিকে দেখতে এখন সেন্ট প্যানক্রাস স্টেশনে ভীড় জমে গিয়েছিল৷ গত বুধবার ডয়চে বানের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছিল যে, ১৯ অক্টোবর তাঁরা একটি দ্রুতগামী ট্রেন নিয়ে ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের মধ্যকার এই চ্যানেল টানেল অতিক্রম করবেন৷

উল্লেখ্য, ডয়চে বানের এই সাফল্যের ফলে ইউরোপের ট্রেনগুলোর প্রতিযোগিতার দৌঁড়ে এখন তারাও অংশ নিতে পারবে৷ ইউরোস্টারের একচ্ছত্র আধিপত্য এবং আলস্টম ট্রেনগুলোর পাশাপাশি আগামীতে ডয়চে বানও তাদের পথ তৈরি করতে এগিয়ে আসছে৷

ডয়চে বানের প্রধান রুডিগার গ্রুবে জানিয়েছিলেন, বহুদিন থেকেই জার্মান রেলওয়ে তাগাদা দিয়ে আসছিল এমনই একটি দ্রুতগামী ট্রেন সেবা চালু করার জন্য, যা ইংলিশ চ্যানেলের টানেল অতিক্রম করবে৷ বস্তুত এর ফলে লন্ডন এবং ফ্রাঙ্কফুর্টের ব্যবসায়িক কেন্দ্রগুলোর মধ্যে একটা যোগাযোগ স্থাপিত হবে৷

ডয়চে বানের একটি আইসিই ট্রেন সোমবার রাতে তার এই ঐতিহাসিক যাত্রা শুরু করেছিল৷ এর আগে চ্যানেল টানেল ধরে একমাত্র যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স আর বেলজিয়ামের মালিকানাধীন ইউরোস্টারই কেবল যাত্রী বহন করতো৷ এবারে তার পাশে জার্মানির ডয়চে বান দাঁড়াতে যাচ্ছে৷

ডয়চে বান কর্তৃপক্ষ ১৯ তারিখের চ্যানেল টানেল অতিক্রম করে লন্ডন যাত্রার আগে দেখে নিতে চেয়েছিলেন নিরাপত্তা এবং যাত্রার দিক থেকে ট্রেনটি কতখানি সক্ষম৷ অবশ্য সে যাত্রায় কোন সাধারণ যাত্রী তোলা হয়নি৷ কেবল ডয়চে বানের আইসিই ৩ ট্রেনটির চালক এবং ডয়চে বান ও ইউরোস্টারের কারিগরি বিভাগের কর্মীরাই এ মহড়াযাত্রায় অংশ নিয়েছিলেন৷

জানা গেছে, এই মহড়া এবং চ্যানেল টানেল অতিক্রম করার এই ঐতিহাসিক যাত্রাটি'র উদ্দেশ্যের মধ্যে আরো রয়েছে সামনের অলিম্পিক উপলক্ষে ডয়চে বান এর একটি নতুন যাত্রীসেবা৷

গ্রুপে ইউরোটানেলের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তাঁরা দেখেছেন লন্ডন থেকে ফ্রাঙ্কফুর্ট ট্রেন যোগাযোগের ফলে তা বছরে প্রায় ১ মিলিয়ন বাড়তি যাত্রীকে আকৃষ্ট করবে৷ আর লন্ডন-কোলন টানবে আরো প্রায় ১ মিলিয়ন বাড়তি যাত্রীকে৷

জানা গেছে, অলিম্পিক উপলক্ষে আগামী ২০১২ সালে ডয়চে বান তার যাত্রীদেরকে এক আয়েসপূর্ণ ভ্রমণে লন্ডনে পৌঁছানোর এক পরিকল্পনা করেছে৷ ডয়চে বান কর্তৃপক্ষের বরাতে আরো জানা গেছে, ২০১৩ সালের ভেতরে ডয়চে বান তার যাত্রী সেবার মধ্যে জার্মানি এবং যুক্তরাজ্যের ভেতরে নিয়মিত ট্রেন যোগাযোগ স্থাপন করতে চাইছে৷

প্রতিবেদন: হুমায়ূন রেজা
সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন