1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ট্রাম্প-এর্দোয়ান বৈঠক

এর্দোয়ান, ট্রাম্পের পারস্পরিক মুখরক্ষা

ওভাল অফিসে দুই নেতার সাক্ষাতে এর্দোয়ান ট্রাম্পের কুর্দ সশস্ত্র বাহিনীকে অস্ত্রদানের সিদ্ধান্তের প্রকাশ্য সমালোচনা করেননি৷ ট্রাম্পও গত বছরের ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের পর এর্দোয়ানের দমননীতি উহ্য রাখেন৷

তুর্কি প্রেসিডেন্টের ক্ষমতাবৃদ্ধি সংক্রান্ত গণভোটে গত ১৬ই এপ্রিল এর্দোয়ানের জয়ের পর বিশ্বের যেসব নেতা তাঁকে সর্বাগ্রে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন, তাদের মধ্যে ছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷

হোয়াইট হাউসের সাক্ষাতেও ট্রাম্প এর্দোয়ানকে ‘‘সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রামে’’ একজন গুরুত্বপূর্ণ মিত্র বলে অভিহিত করেন৷ অপরদিকে এর্দোয়ান তাঁর ওয়াশিংটন সফরকে ‘‘ঐতিহাসিক দিকপরিবর্তনের’’ নিদর্শন হিসেবে বর্ণনা করেছেন এবং উভয় দেশের ‘‘অসাধারণ সম্পর্ককে’’ স্বাগত জানিয়েছেন৷

‘‘আমরা তুরস্ককে... সন্ত্রাস এবং আইসিস ও পিকেকে-র মতো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলির বিরুদ্ধে সংগ্রামে সমর্থন করি... সিরিয়ায় বীভৎস হত্যাকাণ্ডের অন্ত ঘটানোর প্রচেষ্টায় তুরস্কের নেতৃত্বের জন্যও আমরা সাধুবাদ জানাই,’’ বলেছেন ট্রাম্প৷

অপরদিকে কুর্দদের ওয়াইপিজি বা গণসুরক্ষা গোষ্ঠীগুলিকে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্রদান সম্পর্কে এর্দোয়ানের মন্তব্য, ‘‘ওয়াইপিজি-পিওয়াইডি-কে আঞ্চলিক সহযোগী হিসেবে বিবেচনা করা একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয় এবং তা আমাদের গৃহীত একটি বিশ্বব্যাপি সমঝোতার বিরোধী৷’’

‘‘ঠিক সেভাবেই এই গোষ্ঠীগুলি – যারা এই অঞ্চলের জাতিগত অথবা ধর্মীয় কাঠামোগুলি পরিবর্তন করতে চায় – তাদের সন্ত্রাসবাদকে অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করতে দেওয়া (আমাদের) উচিৎ নয়,’’ বলেন এর্দোয়ান৷

ওয়াইপিজি বা পিপলস প্রোটেকশন ইউনিটগুলি বস্তুত উত্তর ইরাকের স্বশাসিত কুর্দ-নেতৃত্বাধীন এলাকাগুলির সামরিক বাহিনী হিসেবে কাজ করে৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ওয়াইপিজি-কে পিকেকে থেকে আলাদা বলে মনে করে এবং ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ সহযোগী বলে গণ্য করে৷

এর্দোয়ানের যুক্তরাষ্ট্র সফরের আরেকটি কণ্টকিত বিষয় ছিল তুর্কি ধর্মনেতা ফেতুল্লাহ গুলেনকে বহিষ্কারের দাবি, যিনি স্বেচ্ছানির্বাসনে পেনসিলভানিয়ায় বাস করছেন৷ এর্দোয়ান গুলেনকে গত বছরের ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের জন্য দায়ী করেন৷ গুলেন এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷

এর্দোয়ানের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিম এক বিবৃতিতে বলেছেন যে, দুই প্রেসিডেন্টের মধ্যে ‘ফেটো’-র বিরুদ্ধে সম্ভাব্য পদক্ষেপ' নিয়ে কথাবার্তা হয়েছে, তবে ঠিক কী বা কোন পদক্ষেপ, সে বিষয়ে কালিম কিছু বলেননি৷ আংকারার পরিভাষায় গুলেনের সংগঠন হলো একটি ‘‘গুলেনপন্থি সন্ত্রাসী সংগঠন’’৷

এর্দোয়ানের সফর উপলক্ষ্যে ওয়াশিংটনে তুর্কি রাষ্ট্রদূতের বাসভবনের সামনে কুর্দ এবং আর্মেনীয় বিক্ষেোভকারীদের সঙ্গে এর্দোয়ান সমর্থক ও রাষ্ট্রদূত ভবনের নিরাপত্তাকর্মীদের সংঘর্ষে অন্তত নয়জন মানুষ আহত হয়েছেন৷ পুলিশ দু’ পক্ষকে আলাদা করার চেষ্টা করে ও দু’ জনকে গ্রেপ্তার করে বলে প্রকাশ৷

এসি/এসিবি (রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়