1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘এমন পু‌লিশই তো চাই, সাবাস...'

বসুন্ধরা সিটির শর্মা হাউজে খাওয়ার পর দ্বিগুণ বিল দিতে হয়েছে এক গৃহিণীকে আর তা তিনি জানিয়েছিলেন ফেসবুকে৷ পুলিশ শর্মা হাউজের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে৷ এ নিয়ে পাঠকদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া আমাদের ফেসবুক পাতায়৷

শর্মা হাউজে খাওয়ার পর গৃহিণীকে দ্বিগুণ বিল পরিশোধ করার খবরটি তিনি ফেসবুকে জানানোর কারণেই পুলিশ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পেরেছে৷ তাই গৃহিণীকে বাহবা দিয়ে পাঠক সৌরভ তারেক ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘সাবাস ভাবী, তোমাদের মতো প্রতিবাদী নারী আমাদের সমাজে দরকার৷''

আর নাজমুল হোসেন লিখেছেন, ‘‘আপা, আপনাকে অভিনন্দন! খুব ভালো করেছেন৷'' পাঠক তারেক মিজান এবং শাহীন আহমেদও অত্যন্ত আনন্দিত৷ তিনি প্রতিবাদী নারীকে ‘স্যালুট' জানিয়েছেন৷ আর আফসানা সাথীর মন্তব্য, ‘গুড জব'৷ নাদিম মাহমুদ কোনো অন্যায় সম্পর্কে ফেসবুকে জানিয়ে দেওয়ার আইডিয়াটা খুবই পছন্দ করেছেন৷

অন্যদিকে শর্মা হাউজের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করায় কমল দে পুলিশকে লক্ষ্য করে মন্তব্য করেছেন, ‘‘এমন পু‌লিশই তো চাই, সাবাস৷'' শ্যামলী রানি এবং পাঠক আলীও পুলিশের প্রশংসা করেছেন ফেসবুকে৷

তবে বসুন্ধরা সিটির শর্মা হাউজের কর্মী ২৫ টাকার খাবারের জন্য ৫০ টাকা আদায় করার পক্ষে যুক্তি দেখিয়ে ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় পাঠক জিসান শাহরিয়া লিখেছেন, ‘‘ভাই, মনে করুন আমার বা আপনার দুইটা দোকান৷ একটা পুরনো ঢাকায়, অন্যটা উত্তরায়৷ পুরনো ঢাকায় দোকান ভাড়া যদি হয় ৫ হাজার টাকা তো উত্তরায় ভাড়া হবে ৫০ হাজার টাকা৷'' এক্ষেত্রে পাঠক শহরিয়ারের প্রশ্ন, ‘‘এবার বলুন একটা সিঙ্গারার দাম দুই জায়গায় এক রকম হতে পারে কি?''

আর বাদল হোসেনের দাবি ‘‘ আগামীতেও যেখানেই দুর্নীতিবাজ, ঠকবাজ সেখানেই আইন প্রয়োগ চাই৷''

উজ্জল মন্ডল তো এমন দেশই চান যেখানে শুধু আইন নয়, আইনের প্রয়োগও থাকবে৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: আশীষ চক্রবর্ত্তী

নির্বাচিত প্রতিবেদন