1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

এমএইচ১৭: সেই অভিশপ্ত দিনটি

এক বছর আগে ইউক্রেনের আকাশে মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্স বিমান ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল৷ প্রথম ফটোগ্রাফার হিসেবে ওলেগ ভ্টুলকিন ঘটনাস্থলে পৌঁছেছিলেন৷ ডয়চে ভেলের কিটি লোগান তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন৷

গত বছর ১৭ই জুলাই ওলেগ ভ্টুলকিন ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে টোরেস শহরে নিজের বাড়িতেই ছিলেন৷ একটা অস্বাভাবিক শব্দ তাঁকে উতলা করে তোলে৷ ডিডাব্লিউ-কে তিনি বলেন, ‘‘বিস্ফোরণের বিকট শব্দ ও তারপর আরেকটি শোঁ শোঁ শব্দ শুনতে পেয়েছিলাম৷ সেই দিকে এগিয়ে এবং অনেকের সঙ্গে ফোনে কথা বলে জানতে পারি, যে একটি বিমান গ্রাবাভো-র কাছে ভেঙে পড়েছে৷''

আধ ঘণ্টার মধ্যেই ভ্টুলকিন প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরের সেই গ্রামে পৌঁছে গিয়েছিলেন৷ প্রথম ফটোগ্রাফার হিসেবে তিনি এমএইচ সেভেনটিন-এর ধ্বংসাবশেষ দেখতে পেয়েছিলেন৷ সেটা ছিল এক অকল্পনীয় দৃশ্য৷ তিনি বলেন, ‘‘এমন অভিজ্ঞতা আমার আগে কখনো হয় নি৷ তাই আমি বিহ্বল হয়ে পড়েছিলাম৷ ঠিকমতো কাজ করতে পারছিলাম না, স্বাভাবিক ছবি তুলতে অসুবিধা হচ্ছিল৷ সম্পূর্ণ বিভ্রান্ত হয়ে সেখানে দাঁড়িয়ে ছিলাম৷ তারপর ছবি তুলতে শুরু করলাম৷ তখনো পর্যন্ত অন্য কেউ সেই কাজ করার জন্য ঘটনাস্থলে আসেনি৷ আমি যতটা কম সম্ভব কাজ করলাম৷''

Ukraine Fotograf Oleg Vitulkin

ভ্টুলকিন ঘটনাস্থলের ছবি তোলাকে ঐতিহাসিক দায়িত্ব হিসেবে দেখেছিলেন

ভ্টুলকিন যখন গ্রামের বসতি থেকে একটু দূরে এক খোলা মাঠে এলেন, তখনো বিমানের ধ্বংসাবশেষের মধ্যে গনগনে আগুন দেখা যাচ্ছিল৷ আমস্টারডাম থেকে কুয়ালালমপুরগামী বিমানটি ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের আকাশে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধ্বংস হয়ে যায়৷ ২৯৮ জন যাত্রী ও কর্মীদের মধ্যে কেউই রেহাই পাননি৷ কিন্তু সেই ট্র্যাজেডির মাত্রা সঙ্গে সঙ্গে বোঝা যায়নি৷ ভ্টুলকিন বলেন, ‘‘আমি যখন সেখানে পৌঁছাই, দমকলকর্মীরা এসে পড়েছিলেন৷ সৈন্যদেরও দেখা যাচ্ছিল৷'' ভাঙা গলায় তিনি আরও বলেন, ‘‘সবচেয়ে নিষ্ঠুর দৃশ্য ছিল মৃতদেহগুলি থেকে ধোঁয়ার কুণ্ডলী৷ সবকিছু পুড়ে যাচ্ছিল৷''

মানসিক টানাপড়েন নিয়ে ভ্টুলকিন ঘটনাস্থলের ছবি তোলেন৷ ‘‘ভয়ংকর সেই জায়গায় আমি থাকতে চাইনি৷ কিন্তু ফটোগ্রাফার হিসেবে সবকিছু নথিভুক্ত করতে হয়েছিল৷ ইতিহাসের স্বার্থে আমাকে ছবি তুলতে হয়েছিল৷ কিন্তু আবেগ সামলে সেই কাজ করা ছিল খুবই কঠিন৷ আমি মানুষের মৃতদেহ দেখেছি৷ চারিদিকে লাশঘরের মতো একটা অদ্ভুত গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছিল৷ গরমের মধ্যে মৃতদেহগুলি চারিদিকে ছড়িয়ে ছিল৷''

Ukraine Absturzort der MH17

ভ্টুলকিন-এর তোলা বেশিরভাগ ছবির দৃশ্য দেখা সহজ নয়

এক বছর পর ভ্টুলকিন বেশ কয়েকটি হার্ড ডিস্ক ঘেঁটে সেই দিনের ছবিগুলি খুঁজে পেয়েছেন৷ তিনি কখনো সেই সব ছবি বিক্রি করার চেষ্টা করেননি৷ বেশিরভাগ ছবিই প্রকাশ করার মতো নয়৷ সেই সব ছবিতে বিমানের যাত্রী ও কর্মীদের আচমকা নিষ্ঠুর পরিণতির প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে৷

ভ্টুলকিন এই সব ছবির কথা মনেও করতে চান না৷ তিনি বলেন, ‘‘সত্যি কথা বলতে কি, আমি ছবিগুলি না দেখার চেষ্টা করি৷ খুবই কমবার সেগুলি দেখেছি৷ এ সব ছবি না দেখাই ভালো৷''

ভ্টুলকিন এডিট না করা এই সব ছবির তালিকা ঘাঁটতে ঘাঁটতে বলছিলেন, তিনি কী ভাবে সবকিছু দেখতে দেখতে ছবি তুলছিলেন৷ দমকল কর্মীরা তখন আগুনের শিখা নেভাচ্ছিলেন৷ ধ্বংসাবশেষ থেকে ধোঁয়া সরে যাচ্ছিল৷ তখন তিনি এগিয়ে গিয়ে সবকিছু নথিভুক্ত করে যাচ্ছিলেন৷ মাঠের উপর পাসপোর্টের সহ কাগজপত্রও পড়ে থাকতে দেখেছিলেন তিনি৷

Ukraine Absturzort der MH17

বিমান ভেঙে পড়ার সঠিক কারণ আজও অস্পষ্ট

ভ্টুলকিন পর্দায় একটি শিশুর মৃতদেহের ছবি দেখিয়ে বলেন, ‘‘আমাকে সবচেয়ে নাড়া দিয়েছিল পথের উপর পড়ে থাকা একটি ছোট মেয়ের লাশ৷ ছোট্ট শিশু, মৃত একটি মেয়ে৷ আমারও সন্তান রয়েছে৷ তাই এই দৃশ্য দেখা আমার জন্য অত্যন্ত কঠিন ছিল৷''

ভয়াবহ ছবির সংগ্রহ সরিয়ে রাখা সত্ত্বেও ভ্টুলকিন ফটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন৷ বিদ্রোহীরা সম্প্রতি যে সব নিজস্ব মিডিয়া প্রতিষ্ঠান খুলেছে, তাদের হয়ে কাজ করছেন তিনি৷ কিন্তু এমএইচ সেভেনটিন ভেঙে পড়ার দিনটি তাঁর স্মৃতিভাণ্ডারে বিশেষ জায়গা করে নিয়েছে৷ ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের যে সংকট তাঁর আশেপাশের অনেক মানুষের জীবনের উপর প্রভাব রেখেছে, সেটি গোটা বিশ্বকে এ দিন নাড়া দিয়েছিল৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন