1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

এবার বাসায় ঢুকে জবাই করে ব্লগার হত্যা

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার খিলগাঁও থানার উত্তর গোড়ান এলাকায় বাসায় ঢুকে ব্লগার ও গণজাগরণ মঞ্চের একজন সক্রিয় কর্মী নিলয় নীলকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা৷

শুক্রবার দুপুরে ওই এলাকার ১৬৭ নম্বর বাসার পাঁচ তলার একটি ফ্ল্যাটে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে৷ খিলগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া ডয়চে ভেলেকে জানান, ‘‘দুপুরে জুম্মার নামাজের পর ভাড়াটিয়া সেজে এক যুবক ওই বাসায় ঢোকে৷ পরে তার পিছনে পিছনে ঢোকে আরো তিনজন৷ তারাই এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে আমরা নিশ্চিত হয়েছি৷''

নিলয় নীল (৪০) একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার (এনজিও) গবেষণা বিভাগে চাকরি করতেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারের উপ-কমিশনার (ডিসি) মুনতাসিরুল ইসলাম৷ গোড়ানের ওই বাসায় গত দু'বছর ধরে ভাড়া থাকতেন তিনি৷ ‘ইস্টিশন' নামে একটি ব্লগ সাইটে নিয়মিত ব্লগ লিখতেন নিলয়৷

ঢাকা মহানগর গেয়েন্দা বিভাগের যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম ডয়চে ভেলেকে জানান, ‘‘হত্যার ধরণ এবং প্রাথমিকভাবে পাওয়া তথ্য থেকে মনে হচ্ছে যে, অভিজিৎ রায়সহ অন্যান্য ব্লগারদের যারা হত্যা করেছে, সেই উগ্রবাদী গ্রুপই নিলয়কে হত্যা করেছে৷'' তিনি জানান, ‘‘এরই মধ্যে আমারা ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম থেকে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছি৷''

উল্লেখ্য, গত ১৫ই মে নিজের ফেসবুক সাইটে একটি ‘স্ট্যাটাস' দিয়ে তাঁকে হত্যার আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন নিলয় নীল৷ এ নিয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরিও (জিডি) করেছিলেন তিনি৷ অভিযোগ, পুলিশ তাঁকে নিরাপত্তা না দিয়ে দেশ ছেড়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিল৷ যদিও যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলামের দাবি, ‘‘এ ধরণের জিডি-র কোনো খবর আমার জানা নেই৷''

এরপর গত ৩রা আগস্ট নিলয় আরেকটি ফেসবুক পোস্টে লেখেন, ‘‘ফারাবি আমাকে তার হিটলিস্টে ঢুকিয়েছে৷''

গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার ডয়চে ভেলেকে জানান, ‘‘গত মে মাসে ব্লগার অনন্ত দাস হত্যার বিচারের দাবিতে আয়োজিত সমাবেশ থেকে ফেরার পথে নিলয়কে দু'জন অনুসরণ করে৷ অথচ এরপরও নিলয় নিরাপত্তা চেয়ে পাননি৷''

ইমরান ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘‘ এখন ব্লগার হত্যার বিচারের দাবিকারীদেরও হত্যা করা শুরু হলো৷ এতদিন ব্লগারদের রাস্তায় হত্যা করা হতো, আর এখন বাসায় ঢুকে জবাই করা শুরু হলো৷ এই সরকার ব্লগার হত্যায় পৃষ্ঠপোষকতা করছে৷''

তিনি আরো বলেন, ‘‘এ দেশে মায়ের গর্ভে শিশুও নিরাপদ নয়৷ আমার ধারণা, বিচারহীনতার কারণে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে৷''

এর আগে চলতি বছরের ২৬শে ফেব্রুয়ারি বইমেলা থেকে ফেরার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় টিএসসি এলাকায় হাতে দুর্বৃত্তদের হাতে নিহত হন ব্লগার ও বিজ্ঞান লেখক অভিজিৎ রায়৷ সে'সময় তাঁর স্ত্রী বন্যা আহমেদও আহত হন৷ ঐ ঘটনার মাসখানেক পর, ৩০শে মার্চ তেজগাঁও এলাকায় দিনে-দুপুরে কুপিয়ে হত্যা করা হয় ব্লগার ওয়াশিকুর রহমান বাবুকে৷

তারপর ১২ই মে সিলেটে গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক ও ব্লগার অনন্ত বিজয় দাসকে কুপিয়ে হত্যা করে উগ্রবাদীরা৷

ইমরান এইচ সরকার জানান, ‘‘গণজাগরণ মঞ্চ প্রতিষ্ঠার পর এ পর্যন্ত আটজন ব্লগারকে হত্যা করা হয়েছে৷ অপরাধীরা ব্লগারদের তালিকা করে হত্যা করছে৷'' ইতিমধ্যেই নিলয় হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে শাহবাগে অবস্থান নিয়েছেন গণজাগরণ মঞ্চের নেতা-কর্মীরা৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়