1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

এবার আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে সমর্থন দিলেন এরশাদ

গাজিপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের একদিন আগে বৃহস্পতিবার, এরশাদ আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খানকে সমর্থন দেয়ার কথা বলেন৷ তবে এর আগেই জাতীয় পার্টির স্থানীয় নেতা-কর্মীরা বিএনপির প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছিলেন৷

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে পরিচালিত মহাজোট ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে আসছেন কয়েকদিন ধরে৷ তার আগেই গাজিপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী কাজি মাহমুদ হাসান নির্বাচন থেকে সরে গিয়ে বিএনপির প্রার্থীর সমর্থনে কাজ করছেন৷ দলের স্থানীয় পর্যায়ের নেতা-কর্মীরাও তাই৷ এমনকি গাজিপুরে সংবাদ সম্মেলন করেও তারা বিএনপির প্রার্থীকে সমর্থনের কথা জানায়৷ এই পরিস্থিতিতে ধারণা করা হচ্ছিল এরশাদ মহাজোট ছাড়ছেন সহসাই৷

তবে বৃস্পতিবার দুপুরে নতুন এক ড্রামা উপহার দিয়েছেন এরশাদ৷ তিনি সংবাদ সম্মেলন করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আজমত উল্লাহ খানকে সমর্থনের ঘোষণা দেন৷ আর গাজিপুরে দলের নেতা-কর্মীদের তাঁর নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করতে বলেছেন এরশাদ৷ এরশাদ আজমত উল্লাহকে সমর্থনের ব্যখ্যায় বলেছেন, দুই দলের দু'জন প্রার্থীই তাঁর দোয়া নিয়েছেন৷ কিন্তু বিএনপির প্রার্থী প্রচার করেছেন যে এরশাদ তাঁকে সমর্থন দিয়েছেন৷ এ নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে৷ তাই তিনি তাঁর অবস্থান স্পষ্ট করতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে সমর্থনের কথা জানালেন৷ এরশাদ বলেন, তিনি যেহেতেু মহাজোটে আছেন তাই আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহাজোটের প্রার্থীকে সমর্থন দিয়েছেন৷

ershad.jpg These photos are taken by me & i permit to use Maskwaith Ahsan and his associates. With Regards Harun Ur Rashid Swapan

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ

এই সমর্থনের পর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ ডয়চে ভেলেক বলেন, এরশাদ মহাজোটে ছিলেন, মহাজোটেই আছেন৷ কিছু সংবাদমাধ্যম অযথা ধুম্রজাল সৃষ্টি করেছে৷ জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীরা শুরু থেকেই আওয়ামী লীগের প্রার্থীর সমর্থনে কাজ করছেন৷ এ নিয়ে আওয়ামী লীগের ভেতরে কোনো সন্দেহ ছিল না৷ আর যাদের সন্দেহ আছে, তারা তো এরশাদের বক্তব্য জানলেনই৷ হানিফ বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনেও এরশাদ মহাজোটেই থাকবেন৷

অন্যদিকে বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু ডয়চে ভেলেকে বলেন, জাতীয় পার্টি মাহাজোটের একটি বড় শরিক দল৷ তাই এরশাদ আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবেন এটাই স্বাভাবিক৷ কিন্তু প্রশ্ন হলো, এরশাদকে সংবাদ সম্মেলন করে সমর্থনের কথা জানাতে হবে কেন? তিনি বলেন, এরশাদের এই ঘোষণা তাঁর মনের কথা কিনা – তা ভেবে দেখতে হবে৷ আর আওয়ামী লীগ গাজিপুরে তাঁর দলের বিদ্রোহী প্রার্থীকে বসিয়ে দিয়ে যে প্রক্রিয়ায় সমর্থন আদায় করেছে, এরশাদের ক্ষেত্রেও একই প্রক্রিয়া অবলম্বন করা হয়েছে কিনা – সে প্রশ্ন করাই যায়৷ তবে দুদু দাবি করেন, এরশাদ যাই বলুন না কেন গাজিপুরের জাতীয় পার্টির নেত-কর্মীরা বিএনপির প্রার্থীর সঙ্গে আছেন৷

উল্লেখ্য, এরশাদের সমর্থন নিতে দুই প্রার্থীর দোয়া নিতে যাওয়াই শেষ নয়৷ সমর্থন নিতে এশাদের সঙ্গে শেখ হাসিনা যেমন বৈঠক করেছেন, তেমনি বৈঠক করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন