1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

এফ-ওয়ান: নতুন আইনে ঢ্যাঙা ড্রাইভারদের বিপদ

শুধু জঙ্গিজেটের ককপিটে বসার জন্যেই নয়, দৃশ্য ফর্মুলা ওয়ান মোটর রেসিং-এর ‘পাইলট’ হতে গেলেও আগামীতে দশাসই চেহারার হলে চলবে না৷ গাড়ি আর ড্রাইভারের যুগ্ম ওজন নতুন করে বেঁধে দেওয়া হয়েছে: এটা তারই সম্ভাব্য ফলশ্রুতি৷

ঘটনাটা এই: আগামী বছর থেকে ফর্মুলা ওয়ানে গাড়ি আর ড্রাইভারের সর্বোচ্চ যুগ্ম ওজনের সীমা ৬৪২ কিলোগ্রাম থেকে বাড়িয়ে ৬৯০ কিলোগ্রাম করা হচ্ছে৷ শুনলে মনে হবে, তাহলে তো ওজন বাড়লোই; কমতে যাবে কেন?

মুশকিল এই যে, ২০১৪ সালের গাড়িগুলোতে ভি৬ টার্বো ইঞ্জিন বসানোর জন্য যে সব ব্যাপক পরিবর্তন করতে হবে, তা-তে গাড়িগুলো এখনকার মডেলগুলোর চেয়ে ওজনে অন্তত ৫০ কিলোগ্রাম বেশি হবে৷ যার মানে: ড্রাইভারের ওজন খুব বেশি হলে চলবে না৷

বলতে কি, গাড়ি ও ড্রাইভারের যুগ্ম ওজনের সীমা বাধ্যতামূলক নয়, কিন্তু রেসিং টিমগুলি সেই সীমার নীচে কিংবা কাছাকাছি থাকার চেষ্টা করে কেননা ওজন বেশি হলে গতি কম হয়৷ কত কম হয়? মনে রাখতে হবে, কথা হচ্ছে ফর্মুলা ওয়ান মোটর রেসিং-এর৷ প্রতি এক কিলোগ্রাম বেশি ওজনের অর্থ, ল্যাপ প্রতি গড়ে এক সেকেন্ডের তিনশো ভাগের এক ভাগ বেশি সময় লাগবে৷ এবং তা-তেই জয়-পরাজয় নির্ধারিত হতে পারে৷

কাজেই ফর্মুলা ওয়ানের নতুন নিয়মাবলীর একটি ফলশ্রুতি হবে, লম্বা এবং বেশি ওজনের ড্রাইভারদের কেউ দলে নিতে চাইবে না৷ যেমন ধরা যাক সাউবার দলের ড্রাইভার নিকো হাল্কেনবার্গ৷ গুজব আছে, হাল্কেনবার্গ নাকি আগামী মরশুমের জন্য ফেরারি দলে চান্স পেলেন না শুধুমাত্র তাঁর ওজন ৭৮ কিলো বলে৷ অন্যান্য টপ টিমরাও নাকি ঠিক সেই কারণেই হাল্কেনবার্গকে নেওয়ার ব্যাপারে দ্বিধা করছে৷ রেড বুল'এর মার্ক ওয়েবার-ও একটি দৃষ্টান্ত হতে পারেন – তাঁর উচ্চতা ছ'ফুটের বেশি৷

প্রশ্ন উঠতে পারে, যে রুলের বিরুদ্ধে এখন অনেকেই সোচ্চার, সে রুল বদলানো যাবে না কেন? উত্তর হলো, এফ-ওয়ানের রুল বদলানো এত সহজ নয়, কেননা সকলেরই সকলের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি৷ রুল নতুন হোক আর পুরনো হোক, কোনো টিম যদি দেখে যে তারা তা থেকে সুবিধে পাচ্ছে, তাহলে তারা ঐ রুল বদলাতে চাইবে কেন?

কাজেই আগামী বছর দু'য়েক একটু ভারী চেহারার ড্রাইভারদের কোনো টিমে জায়গা পেতে খানিকটা অসুবিধে হবে বৈকি৷ মার্ক ওয়েবার কিংবা ম্যাকলারেন দলের জেনসন বাটনের মতো ঢ্যাঙা ড্রাইভাররা তো এখনই নিজেদের ওজন কম রাখা নিয়ে ব্যস্ত৷

এসি/ডিজি (এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন