1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘‘এত বেশি খেলা ভালো নয়,’’ এরশাদকে বললেন কাদের সিদ্দিকী

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ বলেছেন, তাঁর ভাই জি এম কাদের মহাজোটের মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেছেন৷ তাই মহাজোটের সঙ্গে তাঁর আর সেভাবে সম্পর্ক নেই৷ এদিকে, বিশ্লেষকরা বলছেন, এরশাদ এখন সময় পার করছেন৷

এরশাদ মহাজোট ছাড়ছেন এটা অনেক পুরনো খবর৷ তিনি নিজেই গত ২ বছরে অন্তত ১০ বার মহাজোট ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন৷ কিন্তু ছাড়েননি৷ তাঁর স্বপ্নভঙ্গের ইতিহাস সবার জানা থাকলেও তাতে মহাজোট ভেঙ্গে নতুন জোট গঠনের বাস্তব রূপ কবে দেখা যাবে তা নিয়ে সংশয় ছিল অনেকরই৷ এখনো যে সংশয় কেটেছে তা নয়৷ তবে এরশাদকে এখন আগের চেয়ে একটু ‘সাহসী' মনে হচ্ছে৷

দুই নেত্রীর ফোনালাপের আগে প্রধানমন্ত্রী প্রথম যে প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি হলেন এরশাদ৷ গণভবনে বৈঠকের পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে বলেছিলেন, জাতীয় পার্টি নির্বাচনে যাবে৷ তবে পরদিন এরশাদ এর প্রতিবাদ করেন৷

এরপর নতুন জোট গঠনের কথা বলেন এরশাদ ৷ কথা ছিল গত বৃহস্পতিবার নতুন জোটের ঘোষণা আসবে৷ কিন্তু এরশাদ পিছটান দেয়ায় নতুন জোটের দেখা মেলেনি বৃহস্পতিবার৷ এর এতে ক্ষুব্ধ হয়েছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের কাদের সিদ্দিকী৷ তিনি এরশাদকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘‘এত বেশি খেলা ভালো নয়৷''

এরপর এরশাদ শনিবার জাতীয় যুব সংহতির অনুষ্ঠানে বললেন নতুন কথা৷ তিনি বলেছেন, ‘‘নির্বাচনে অংশ নিলে সবাই বেঈমান বলবে৷ আবার নির্বাচনে অংশ না নিলে দেশের ভবিষ্যত্‍ অনিশ্চিত৷'' তিনি বলেন, ‘‘যেখানেই যাই লোকে বলে, দুই মহিলাকে চাই না৷ আপনাকে ভোট দেব৷ আমি কি যে বোঝা বহন করছি, তা জানি না৷ পথ হারিয়ে ফেলেছি৷ দিশেহারা হয়ে পড়েছি৷ কিন্তু মানুষ মুক্তি চায়৷''

তিনি তাঁর বক্তব্যে মহাজোট ছাড়ার ঘোষণা না দিলেও অনুষ্ঠান শেষে এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘‘মহাজোটের মধ্যে ছিলেন আমার ভাই (মন্ত্রী জি এম কাদের)৷ তিনি পদত্যাগ করেছেন৷ কাজেই মহাজোটের সঙ্গে আমাদের সেভাবে সম্পর্ক নেই৷ দু'এক দিনের মধ্যে সংবাদ সম্মেলন করে নতুন জোটের ঘোষণা দেয়া হবে৷''

তবে এরশাদ কি করবেন তা নিয়ে এখনো কথা বলার সময় আসেনি বলে মনে করেন যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের৷ তিনি বলেছেন, ‘‘এরশাদ সাহেবের শেষ কথা শোনার জন্য আমাদের আরো অপেক্ষা করতে হবে৷'' আর কয়েকদিনের মধ্যেই রাজনৈতিক দৃশ্য পটে রংধনুর আবির্ভাব হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি৷

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. শান্তনু মজুমদার ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এরশাদ একজন ধূর্ত রাজনীতিবিদ৷ তিনি আসলে নানা ধরনের কথা বলে সময় পার করছেন৷ তিনি দেখছেন কোন দিকে গেলে তাঁর লাভ হবে৷ তাই তিনি ঠিক এখনই কোন সিদ্ধান্ত নেবেন না৷''

শান্তনু মজুমদার বলেন, ‘‘এরশাদ দু'টি বিষয় বিবেচনায় নিচ্ছেন৷ আর তা হল সরকার পরিবর্তন থেকে তিনি কি ফায়দা পাবেন৷ আর শেষ বয়সে তাকে যেন আর কারাগারে যেতে না হয়৷ তাই যারা ক্ষমতায় যাবে বলে এরশাদের কাছে মনে হবে তিনি শেষ পর্যন্ত তাদের দিকেই থাকবেন৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন