1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

এখনো আলোচনার কথা বলছেন দুই নেত্রী

দেশের মানুষ হতাশ হলেও এখনো আলোচনার কথা বলছেন দুই নেত্রী শেখ হাসিনা এবং বেগম খালেদা জিয়া৷ তবে শেখ হাসিনা সর্বদলীয় সরকারের নির্বাচনের দিকেই যাচ্ছেন৷ আর খালেদা জিয়া রয়েছেন তত্ত্বাবধায়ক সরকার আদায়ের আন্দোলনে৷

ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা চলতি সপ্তাহে খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠকের পর বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করেন৷ সেখানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আলোচনার পথ বন্ধ হয়নি৷ বিরোধী দলীয় নেত্রীকে দাওয়াত দেয়াই আছে৷ তাই তিনি চাইলে যে কোনো সময় আলোচনা বা সংলাপ হতে পারে৷ তবে বিরোধী দল শর্ত দিয়ে সংলাপের পরিবেশ নষ্ট করেছে৷ জানা যায়, বৈঠকে ব্যবসারয়ীর অতি দ্রুত মহাসচিব পর্যায়ে সংলাপ শুরুর তাগিদ দেন প্রধানমন্ত্রীকে৷

ব্যবসায়ী নেতারা এর আগে খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠক করে আলোচনায় বসার আহ্বান জানান বিরোধী দলীয় নেত্রীকে৷ তাঁরা অন্তত মহাসচিব পর্যায়ে শর্তহীন সংলাপ করার অনুরোধ করেন খালেদা জিয়াকে, খবর এমনতরই৷

খালেদা জিয়া বৃহস্পতিবার বিকেলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশে বলেন যে, তিনি আলোচনার জন্য এখনো প্রস্তুত আছেন৷ আর তারা নয়, সরকারই শর্ত দিয়ে আলোচনার পথ রুদ্ধ করেছে৷ তবে বিএনপি এখনো আলোচনা চায়৷ ব্যবসায়ীদের প্রস্তাব অনুযায়ী, বিএনপি মহাসচিব পর্যায়ে সংলাপের জন্য প্রস্তুত৷ তাই তিনি আশা করেন, সরকার সংলাপের পথে ফিরে আসবে৷

কিন্তু সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজনের সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার ডয়চে ভেলেকে বলেন, সংলাপ নিয়ে দুই নেত্রীই নাটক করছেন৷ কারণ কেউই তাঁদের অবস্থানের পরিবর্তন করেননি৷ কারুর মধ্যেই ছাড় দেয়ার মানসিকতা নেই৷ প্রধানমন্ত্রী সর্বদলীয় সরকার আর বিরোধী দলীয় নেত্রী তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে অটল আছেন৷ এই মনোভাবের পরিবর্তন না হলে সংলাপ করেও কোনো লাভ হবে না৷ তিনি বলেন, এর আগেও বাংলাদেশের মানুষ মহাসচিব পর্যায়ে সংলাপ দেখেছে, যা থেকে কোনো ফল আাসেনি৷

ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, সবাই বিচার মানেন কিন্তু ‘তাল গাছের' দখল না ছেড়ে৷ একদল ক্ষমতা ধরে রাখতে চায় আর আরেক দল ক্ষমতায় যেতে চায়৷ এই চাওয়া বাস্তবায়নে তাঁরা যাঁর যাঁর অবস্থান নিয়েছেন৷ দেশের মানুষের কথা তাঁরা ভাবছেন না৷

এদিকে যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, সর্বদলীয় সরকার গঠনের প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে৷ সোমবার মন্ত্রীরা পদত্যাগ পত্র জমা দেবেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে৷ এরই মধ্যে কোনো কোনো মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর কাছে পদত্যাগ-পত্র জমাও দিয়েছেন বলে জানান তিনি৷ ওবায়দুল কাদের জানান, তিনি নিজে পদত্যাগপত্র জমা দেবেন রবিবার৷

ওবায়দুল কাদের জানান, সর্বদলীয় সরকারের যাঁরা থাকবেন তাঁদের পদত্যাগপত্র গৃহীত হবে না৷ ফলে নতুন করে তাঁদের আর শপথ নিতে হবে না৷ তবে যাঁরা মন্ত্রি পরিষদের বাইরে থেকে সর্বদলীয় সরকারে যাবেন তাঁদের শপথ নিতে হবে৷ আর নির্বাচন হবে এই সর্বদলীয় সরকারের অধীনেই৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়