1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

এক সেকেন্ডেই পুরো মুভি ডাউনলোড!

দক্ষিণ কোরিয়ার স্যামসাং ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানি বলছে যে, তারা ৫জি প্রযুক্তির গবেষণায় প্রথমবারের মতো সফলতা পেয়েছে৷ তাই ২০২০ সালের মধ্যে মুঠোফোন ব্যবহারকারীদের ফাইভজি সেবা দেয়ার স্বপ্ন দেখছে কোম্পানিটি৷

বাংলাদেশে এখন চলছে থ্রিজির যুগ৷ তবে ২০০৮ সাল থেকেই চালু হয়েছে ফোরজি'র ব্যবহার৷ বিশ্বের কথা বিবেচনা করলে এখন সবচেয়ে আধুনিক যে প্রযুক্তিটি মানুষ ব্যবহার করছে সেটা হচ্ছে ফোরজি এলটিই (লং-টার্ম এভ্যুলিউশন)৷ চীন সহ অনেক দেশে অবশ্য এখনো ফোরজি এলটিই নেটওয়ার্ক চালু হয়নি৷ এর পরের জেনারেশনটিই হচ্ছে ফাইভজি৷

স্যামসাং বলছে ফাইভজি দিয়ে ফোরজি নেটওয়ার্কের তুলনায় ‘কয়েকশো গুণ বেশি পর্যন্ত দ্রুত' সেবা পাওয়া যাবে৷ এর ফলে মোবাইল ব্যবহারকারীরা ‘কোনোরকম সীমাবদ্ধতা' ছাড়াই উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ডিজিটাল মুভি আদান-প্রদান করতে পারবে৷ অর্থাৎ, পুরো একটি মুভি ডাউনলোড করা যাবে এক সেকেন্ডেরও কম সময়ের মধ্যে!

এক বিবৃতিতে কোম্পানিটি বলছে, ‘‘ব্যবহারকারীরা মোবাইলে থ্রিডি মুভি দেখতে পারবে, থ্রিডি সংস্করণের গেমসও খেলতে পারবে৷ এছাড়া ইউএইচডি (আলট্রা হাই-ডেফিনিশন) কন্টেন্ট ব্যবহার ও চিকিৎসা সেবায় ব্যাপক অগ্রগতি আনবে ফাইভজি৷''

অবশ্য ফাইভজি প্রযুক্তিতে সফলতার দাবি করা প্রথম কোম্পানি স্যামসাং নয়৷ এর আগে ফেব্রুয়ারিতে জাপানি কোম্পানি ‘এনটিটি ডোকোমো' এক্ষেত্রে সফল হওয়ার খবর জানিয়েছিল৷ অবশ্য তারা কবে থেকে ৫জি চালু করতে পারবে সে ব্যাপারে কোনো তথ্য দেয়নি৷

জেডএইচ/ডিজি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন