1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

এক রুশ ব্লগার বনাম প্রেসিডেন্ট পুটিন

ঢাল নেই, তরোয়াল নেই, তবুও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়ছেন আলেক্সেই নাভালনি৷ রাশিয়ার এই অজ্ঞাত ব্লগার ক্রেমলিনের বৃহত্তম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠতে চলেছেন৷ এবার তিনি মস্কোর মেয়র হতে চান৷

একটি লাল স্টিমরোলার মস্কোর টেলিভিশন টাওয়ারটাকে গুঁড়িয়ে দিচ্ছে৷ আলেক্সেই নাভালনির ওয়েবসাইট ‘‘দোব্রাইয়া মাশিনা প্রাভদি'' (‘ভালো সত্যের মেশিন') খুললে প্রথম ছবিটাই হলো ক্রেমলিনের প্রোপাগান্ডার বিরুদ্ধে সত্যের জয়ের এই প্রতীকী ছবি৷ এই ওয়েবসাইট এবং সেই সঙ্গে অন্যান্য ওয়েবসাইটে নাভালনি রাশিয়ায় ব্যাপক দুর্নীতির সমালোচনা করে থাকেন৷

রুশ ‘‘লাইভজার্নাল''-এ তাঁর ব্লগ পড়েন লক্ষ লক্ষ মানুষ৷ সরকারি খরচে দামি-দামি গাড়ি আনান যে সব স্থানীয় নেতা, তাদের থেকে শুরু করে খনিজ তেল অথবা গ্যাসের কোম্পানিগুলির ফন্দিফিকির অবধি – সব কেলেঙ্কারিই ফাঁস করেন নাভালনি – এবং বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে করে আসছেন৷ সেটা আবার এমন একটি দেশে, যে দেশের নাগরিকরা দুর্নীতিকে দেশের সবচেয়ে বড় সমস্যা বলে মনে করে৷

Russian protest leader Alexei Navalny (L, front), surrounded by supporters and journalists, looks on after arriving from Kirov at a railway station in Moscow, July 20, 2013. Russia unexpectedly freed opposition leader Alexei Navalny on bail on Friday, bending to the will of thousands of protesters who denounced his five-year jail sentence as a crude attempt by President Vladimir Putin to silence him. REUTERS/Sergei Karpukhin (RUSSIA - Tags: CRIME LAW POLITICS CIVIL UNREST TRANSPORT)

ইন্টারনেটের বাইরে বিরোধী নেতা হিসেবে নাভালনির প্রথম আবির্ভাব ২০১২ সালের শীতে অধিকতর গণতন্ত্রের দাবিতে পথ-আন্দোলনে (ফাইল ফটো)

নাভালনি তাদের কেলেঙ্কারি ফাঁস করার পর ক্রেমলিনের নিজস্ব দল ‘‘ঐক্যবদ্ধ রাশিয়া''-র একাধিক সাংসদকে তাদের আসন ছাড়তে হয়েছে৷ তাঁর ‘‘দুর্নীতি বিরোধী ফাউন্ডেশন'' প্রতিষ্ঠা করে নাভালনি যে সব ক্ষমতাশালী ব্যক্তিদের চক্ষুশূল হয়েছেন, তাদের মধ্যে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনও আছেন৷ জার্মানির ‘‘দি সাইট'' সাপ্তাহিক নাভলনিকে ‘‘পুটিনের বৃহত্তম প্রতিদ্বন্দ্বী'' বলে অভিহিত করেছে৷

ব্লগার থেকে রাজনীতিক

আগামী ৮ সেপ্টেম্বর মস্কোয় মধ্যকালীন মেয়র নির্বাচন৷ নাভালনি সেই নির্বাচনে প্রার্থী৷ এটাই হবে রাজনীতিক হিসেবে তাঁর প্রথম পরীক্ষা – যদিও তাঁর অংশগ্রহণ এ যাবৎ নিশ্চিত নয়৷ গত জুলাই মাসে একটি বিতর্কিত মামলায় তাঁকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়: কিরোভ শহরের একটি কাঠগুদামের উপদেষ্টা থাকাকালীন নাভালনি নাকি জুয়াচুরি করেছেন বলে অভিযোগ৷ কিন্তু পরদিনই রায় কার্যকর না হওয়া অবধি তাঁকে মুক্তি দেওয়া হয়, আদালতের আদেশে৷

স্বয়ং রুশ প্রেসিডেন্টের নির্দেশে নাকি তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে, বলে সে সময় নাভালনি একটি বেতার সাক্ষাত্কারে বলেছিলেন৷ ২০১১ সাল থেকেই পুটিন বিরোধী হিসেবে নাভালনির নাম ছড়াতে থাকে, কেননা তিনিই প্রথম শাসকদল ‘‘ঐক্যবদ্ধ রাশিয়া''-কে ‘‘চোর-জোচ্চোরের দল'' বলে অভিহিত করেন৷ নাভালনির দেওয়া নামটা আজ পর্যন্ত খুবই জনপ্রিয়৷ সর্বাধুনিক সংসদীয় এবং প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটে কারচুপির খবরাখবর দেওয়ার যে আহ্বান জানানো হয়, তার পিছনেও ছিলেন নাভালনি৷ হাজার হাজর মানুষ সেই ডাকে সাড়া দেন৷

‘রাশিয়ার একমাত্র সম্ভাবনাপূর্ণ রাজনীতিক'

লম্বা, বিরাট, খোড়োচুল, চোখে পড়ার মতো চেহারা – এভাবেই মার্কিন সাংবাদিক জুলিয়া ইওফ নাভালনিকে বর্ণনা করেছেন৷ জুলিয়া মার্কিন মুলুকের ‘‘নিউ ইয়র্কার'' এবং ‘‘ফরেন পলিসি'' ম্যাগাজিন দু'টির জন্য মস্কো থেকে লেখেন৷ নাভালনির বিষয়েও তিনি অনেক লিখেছেন৷ জুলিয়া ডিডাব্লিউকে বলেন: ‘‘(নাভালনি) হলেন আজকের রাশিয়ার একমাত্র সম্ভাবনাপূর্ণ রাজনীতিক৷'' নাভালনি মধ্যবিত্ত শ্রেণি থেকে এসেছেন এবং তাদের দুঃখকষ্ট বুঝতে করতে পারেন৷

নাভালনি প্রথাগত অর্থে রাজনীতিক নন, তাঁর পিছনে কোনো দলও নেই৷ মস্কোয় আইন এবং শেয়ারবাজার নিয়ে পড়াশুনা করেছেন৷ পরে বৃত্তি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত ইয়েল ইউনিভার্সিটিতে কিছুদিন কাটিয়েছেন৷ ২০০০ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত নাভালনি রাশিয়ার উদারপন্থি ‘‘ইয়াবলোকো'' দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন, কিন্তু কিছু বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়৷

কৌশল ও উচ্চাশা

সে আমলে নাভালনি নিজেকে বর্ণনা করেছিলেন একজন ‘‘যুক্তিসম্পন্ন জাতীয়তাবাদী'' হিসেবে৷ এমনকি তিনি তথাকথিত ‘‘রুশি রূপকথা''-তেও অংশগ্রহণ করেছিলেন: চরম দক্ষিণপন্থিরা অভিবাসীদের বিরুদ্ধে জনমত গড়ার জন্য এই সব অনুষ্ঠানের আয়োজন করত৷ নাভালনি পরে এই সব মন্তব্য ও কার্যকলাপ বর্জন করেছেন, কিন্তু এ-ও যোগ করেছেন যে, রাশিয়ার মতো বহুজাতিক দেশে অভিবাসনের সমস্যা নিয়ে আলোচনায় তিনি দোষের কিছু দেখেন না৷ দৃশ্যত রুশ মধ্যবিত্ত শ্রেণির একটা বড় অংশের মনোভাবও তাই, যে কারণে নাভালনি এই পন্থায় তাদের সমর্থন যোগাড় করার চেষ্টা করেছিলেন, বলে জুলিয়া ইওফে-এর ধারণা৷

Russian opposition leader Alexei Navalny (R, centre) talks to the media, with his wife Yulia (L, centre) standing nearby, outside a court building in Kirov, July 19, 2013. A Russian court temporarily released Navalny from custody on Friday, but placed him under travel restrictions, while he awaits the outcome of an appeal against his sentence to five years in jail. REUTERS/Sergei Karpukhin (RUSSIA - Tags: CRIME LAW POLITICS CIVIL UNREST)

লম্বা, বিরাট, খোড়োচুল, চোখে পড়ার মতো চেহারা – এভাবেই মার্কিন সাংবাদিক জুলিয়া ইওফ নাভালনিকে বর্ণনা করেছেন

ইন্টারনেটের বাইরে বিরোধী নেতা হিসেবে নাভালনির প্রথম আবির্ভাব ২০১২ সালের শীতে অধিকতর গণতন্ত্রের দাবিতে পথ-আন্দোলনে৷ নাভালনি বিক্ষোভের আয়োজন করেন এবং একাধিকবার গ্রেপ্তার হন৷ ২০১২ সালে বিরোধীপক্ষের সমন্বয় পরিষদের নির্বাচনে নাভালনি সর্বাধিক ভোট পান৷ তবে নাভালনির দৃষ্টি আরো দূরে এবং আরো উঁচুতে:

‘‘আমি প্রেসিডেন্ট হবো এবং দেশের জীবনধারা বদলে দেব,'' বলে নাভালনি ঘোষণা করেন এ বছরের বসন্তে৷ তবে তার আগে তাঁকে সরকারি কৌঁসুলির আনা নানা মামলার ধাক্কা সামলাতে হবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন